মঙ্গল্বার ২২ অক্টোবর ২০১৯


রান-পাহাড়ের চূড়ায় ভারত


আমাদের কুমিল্লা .কম :
10.02.2017

শেষ খবর পর্যন্ত ৬ উইকেটে ৬৭৫ রান। অসাধারণ, দুর্দান্ত, দারুণ। স্কোর বোর্ডে চোখ বুলিয়ে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের এমন অনেক বিশেষণে বিশেষিত করাই যায়।

এর আগে দলীয় ৪৯৫ রানে বিদায় নেন ভারতীয় কাপ্তান। তাইজুলের এলিবির ফাঁদে পা দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান কোহলি। আউট হওয়ার আগে দলকে ২০৪ রানের অসাধারণ ইনিংস উপহার দিয়ে গেছেন।

দ্বিতীয় দিনের শুরু থেকে বাংলাদেশি বোলারদের কচুকাটা করেন বিরাট কোহলি আর অজিঙ্কা রাহানে। দলীয় ৪৫৬ রানের মাথায় কোহলি-রাহানের ২২২ রানের দুর্দান্ত জুটি ছিন্ন করেন তাইজুল। মিরাজের হাতে ক্যাচ দিয়ে ৮২ রান করে বিদায় নেন রাহানে।

রাহানে ফেরার পরও থেমে থাকেনি বিরাটের ব্যাট। হৃদ্ধিমান সাহাকে সঙ্গী করে দলীয় রানকে পাহাড়ের চূড়ায় দিকে নিয়ে যাচ্ছেন তিনি। প্রথম সেশন শেষে ৪ উইকেটে ৪৭৭ রান সংগ্রহ করে ভারত।

দলীয় ৪৫৬ রানের মাথায় চতুর্থ উইকেটের দেখা পেল বাংলাদেশ। তাইজুলের বলে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নিয়েছে ৮২ রান করা রাহানে।

হায়দরাবাদ টেস্টের প্রথম দিনটি ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের ঝুলিতে চলে গেছে। বিজয়, পূজারা আর কোহলির ব্যাটিং নৈপুণ্য দিন শেষে ৩ উইকেটে ৩৫৬ রান সংগ্রহ করে স্বাগতিক ভারত। বিজয় ১০৮, পূজারা ৮৩ রান করে বিদায় নেন। দুজন মিলে দলকে ১৭৮ রানের রাজসিক জুটি উপহার দিয়ে যান।

ব্যাটসম্যানদের এমন দাপুটে দিনে বল হাতে একটি করে উইকেট শিকার করেন তাসকিন, মিরাজ এবং তাইজুল। দলীয় ২ রানে রাহুলকে ফেরান তাসকিন। ১০৮ রান করা বিজয়কে সরাসরি বোল্ড করেন তাইজুল। মাঝে বিপজ্জনক পূজারাকে ব্যক্তিগত ৮৩ রানের মধ্যে বেঁধে ফেলেন মিরাজ।

মুদ্রা লড়াইয়ে জিতে বাংলাদেশকে বোলিংয়ে পাঠান ভারতীয় দলনেতা বিরাট কোহলি। এই প্রথম ভারতের বিপক্ষে দ্বিপাক্ষিক কোনো সিরিজে অংশ নিলো বাংলাদেশ।

এই ম্যাচের আগে ভারতের বিপক্ষে আটটি টেস্ট খেলেছে মুশফিকরা। যার মধ্যে টাইগাররা দুইটিতে ড্র করেছে ও ছয়টিতে হেরেছে। সবকটি ম্যাচই অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশের মাটিতে।