বৃহস্পতিবার ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭


শিশুদের দিয়ে মা ইলিশ নিধন!


আমাদের কুমিল্লা .কম :
09.10.2017

কে এম মাসুদ,চাঁদপুর।।


চাঁদপুর সদর উপজেলার রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নের মেঘনা ও পদ্মা নদীর চরাঞ্চল এলাকার পাশ নিয়ে বয়ে যাওয়া নদীতে শিশুদের দিয়ে মা ইলিশ নিধনের উৎসবে মেতে উঠেছে এক শ্রেণীর অসাধু জেলেরা। তারা নিজেদের শিশুদের দিয়ে ইঞ্জিন বিহীন ও ইঞ্জিন চালিত ছোট ছোট নৌকা নিয়ে দিনভর মা ইলিশ নিধন করতে উৎসহ যোগাচ্ছে। আর এসব মা ইলিশ নদী পারেই অস্থায়ী আড়ৎ ও গ্রামে প্রকাশ্যে বিক্রি করা হচ্ছে বলে জানান স্থানীয়রা। এছাড়াও নদীপাড় থেকে পাইকারি ক্রেতারা এসব ইলিশগুলো ক্রয় করে সেগুলো সিলভারের কলসি, পাতিল ও ককসেটের বক্সসহ বিভিন্ন পাত্রে গোপনে বাড়িতে নিয়ে নিয়ে যাচ্ছে বলে জানা যায়।
৭ অক্টোবর শনিবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত সরেজমিনে পদ্মা-মেঘনায় ঘুরে ইলিশ নিধনের এ দৃশ্যে ধারণ করেন একদল সাংবাদিক। এ সময় তারা নদীতে শিশু জেলেদের দিয়ে নিষিদ্ধ কারেন্ট জালের সাহায্যে মা ইলিশ ধরতে দেখেন।
এ বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্থানীয়রা জানান, মা ইলিশ রক্ষায় সরকার এবার কঠোর অবস্থায় রয়েছে। মা ইলিশ ধরার অপরাধে জেলেদের এক থেকে দুই বছর কারাদ- দেয়ায় আইনও করেছে। এজন্য তারা শিশু-কিশোরদের দিয়েই মাছ নিধন করছে। কারণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা শিশুদের আটক করলেও তাদের অভিভাবকরা মুচলেকা দিয়ে শিশুদের ছাড়িয়ে আনতে পারে।
এবিষয়ে সাংবাদিক আশিক বিন রহিম জানান, আমরা চাঁদপুর সদর উপজেলার রাজরাজেশ্বর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড ও ২নং ওয়াার্ডে পদ্মা নদীর পাড়ের অংশে গিয়ে বেশ কয়েকটি আড়ৎ দেখতে পাই। সেখানে প্রকাশ্যে শতশত মানুষের উপস্থিতিতে হাঁক-ডাক দিয়ে পাইকারদের কাছে মা ইলিশ বিক্রি করা হচ্ছে। এছাড়াও ইউনিয়নের দেওয়ার বাজার আড়তে স্থানীয় রুহুল আমিনের ছেলে ইব্রাহিমসহ বেশ কয়েকজন ডাক উঠিয়ে মা ইলিশ বিক্রি করছে।
বিষয়টি তৎক্ষণাৎ জেলা প্রাশাসক ও জেলা টাক্সফোর্সের সভাপতি মো. আব্দুস সবুর মন্ডলকে জানালে তিনি দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান। একই কথা জানান নৌ-পুলিশের এসপি সুব্রত কুমার হালদার।