শুক্রবার ৩ জুলাই ২০২০
  • প্রচ্ছদ » sub lead 3 » চাঁদপুরে ৫শ’ ‘অবৈধ’ রেজিস্ট্রেশন সিমসহ আটক এক


চাঁদপুরে ৫শ’ ‘অবৈধ’ রেজিস্ট্রেশন সিমসহ আটক এক


আমাদের কুমিল্লা .কম :
25.04.2017

কে এম মাসুদ, চাঁদপুর ॥ চাঁদপুরে বাংলালিংকের ‘অবৈধভাবে’ রেজিস্ট্রেশন করা পঁচশ সিমসহ গত রোববার রাতে হাজী মহসীন রোডস্থ বাংলালিংক অফিসের সামনের এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। আটক তারেকুল হায়দার তৌহিদ পাটওয়ারী চাঁদপুর ফরিদগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম আলোনিয়া গ্রামের রফিকুল হায়দার পাটওয়ারীর ছেলে।
তৌহিদ চাঁদপুরে মোবাইল অপারেটর বাংলালিংকের ট্রেড মার্কেটিং এজেন্ট হিসেবে (বর্তমানে মার্চেনটাইজার মতলব উত্তর ট্রেড মার্কেটিং, বাংলালিংক লিঃ) কর্মরত। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ বাংলালিংকের পাঁচশ অবৈধ রেজিস্ট্রেশনকৃত সিম উদ্ধার করে পুলিশ।
গতকাল সোমবার চাঁদপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আশরাফুজ্জামান এ তথ্য তুলে ধরেন।
তিনি বলেন, আটক তৌহিদ চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ থানার প্রত্যাশী, মতলব উত্তর থানার গজরা বাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় বাংলালিংক কোম্পানীর সিমকার্ড বিক্রয় করাকালে সু কৌশলে একই ব্যাক্তির তিনটি আংগুলের ছাপ গ্রহণ করে একটি সিমকার্ড উক্ত ব্যাক্তিকে প্রদান করে আর বাকী দুইটি ফিংগার প্রিন্ট ব্যবহার করে আরো দুইটি সিমকার্ড উত্তোলন করে। এভাবে গ্রামে সাধারণ মানুষের কাছে সিম বিক্রির সময় ভোটার আইডি কার্ড ও অতিরিক্ত টিপসই (বায়োমেট্রিক) নিয়ে রাখতেন। এরপর তিনি অতিরিক্ত টিপসই ব্যবহার করে নতুন সিম কিনে রেজিস্ট্রেশন করতেন।
এসব সিম তৌহিদ কুমিল্লায় একটি বেসরকারি ব্যাংকে কর্মরত এক লোকের কাছে বিক্রি করতেন। ওই ব্যক্তি তৌহিদের কাছে টাকা পাঠালে তৌহিদ সিমগুলো চট্টগ্রামে একটি বাংলালিংক অফিসে কর্মরত এক লোকের কাছে পাঠাতেন।
আশরাফুজ্জামান বলেন, চট্টগ্রামের ব্যক্তি সিম কার্ডগুলো অন্য সহযোগীদের সাহায্যে প্রতারক চক্রের কাছে উচ্চমূল্যে বিক্রি করতেন। এসব সিম অপরাধীরা অপহরণ করে চাঁদা দাবিসহ নানা অপরাধ কাজে ব্যবহার করে। বিষয়টি জেলা গোয়েন্দা পুলিশের নজরে এলে অভিযান চালানো হয় বলে তিনি জানান।
আশরাফুজ্জামান বলেন, জাকির হোসেন চাঁদপুর জেলার বাংলালিংক কোম্পানীর সিমকার্ড বিক্রয়ের একজন ডিস্ট্রিবিউটার। তিনি তার অফিসের কর্মচারী কর্তৃক সংঘটিত কোম্পানীর শর্ত ভংগের বিষয়টি জেনেও অধিক সিমকার্ড বিক্রির লোভে তা থেকে তার কর্মচারী তৌহিদকে বারং করেন নি কিংবা চাকুরী থেকে বরখাস্ত করেন নি। সে হিসেবে জাকির হোসেরও এই অপরাধে অপরাধি হিসেবে বিবেচিত।
আশরাফুজ্জামান জানান, অবৈধভাবে বাংলালিংকের সিম রেজিস্ট্রেশনের ঘটনায় চাঁদপুর সদর মডেল থানায় আটক তৌহিদসহ চার জনকে আসামি করে গতকাল সোমবার টেলি যোগাযোগ রেগুলাটারী-২০০১ এর ৭৩-৭৪ ধারায় একটি মামলা করেছে পুলিশ। বিষয়টি পুলিশ তদন্ত করছে। চাঁদপুর ডিবি পুলিশের এসআই আহসানুজ্জামান লাবু বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন বলে তিনি জানান।
আটক তৌহিদ পুলিশকে বলেন, সিম বিক্রির জন্য প্রতিমাসে কোম্পানির পক্ষ থেকে একটি নির্দিষ্ট লক্ষ্যমাত্রা দেওয়া হয়। সেই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে গিয়ে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে ভোটার আইডি কার্ড ও একাধিক টিপসই নেওয়ার মাধ্যমে ‘অবৈধভাবে’ অতিরিক্ত সিম রেজিস্ট্রেশন করা হতো। বাংলালিংকের চাঁদপুর জেলা ডিলার জাকির হোসেন তার এই কর্মকান্ডের বিষয়ে অবগত রয়েছেন।
এ বিষয়ে গতকাল দুপুরে শহরের হাজী মহাসীন রোডস্থ বাংলালিংক ডিলার অফিসে গিয়ে জাকির হোসেন খানের কাছে সত্যতা জানতে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। পরবর্তীতে তার ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বার-০১৯১৪৪১৬৯৯৮ একাধীকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু প্রতিবারেই মোবাইল নাম্বাটি বন্ধ দেখায়। তবে এ বিষয়ে অফিসের অন্য স্টাফরা জানায় তৌহিদ এই অপকর্মের সাথে জড়িতর বিষয়টি তারা অবগত নয়। আরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলে তৌহিত আমাদের ইজ্জত মাটির সাথে মিলিয়ে দিয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি শরীফ চৌধুরী, সাবেক সভাপতি শহীদ পাটওয়ারী, সাবেক সম্পাদক ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী, গিয়াস উদ্দিন মিলন, দৈনিক মতলবের আলোর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক কে এম মাসুদ, চাঁদপুর টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আল-ইমরান শোভন, সাধারণ সম্পাদক রিয়াদ ফেরদৌস প্রমুখ।