শুক্রবার ১৬ GwcÖj ২০২১


নাঙ্গলকোটে জনকল্যাণ সংস্থার নামে ঋণ দেয়ার কথা বলে প্রতারকচক্র হাতিয়ে নিয়েছে ১৩লক্ষ টাকা


আমাদের কুমিল্লা .কম :
14.01.2017

নাঙ্গলকোট প্রতিনিধি ।। কুমিল্লার নাঙ্গলকোটের হেসাখাল ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে জনকল্যাণ সংস্থার নামে এনজিও পরিচয়ে ঋণ দেয়ার নামে একটি প্রতারক চক্র প্রায় আড়াই‘শ পুরুষ-মহিলার নিকট থেকে প্রায় ১৩লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়ার ঘটনা ঘটেছে। তারা বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে গরিব অসহায় পুরুষ- মহিলাদেরকে এ প্রতারণার ফাঁদে পেলে টাকা হাতিয়ে নেয়।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার হেসাখাল ইউনিয়নের খিলপাড়া গ্রামের মাকু মিয়ার বাড়িতে ১২/১৩জন লোক এসে জনকল্যাণ সংস্থার নামে প্রতি মাসে ১০হাজার টাকার বিনিময়ে একটি ঘর ভাড়া নেয়। এসময় তারা অফিসে প্রায় ১লক্ষ টাকার আসবাবপত্র নিয়ে আসেন। তারা ভর্তি ফি ২শ টাকা এবং প্রতি এক লক্ষ টাকার ঋণের বিপরীতে ১০হাজার টাকা জামানত নেয়ার ঘোষণা দিয়ে হেসাখাল ইউনিয়নের দায়েমছাতি, হেসাখাল দক্ষিণ, পূর্বপাড়া, পদুয়ারপাড়া, চক্রলোদী, খিলপাড়া, শ্রীহাস্য, কুরকুটা গ্রামে-গ্রামে গিয়ে কেন্দ্র গঠন করে। গ্রামের পুরুষ-মহিলারা সরল বিশ্বাসে প্রতারকদের কথা বিশ্বাস করে সদস্য হয়। গত রোববার এবং সোমবার প্রতারকচক্র একদিন পরে ঋণ দেয়ার কথা বলে বিভিন্ন গ্রামের প্রায় আড়াই‘শ পুরুষ-মহিলার নিকট থেকে ৫০হাজার টাকার জন্য ৫হাজার ২শ টাকা, এক লক্ষ টাকার জন্য ১০হাজার ২শ টাকা, ২লক্ষ টাকার জন্য ২০হাজার ২শ টাকা করে প্রায় ১৩লক্ষ টাকা সংগ্রহ করে। জানা যায়, হেসাখাল পদুযারপাড়া গ্রামের কাজল ১০হাজার ২শ টাকা, ইমরান হোসেন ১০হাজার ২শ টাকা, সুমন ৫হাজার ২শ টাকা, হালিমা ২০হাজার ২শ টাকা, নাছিমা ১০হাজার ২শ টাকা, সামছুল হক ৫হাজার ২শ টাকা, মহিন ৫হাজার ২শ টাকা, জাহানারা ১০হাজার ২শ টাকা এবং ইব্রাহিম ৫হাজার ২শ প্রতারকদের হাতে তুলে দেন। গত সোমবার দুপুরে প্রতারকচক্র সুযোগবুঝে অফিস গুটিয়ে পালিয়ে যায়। এসময় অসহায় পুরুষ-মহিলারা তাদের টাকা হারিয়ে আহাজারি করতে থাকেন। জানা যায়, অসহায় পুরুষ-মহিলারা সরল বিশ্বাসে সহশ শর্তে ঋণ পাবার জন্য বিভিন্ন জন থেকে সুদের উপর এবং কর্জ করে টাকা এনে প্রতারকচক্রের হাতে তুলে দেন। এব্যাপারে স্থানীয় সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য মনোয়ারা বেগম ঘটনাটি থানা পুলিশকে অবহিত করেন।