মঙ্গল্বার ২৪ অক্টোবর ২০১৭
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে ফলাফল বিপর্যয়- নামেই তদন্ত কমিটি!


কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে ফলাফল বিপর্যয়- নামেই তদন্ত কমিটি!


আমাদের কুমিল্লা .কম :
10.08.2017

মাহফুজ নান্টু: কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল বিপর্যয়ের জন্য গঠিত তদন্ত কমিটি নামেই গঠন করা হয়েছে। কাজের কাজ কাজ কিছুই হয়নি। তদন্ত কমিটির সদস্যরা বোর্ডের অধীন সংশ্লিষ্ট মাধ্যমিক প্রতিষ্ঠানে কেন ফলাফল বিপর্যয় হয়েছে তা জানার চেয়ে ভবিষ্যতে যেন এমন না হয় সে জন্য তারা প্রতিষ্ঠান থেকে সুপারিশ চেয়েছেন। এতে করে অজানাই থেকে গেল কোন কারণে এসএসসির ফলাফল বিপর্যয়ের আসল কারণ।
জানা যায়, এ বছর কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের ফলাফল বিশ্লেষণ করে দেখা যায় কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডে ১লাখ ৮২হাজার ৯৭৯জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। পাশ করেছে ১লাখ ৮হাজার ১১১জন শিক্ষার্থী। এবছর পাশের হার ৫৯ দশমিক ০৩ শতাংশ। যা গতবছরের তুলনায় ২৪ দশমিক ৯৭ শতাংশ কম।
এমন অবস্থায় কেন দেশের অন্যান্য শিক্ষাবোর্ডের বোর্ডের তুলনায় কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের ফলাফলের বিপর্যয় হয়েছে, কারণ জানতে ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়। বোর্ডের মাধ্যমিক স্কুল পরিদর্শক ইলিয়াস উদ্দিন আহমেদকে প্রধান করে গঠিত তদন্ত কমিটির সদস্যরা বোর্ডের চেয়ারম্যানের কাছে তদন্ত রিপোর্ট জমা দেন। কিন্তু তদন্ত রিপোর্টে চলতি বছর কেন এসএসসির ফলাফল বিপর্যয় হয়েছে সে ব্যাপারে তেমন কারণ উল্লেখ নেই। এখানে তদন্তের নামে ভবিষ্যতে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে ফলাফল ভালো করার জন্য কি প্রয়োজন সে ব্যাপারে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের কাছ থেকে পরামর্শ চাওয়া হয়েছে।
তদন্ত কমিটির রিপোর্টের বিষয়ে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসার আবদুল খালেক জানান, বোর্ডের অধীন ৯৩০ টি মাধ্যমিকে ফলাফল ভালো করার পরামর্শ চেয়ে চিঠি প্রদান করেছে। চিঠির উত্তর পেয়েছি। তাহলে তদন্ত কমিটি কেন গঠন করা হয়েছে এমন প্রশ্নের উত্তরটিকে পাশ কাটিয়ে বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল খালেক জানান, তদন্ত কমিটির মতে ইংরেজি ও গণিতে বেশী ফেল করেছে এ কারণেই ফল বিপর্যয় হয়েছে।
এ বিষয়টাতো ফল প্রকাশের সময় সংশ্লিষ্ট সবাই জেনেছে তাহলে তদন্ত কমিটি কেন গঠন করা হলো, এ বিষয়ে চেয়ারম্যান প্রফেসর আবদুল খালেক জানান, আসলে ফলাফল বিপর্যয়ের এককভাবে কোন ব্যক্তি প্রতিষ্ঠান দায়ী নয় সকলের ব্যর্থতার সম্মিলিত ফলাফল।