শুক্রবার ২৪ নভেম্বর ২০১৭
  • প্রচ্ছদ » sub lead 3 » কুমিল্লার ভিডিও দেখিয়ে পশ্চিমবঙ্গে অস্থিরতা করছে : মমতা


কুমিল্লার ভিডিও দেখিয়ে পশ্চিমবঙ্গে অস্থিরতা করছে : মমতা


আমাদের কুমিল্লা .কম :
10.07.2017

আমাদের কুমিল্লা ডেস্ক।।
পাশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার বসিরহাট, বাদুড়িয়ায় অস্থিরতা তৈরির পেছনে বাংলাদেশের কুমিল্লার একটি ভিডিও ক্লিপিং কাজ করেছে বলে মন্তব্য করেছেন রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। গত কয়েকদিন ধরে বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া বসিরহাট, বাদুড়িয়া, স্বরূপনগরসহ একাধিক জায়গায় সংঘর্ষের ঘটনাটি তুলে গতকাল ‘নবান্ন’য় (পশ্চিমবঙ্গের সচিবালয়) এক সংবাদ সম্মেলনে মমতা বলেন, ‘একটা স্থানীয় ঘটনাকে নিয়ে বাংলাদেশের কুমিল্লার ভিডিও ক্লিপিং দিয়ে দেওয়া হচ্ছে এবং বিরোধী দলের লোকেরা তাদের পার্টি অফিস থেকে এসব করছে…এর মানে কী? কুমিল্লার ভিডিও রেকর্ডিং দিয়ে বাংলার নামে বলা হচ্ছে। ভোজপুরী সিনেমার একটা অংশ নিয়েও দেখানো হচ্ছে, বলা হচ্ছে এটা পশ্চিমবঙ্গে হচ্ছে। যা আদৌ বাংলার সঙ্গে সম্পর্কিত নয়’।   উল্লেখ্য, ফেসবুকে একটি আপত্তিকর পোস্টকে কেন্দ্র করে গত রবিবার থেকেই বাদুড়িয়া, বসিরহাট, স্বরূপনগরসহ বিস্তীর্ণ এলাকায় গোষ্ঠী সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। রাস্তা, রেল অবরোধ থেকে শুরু করে দোকান-বাড়িতে অগ্নিসংযোগ ঘটানো, সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করার অভিযোগ উঠেছে। গোষ্ঠী সংঘর্ষে কার্তিক ঘোষ (৬১) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যুও হয়। মমতা ব্যানার্জি বলেন, ‘বসিরহাট ও বাদুড়িয়ার ঘটনার বিচারবিভাগীয় তদন্ত করা হবে। বিচারবিভাগীয় কমিশনের হাতে তুলে দেব।
বিচার বিভাগীয় কমিশন নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করে দেখুক যে এটা কিসের অপারেশন, কারা কারা এর পরিকল্পনা করেছে’। সূত্র জানায়, তদন্ত কমিশনের নেতৃত্বে থাকবেন কলকাতা হাই কোর্টের সাবেক বিচারপতি সৌমিত্র পাল।
বিজেপি এর বিরুদ্ধে দাঙ্গায় মদদ দেওয়ার অভিযোগ তুলে মমতা বলেন, ‘হঠাৎ করেই বাংলাদেশের সীমান্ত খুলে গেল। সীমান্ত কার হাতে? আমাদের হাতে নয়, এটা কেন্দ্রের হাতে। কী করে ওপার থেকে লোক এসে এপারে দাঙ্গা করে চলে গেল। এটা কি পরিকল্পনা ছাড়া হতে পারে?
সংঘর্ষের ঘটনা নিয়ে ‘ফেসবুক’র অপব্যবহার নিয়েও মুখ খোলেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘ফেসবুকের সঙ্গে ফেকবুক চলছে। আমি ফেসবুক-কে সম্মান করি কিন্তু ফেকবুক-কে করি না। যারা এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছে তাদের বিরুদ্ধে কখনো সিবিআই আাাবার কখনো ইনকাম ট্যাক্স, ইডি, এনআইএ লেলিয়ে দেওয়া হচ্ছে’।
সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন অনলাইন।