বুধবার ৩০ †m‡Þ¤^i ২০২০
  • প্রচ্ছদ » sub lead 3 » সন্তানের দায়িত্ব নেব, অপুর নয়: শাকিব আমি হ্যাপি, শাকিব বাচ্চার দায়িত্ব নেবে: অপু


সন্তানের দায়িত্ব নেব, অপুর নয়: শাকিব আমি হ্যাপি, শাকিব বাচ্চার দায়িত্ব নেবে: অপু


আমাদের কুমিল্লা .কম :
11.04.2017

স্টাফ রিপোর্টার।। চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসকে বিয়ে করার কথা স্বীকার করলেন চিত্রনায়ক শাকিব খান। স্বীকার করলেন ছেলে আব্রাহাম খান জয়ের কথাও। তবে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে অপু বিশ্বাস হাজির হয়ে সরাসরি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিয়ে আর সন্তানের কথা বলায় নাখোশ হয়েছেন তিনি।
এ দিকে, চিত্রনায়ক শাকিবের বক্তব্যের জবাবে চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস বলেন, আমি হ্যাপী যে, শাকিব তার সন্তানের দায়িত্ব নেবে।
চিত্রনায়ক শাকিব খান :
অপু বিশ্বাস যখন সরাসরি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শাকিবের সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের কথা জানাচ্ছিলেন, তখন রাজধানীর একটি হোটেলে শরীরচর্চায় ব্যস্ত ছিলেন শাকিব খান। সেখান থেকে তিনি কথা বলেন এই প্রতিবেদকের সঙ্গে। অপুর আচরণে ক্ষুব্ধ শাকিব জানালেন, ‘সন্তানের দায়িত্ব নেব। অপুর দায়িত্ব নেব না।’ অপু বিশ্বাস তাঁকে অসম্মান করেছেন বলে দাবি করেন তিনি।
শাকিবের দাবি, এটি তাঁর ক্যারিয়ার ধ্বংস করার জন্য একটি চক্রান্ত। বিয়ের কথা এত দিন গোপন রাখার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ব্যক্তিগত জীবন সামনে আনতে চাইনি। এখন সে (অপু বিশ্বাস) এনেছে। তাঁর সব চাহিদা পূরণ করেছি। যখন বলেছে টাকা দিয়েছি।’ শাকিব খান বলেন, ‘আব্রাহামের দায়িত্ব আমি নিয়ে যাব। সে আমার সন্তান। সারা জীবন তার দায়িত্ব আমি নিয়ে যাব।’
আমি হ্যাপি, শাকিব বাচ্চার দায়িত্ব নেবে: অপু
অপুর দায়িত্ব নেবে না শাকিব, সেই কথার প্রতিক্রিয়ায় অপু জানান, ‘আমি আমার সন্তানের স্বীকৃতি চেয়েছি। আমি আর দশজন ঘরোয়া মেয়ের মতো না। আমি অপু বিশ্বাস, আমি আমার দায়িত্ব নিতে পারি।’ রাজধানীর নিকেতনে নিজের বাসায় তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায়  সাংবাদিকদের  এ কথা বলেন অপু বিশ্বাস।
তিনি বলেন, ‘আমি হ্যাপি, বাবা তার ছেলেকে নেবে। পৃথিবীতে এর চেয়ে বড় কিছু নেই।আমার বাচ্চার বয়স ছয় মাস হলো। কয়দিন পর একবছরের বার্থ ডে করতে হবে না?  এই স্বীকৃতি তো লাগবে।
অপু বিশ্বাস বলেন, ‘সে (শাকিব) কেন আমার দায়িত্ব নেবে না বলেছে, সেটা নিয়ে পরে বলতে পারবো। তবে আসলে আজকের ঘটনায় সে একটু আপসেট মনে হয়।’
সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অপু বলেন, ‘আমি নিজের স্বীকৃতি নিয়ে কাল শ্বশুরবাড়ি গিয়ে বলব, মা আপনার জন্য ভাত রান্না করি এমন মেয়ে আমি না। আমি আমার সন্তানের ভবিষ্যৎ ভেবে একজন মায়ের দায়িত্ব পালন করেছি।’
এর আগে সোমবার বিকালে ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খানকে স্বামী দাবি করে একটি টেলিভিশন চ্যানেলে দেওয়া সাক্ষাতকারে চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস বলেন, ‘৯ বছর আগে ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল শাকিবের বাসায় ইসলাম ধর্মমতে আমাদের বিয়ে হয়। আমার নতুন নাম অপু ইসলাম খান। বিয়েতে শাকিবের পরিবারের লোকজনসহ প্রযোজক মামুনুজ্জামান মামুন উপস্থিত ছিলেন।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের একটি সন্তানও আছে। শাকিবের ক্যারিয়ারের কথা ভেবেই  এতদিন বিয়ে বা সন্তানের কথা বলিনি।’ শাকিব-অপুর সন্তান তার মতো কিনা ওই টেলিভিশনের উপস্থাপিকা প্রশ্ন করলে অপু বলেন, ‘শাকিব খানের মতোই হয়েছে।’
চিত্রনায়ক শাকিবের সঙ্গে বন্ধুত্বের সম্পর্ক বিয়ে পর্যন্ত গড়িয়েছে বলে জানিয়েছেন চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস। তাঁদের একটি ছেলেও রয়েছে। আজ সোমবার একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলকে তিনি এ কথা জানান।
অপু বিশ্বাস বলেন, ২০০৮ সালে ১৮ এপ্রিল তাঁদের বিয়ে হয়। শাকিবের ঢাকার বাসায় এই বিয়ে হয়। পরিবারের কাছের লোকজন সেই বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন। বিয়ের সময় তাঁর নাম হয় অপু ইসলাম খান। শাকিবের ইচ্ছাতেই এত দিন বিয়ের বিষয়টি গোপন রাখা হয়েছে।
হঠাৎ উধাও হয়ে যাওয়ার ১০ মাস পর ফেরেন অপু বিশ্বাস। তিনি বলেন, এই দীর্ঘ সময়টায় তিনি ভারত, সিঙ্গাপুর ও ব্যাংককে ছিলেন। কলকাতার একটি হাসপাতালে তাঁর ছেলের জন্ম হয়, ২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর। ছেলের নাম আব্রাহাম খান জয়।
অপু বিশ্বাস এসব কথা বলতে গিয়ে বারবার কান্নায় ভেঙে পড়েন। তিনি বলেন, শাকিবের ভালো চিন্তা করে তিনি সব করেছেন। অনেক ছাড় দিয়েছেন। ধৈর্য ধরতে ধরতে শেষ সীমানায় পৌঁছে গেছেন তিনি। তাই এবার সব বলছেন।
শাকিব সম্মান করেননি, বরং বারবার ছোট করেছেন বলে অপু বিশ্বাস বলেন। তাঁর ভাষায়, ‘সম্মান চেয়েছি। পাইনি। বারবার ছোট হয়েছি।’
একপর্যায়ে অপু বিশ্বাস বলেন, অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার পর শাকিব তাঁকে বলেছেন নিজেকে লুকিয়ে রাখতে। তাই তিনি তেমনটা করেছেন। সন্তান হওয়ার সময় শাকিব তাঁর পাশে ছিলেন না। তবে ঢাকায় আসার পর সন্তানকে দেখতে যান। সন্তানের  সব খরচও দেন।
এরপর পরই বিষয়টি নিয়ে শাকিবের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিয়ে ও সন্তানের কথা স্বীকার করেন। তবে এর বেশি কিছু তিনি জানাননি। তিনি  বলেন, ‘অপুর টিভি অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ায় আমি ক্ষুদ্ধ। আব্রাহাম আমার সন্তান। অবশ্যই আমি তার দায়িত্ব নেব। কিন্তু অপুর দায়িত্ব আমি নেব না। অপু আমাকে অসম্মান করল।’