মঙ্গল্বার ২৪ অক্টোবর ২০১৭
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » মনোহরগঞ্জ উপজেলা যুবদলের ৭০ নেতা কর্মীর পদত্যাগ


মনোহরগঞ্জ উপজেলা যুবদলের ৭০ নেতা কর্মীর পদত্যাগ


আমাদের কুমিল্লা .কম :
01.06.2017

স্টাফ রিপোর্টার।।
দলীয় গঠনতন্ত্রের বাইরে গিয়ে ও দলের তৃণমূল নেতাকর্মীদের মতামত না নিয়ে রাতের অন্ধকারে পকেট কমিটি ঘোষণার অভিযোগে কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলা যুবদলের কমিটির ৭০ নেতা একসঙ্গে পদত্যাগ করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির প্রধান কার্যালয়ে এক প্রতিবাদ সমাবেশের মাধ্যমে জেলা যুবদলের সভাপতি আশিকুর রহমান মাহমুদ ওয়াসিম ও সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল হকের কাছে ওই ৭০ নেতা তাঁদের পদত্যাগপত্র জমা দেন।
এ সময় পদত্যাগ করা বিক্ষুদ্ধ যুবদল নেতারা তাঁদের বক্তব্যে বলেন, আমরা দলের জন্য আন্দোলন সংগ্রাম করতে গিয়ে বার বার নির্যাতিত হয়েছি। দলের জন্য আন্দোলন করায় আমাদের একের পর এক মামলা দিয়ে নির্যাতন করা হয়েছে, কারাবরণ করতে হয়েছে। কিন্তু আমাদের না জানিয়ে গত ২৬ মে রাতের অন্ধকারে ১০১ সদস্য বিশিষ্ট পকেট কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এ কমিটির সভাপতি-সেক্রেটারিকে আমরা মাঠে দেখিনি। অনেকেই তাদের নামও শুনেনি। অথচ সেই সুবিধাভোগীদেরই নেতা বানানো হয়েছে। তাই ১০১ জনের এই কমিটির ৭০জন আমরা একসঙ্গে পদত্যাগ করছি। এরপরও যদি অবিলম্বে এই কমিটি বাতিল করে দলের গঠনতন্ত্রমতে সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি গঠন করা না হয় তাহলে এর প্রতিবাদে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলেও হুশিয়ারি করেন তাঁরা। এ সময় মনোহরগঞ্জে ১০১ সদস্য বিশিষ্ট ঘোষণা হওয়া ওই কমিটিকে অবাঞ্চিত বলেও ঘোষণা করেন তাঁরা।
কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা যুবদলের সভাপতি আশিকুর রহমান মাহমুদ ওয়াসিমের সভাপতিত্বে ও মনোহরগঞ্জ উপজেলা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাসুদুল আলম বাচ্চুর পরিচালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল হক, জেলা বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক সরওয়ার জাহান দোলন, সদস্য অধ্যাপক জাহাঙ্গীর আলম, জেলা যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি ফেরদৌস পাটোয়ারী, যুগ্ম-সম্পাদক শাহ আলম, মহানগর বিএনপি নেতা হাজী মামুন, মনোহরগঞ্জ উপজেলা যুবদলের সভাপতি শওকত হোসেন সিহাব, সিনিয়র সহ-সভাপতি গিয়াস উদ্দিন সৈকত প্রমুখ।
এ সময় বিক্ষুদ্ধ ৭০ নেতার পদত্যাগপত্র গ্রহণের পর জেলা যুবদলের সভাপতি আশিকুর রহমান মাহমুদ ওয়াসিম তাঁর বক্তব্যে বলেন, আমাদের নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলে অচিরেই এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে। দলে ত্যাগী নেতাদেরই মূল্যায়ন হলে বলেও সকলকে আশ্বস্ত করেন তিনি।
পদত্যাগ করা নেতাদের মধ্যে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, কামরুজ্জামান কামরু, মিনার হোসেন, কামাল হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম, সোহাগ, আবদুল ওয়াদুদ, আবদুল বাতেন, মিজানুর রহমান প্রমুখ।
এদিকে, সমাবেশ শেষে নব গঠিত জেলা যুবদলের নেতাদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন মনোহরগঞ্জ উপজেলা যুবদলের নেতা-কর্মীরা।