বুধবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭
  • প্রচ্ছদ » sub lead 3 » কুটনৈতিক ব্যর্থতার জন্যই অবাধে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের অনুপ্রবেশ- ড. মোশাররফ


কুটনৈতিক ব্যর্থতার জন্যই অবাধে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের অনুপ্রবেশ- ড. মোশাররফ


আমাদের কুমিল্লা .কম :
16.09.2017

তিতাস প্রতিনিধি।।

কুটনৈতিক ব্যর্থতার জন্যই রোহিঙ্গা শরণার্থীরা অবাধে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করছে। সরকারের নতজানু পররাষ্ট্রনীতির কারণে রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান হচ্ছে না’। এই মন্তব্য করেছেন বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সিনিয়র সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। ড. মোশাররফ শুক্রবার কুমিল্লার দাউদকান্দি সদরে জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম দাউদকান্দি উপজেলা ও পৌর শাখা এবং গৌরীপুর কলেজ ছাত্র দলের নতুন কমিটির পরিচিতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, চীনের প্রধানমন্ত্রী যখন বাংলাদেশে এলেন প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, চীনের সাথে সম্পর্ক আকাশচুম্বী। তিনি যখন ভারতে গেলেন তখন বলেছিলেন, ভারতের সাথে কুটনৈতিক সম্পর্ক হিমালয়সম উচ্চ। অথচ রোহিঙ্গার মতো মানবিক ইস্যুতে চীন-ভারত আজ বাংলাদেশের পাশে নেই। তারা মিয়ানমারের পাশে আছে, যারা খুন করছে, জেনোসাইড করছে। কুটনৈতিক সফলতার দাবি করে প্রধানমন্ত্রী যা বলেছেন, তা সবই জনগণের সাথে প্রতারণা। কুটনৈতিক ক্ষেত্রে সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ। তাদের এই ব্যর্থতার জন্যই রোহিঙ্গা শরণার্থীরা অবাধে অনুপ্রবেশ করছে। ’৭৮ এবং ’৯২ সালে মিয়ানমারের সাথে যে চুক্তি হয়েছিল, সেই চুক্তি অনুযায়ী মিয়ানমারকে চাপ দিতে হবে। তাদের বাধ্য করতে হবে, যাতে রোহিঙ্গারা নিজ দেশে ফিরে যেতে পারে এবং নাগরিকত্ব পান।
আগামী নির্বাচন নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে অভিযোগ করে ড. মোশাররফ বলেন, সরকার ক্ষমতায় থাকার জন্য নানা অজুহাতে বিএনপিকে আবারো নির্বাচনের বাইরে রাখতে চায়। এই জন্য প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে মন্ত্রী-এমপিরা ব্যাপক তৎপর। সভা-সমাবেশে তারা নানা ষড়যন্ত্রমূলক কথাবার্তা বলছে। একটি সুষ্ঠু ও সকলের অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের দাবিতে দেশের মানুষ আজ ঐক্যবদ্ধ। আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া শীঘ্রই দেশে ফিরে সহায়ক সরকারের রূপরেখা জাতির সামনে তুলে ধরবেন। তিনি বলেন, শেখ হাসিনার অধীনে আর কোন নির্বাচন নয়। নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকারের দাবি আদায় করেই বিএনপি নির্বাচনে যাবে। জনগণের আন্দোলনের মুখে সহায়ক সরকার দিতে তাদের বাধ্য করা হবে। নতুবা দেশে সৃষ্ট উদ্ভূত পরিস্থিতির জন্য সরকারকেই দায়ভার গ্রহণ করতে হবে। সহায়ক সরকারের দাবি আদায়ের আন্দোলনের জন্য সকলকে আরো ঐক্যবদ্ধ হবার উদাত্ত আহ্বান জানান বিএনপি’র এই নীতিনির্ধারক নেতা।
ওমর ফারুক মিয়াজির সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন, বিএনপি’র জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ড. খন্দকার মারুফ হোসেন, বিএনপি নেতা একেএম শামসুল হক, জসিম উদ্দিন আহমেদ, দেলোয়ার হোসেন মিয়াজী, নূর মোহাম্মদ সেলিম, নূরুল আমিন সরকার, মাহবুবুল আলম মোহন, ভিপি জাহাঙ্গীর আলম, ভিপি সাহাব উদ্দিন ভূইয়া, দাউদকান্দি পৌর সভার কাউন্সিলর মোস্তাক সরকার, সুমন খন্দকার ও সালাউদ্দিন সরকার, বাবুল মোল্লা, শরীফ চৌধুরী, ছাত্রদল নেতা রোমান খন্দকার, আল আমিন সরকার, আব্দুল বাসেদ, আসাদুজ্জামান লিমন এবং আলাউদ্দিন আল জাবেদ প্রমুখ।
পরে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন দাউদকান্দি বিএনপি অফিস ভবন উদ্বোধন শেষে এক মিলাদ মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন। এ সময় বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নেতা ড. খন্দকার মারুফ হোসেনসহ দাউদকান্দি উপজেলা ও পৌর বিএনপি এবং অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।