মঙ্গল্বার ২১ নভেম্বর ২০১৭
  • প্রচ্ছদ » sub lead 2 » বুড়িচংয়ে ব্যাংকে বিল দেয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ-পুলিশসহ আহত ৫


বুড়িচংয়ে ব্যাংকে বিল দেয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ-পুলিশসহ আহত ৫


আমাদের কুমিল্লা .কম :
11.09.2017

বুড়িচং প্রতিনিধি।।
রোববার বুড়িচং উপজেলার শংকুচাইল অগ্রণী ব্যাংকে বিদ্যুৎ বিল দেয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে পুলিশসহ ৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়- রোববার সকাল সাড়ে ১০ টায় কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের শংকুচাইল অগ্রণী ব্যাংকে উপজেলার বাকশীমুল ইউনিয়নের মিরপুর গ্রামের আ: মালেকের ছেলে মাইনুদ্দিন (২৫) ওই ব্যাংকে বিদ্যূতের বিল জমা দিতে যায়। দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে থাকায় এক পর্যায়ে সে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে তার লাইন থেকে সে চলে যায়। ফিরে এসে দেখে সে যেখানে দাঁড়িয়ে ছিল সেখানে রাজাপুর গ্রামের মো. সোনা মিয়ার ছেলে মো. মোমিনুল ইসলাম দাঁড়িয়ে আছে। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে বাকবিত-া ও কথা কাটাটির এক পর্যায়ে মোমিনুল ইসলামকে মাইনুদ্দিন কিল ঘুষি মেরে নাকে রক্ত ঝরায় । আহত হওয়ার খবরটি মোমিনুল ইসলামের এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে এলাকার লোকজন জড়ো হয়ে ব্যাংকের সামনে অবস্থান করে এবং মাইনুদ্দিনকে মারার জন্য ব্যাংকে ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করে। এসময় ব্যাংকের ব্যবস্থাপক গেইটে তালা লাগিয়ে বুড়িচং থানা পুলিশকে খবর দিলে থানার এসআই সুব্রত সরকার সঙ্গীয় ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে গিয়ে ব্যাংক থেকে মাইনুদ্দিনকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসার চেষ্টা করে। এসময় স্থানীয় উত্তেজিত জনতা মোমিনুল ইসলামের লোকজনেরা মাইনুদ্দিনের ওপর চড়াও হয়ে কিল ঘুষি ও মারধর করে। পুলিশ স্থানীয় উত্তেজিত লোকজনকে নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করলে পুলিশের উপর ও লোকজন চড়াও হয়ে আক্রমণ করে। এতে পুলিশের দুই সদস্য মো. আল-আমিন ও আবুল হাশেম আহত হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে দুই রাউন্ড ফাকা গুলি বর্ষণ করে। পুলিশ ও জনতার মধ্যে এ সংঘর্ষের সময় রাজাপুর গ্রামের আ: মোনাফ মিয়ার ছেলে মো. লোকমান হোসেন (২৫) আহত হয়। পুলিশ আহত হওয়ার খবর পেয়ে বুড়িচং থানার অফিসার ইনচার্জ মনোজ কুমার দে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন এবং মাইনুদ্দিনকে বুড়িচং থানায় নিয়ে আসেন। আহতদেরকে বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন স্থানে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়। বুড়িচং থানার অফিসার ইনচার্জ মনোজ কুমার দে বলেন, ব্যাংকে বিদ্যূৎ বিল দেয়াকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট ঘটনায় যথাযথ আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।