শুক্রবার ১৭ অগাস্ট ২০১৮


কুমিল্লা থেকে গ্রাহকের শত কোটি টাকা নিয়ে ‘মিশন ফর ডেভেলপমেন্ট’ উধাও


আমাদের কুমিল্লা .কম :
21.01.2018


স্টাফ রিপোর্টার।। অধিক মুনাফার প্রলোভন দেখিয়ে কুমিল্লা নগরীর নবাব বাড়ী চৌমুহনী সংলগ্ন উত্তর চর্থা এসবি আলী রোডে অবস্থিত স্বপ্নকুঞ্জ বাড়িতে ভাড়ায় পরিচালিত মিশন ফর ডেভেলপমেন্ট নামক এনজিও সংস্থাটি গ্রাহকদের শত কোটি টাকা নিয়ে উধাও হয়ে গেছে। এ নিয়ে গতকাল বিকালে উত্তর চর্থায় ক্ষতিগ্রস্থ প্রায় এক হাজারের অধিক সংখ্যক গ্রাহকদের নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো: রেজাউল করিম বুলু’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় ভুক্তভোগি জনতা অভিযোগ করে বলেন, বিগত প্রায় ১৮-২০ বছর যাবত কথিত ‘মিশন ফর ডেভেলপমেন্ট’ এর মালিক মো: কামাল হোসেন (৪২) ও মো: জামাল হোসেন (৪০) উভয় পিতা মৃত: মো: নুরুল ইসলাম সাং উত্তর চর্থা এবং সংস্থার ম্যানেজার মোতালেব (৩৫) পিতা অজ্ঞাত সাং-বালুতুপা কোতয়ালী কুমিল্লা উক্ত অভিযুক্ত প্রতারক চক্র সমাজের অসহায় সরলমনা সাধারণ মানুষ থেকে অধিক মুনাফা প্রদানের প্রলোভন দেখিয়ে দীর্ঘ দিন হতে লক্ষ লক্ষ টাকা নিয়ে ব্যবসা করে আসছিল। কিন্তু হঠাৎ গত ৭-৮দিন হতে অফিস বন্ধ করে অভিযুক্ত প্রতারক চক্র মানুষের শত কোটি টাকা নিয়ে উধাও হয়ে যায়। এতে হাজার হাজার গ্রাহক টাকা না পাওয়ার আশায় হতাশা গ্রস্থ হয়ে পড়ে।
স্থানীয় ১২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ইমরান বাচ্চু জানান, দীর্ঘ দিন হতে আমার নির্বাচনী ১২নং ওয়ার্ডের প্রায় এক হাজারের অধিক জনগণ মিশন ফর ডেভেলপমেন্ট প্রতিষ্ঠানে মুনাফার আশায় সর্ব নি¤œ দৈনিক ১০ টাকা থেকে শুরু করে ৫০০ শত টাকা আবার কেউ কেউ ৫০ হাজার টাকা কেউ লক্ষ লক্ষ টাকা উক্ত প্রতিষ্ঠানে আমানত হিসেবে রাখে। কিন্ত গত কয়েক দিন হতে প্রতিষ্ঠানের মালিক পক্ষ তাদের কার্যক্রম হঠাৎ বন্ধ করে উধাও হওয়ায় এলাকার মানুষ অর্থনৈতিক ভাবে প্রায় ২০ বছর পিছিয়ে গেল। আমরা ক্ষতিগ্রস্থদের নিয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে মানুষের আমানতের টাকা ফেরত পাওয়ার জন্য প্রশাসন ও সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
আলেয়া নামে ভুক্তভোগি এক মহিলা গ্রাহক জানায় তার স্বামী অনেক কষ্ট করে রিক্সা চালিয়ে দৈনিক ১০ টাকা করে এ পর্যন্ত পায় ৫০ হাজার টাকা আমানত জমা করেছে। ভুক্তভোগি গ্রাহক থেকে আরো জানা যায়, মিশন ফর ডেভেলপমেন্ট প্রতিষ্ঠানটি জগন্নাথপুর, বাজগড্ডা, বালুতুপা ও প্রধান কার্যালয় চর্থা সহ মোট ৪টি শাখার মাধ্যমে বিগত প্রায় ১৭-২০ বছর যাবত তাদের ব্যবসার কথা বলে সাধারণ ও হত দরিদ্র অসহায় মানুষের কাছ থেকে এ পর্যন্ত প্রায় শত কোটি টাকা আমানত সংগ্রহ করে। সমাজের খেটে খাওয়া রিক্সা শ্রমিক, দিনমুজুর, ঠেলাগাড়ী চালক, রাজমিস্ত্রি সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের কাছ থেকে অধিক মুনাফার প্রলোভন দেখিয়ে এসব টাকা সংগ্রহ করে এবং কিছু সংখ্যক ব্যক্তিকে এ আমানতের টাকা থেকে ক্ষুদ্র ঋণ প্রদান করে। ভুক্ত ভোগিরা আরো জানায় চারটি শাখায় প্রায় ৭ হাজারের অধিক গ্রাহক থেকে শত কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে কামাল, জামাল ও মোতালেব প্রতারক চক্রটি উধাও হওয়ায় এলাকায় বর্তমানে ক্ষতিগ্রস্থ গ্রাহকরা আতঙ্কিত ও দিশেহারা হয়ে দিন যাপন করছে।
সংবাদ সম্মেলনে এসময় উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো: ইমরান বাচ্চু, মহিলা কাউন্সিলর রুমা আক্তার সাথী, সাবেক কাউন্সিলর সফিউল আজম রতন,বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ শওকত আলী বকুল, ওমর শরীফ টিপু। এছাড়া আরো উপস্তিত ছিলেন, স্থানীয় ফেরদৌস পাটোয়ারী, ইকবাল হোসেন, আবেদ কবির, মহিউদ্দিন, মোক্তার হোসেন, আলী হায়দার, লিটন, ভুট্টু, জনি পাটোয়ারী, আবুল হোসেন, আবুল মিয়া, আজাদ হোসেন শিশু মিয়া সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। সভা শেষে রেজাউল কবির বুলুকে সভাপতি করে ১৩ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়। উক্ত কমিটির নেতৃত্বে আগামী কয়েক দিনের মধ্যে কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য, জেলা প্রশাসক, মেয়র ও পুলিশ সুপারকে স্বারকলিপি প্রদানের মাধ্যমে পরবর্তী কর্মসূচি হাতে নেওয়া হবে বলে উল্লেখ করা হয়।