বুধবার ২৩ †g ২০১৮
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » কালিরবাজারে সাবেক সেনা সদস্যকে গুলি করে হত্যা


কালিরবাজারে সাবেক সেনা সদস্যকে গুলি করে হত্যা


আমাদের কুমিল্লা .কম :
25.02.2018

স্টাফ রিপোর্টার।।
কুমিল্লার কালিরবাজারে মোবারক হোসেন নামের এক অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যকে গুলি চালিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে জেলার সদর উপজেলার কালিরবাজার ইউনিয়নের ধনুয়াখলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মোবারক ওই গ্রামের মৃত আবদুল জলিলের পুত্র। ময়নামতি ক্যান্টনমেন্ট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ও পুলিশ পরিদর্শক মাহমুদুল হাসান রুবেল হত্যার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী থেকে অবসরে আসার পর মোবারক হোসেন (৬০) ট্রাভেলস ব্যবসার মাধ্যমে বিদেশে লোক পাঠাতো। বিভিন্ন কারণে স্থানীয় কিছু লোকের সাথে তার বিরোধ চলছিল। শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে বাসার বাহির থেকে দুর্বৃত্তরা তাকে ঘুম থেকে ডেকে তুলে। এ সময় সে দরজা খুলে বারান্দায় আসার সাথে সাথে দুর্বত্তরা মোবারককে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি করে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেয়ার পর ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
কালিরবাজার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সেকান্দার আলী জানান, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। পরিবারের সূত্রে জানতে পেরেছি রাতে ১০-১৫ সদস্যের একটি ডাকাতদল বাড়ির কয়েকটি তালা ভেঙ্গে ফেলে। এসময় মোবারক বিষয়টি টের পেয়ে বাঁধা দিলে তাকে গুলি করে পালিয়ে যায়। হত্যাকারী যে হোক না কেন, তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।
ময়নামতি ক্যান্টনমেন্ট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ও পুলিশ পরিদর্শক মাহমুদুল হাসান রুবেল জানান, ধারনা করা হচ্ছে, ওই সেনা সদস্য দুর্বৃত্তদের চেনে ফেলায় তাকে গুলি করা হয়। খবর পেয়ে রাতেই পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়, হত্যাকান্ডের মোটিভ এখনো জানা যায়নি। ময়নাতদন্ত করতে নিহতের মরদেহ শনিবার সকালে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
নিহতের ছেলে মো. এরশাদ হোসেন এই প্রতিবেদককে বলেন, বাদ মাগরিব ধনুয়াখোলায় জানাযা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হয়েছে। তিনি জানান, কারো সাথে তার বাবার কোন শত্রুতা নেই। তবে কি কারণে কারা তার বাবাকে হত্যা করেছে তা খুঁজে বের করতে পুলিশের প্রতি আহবান জানান । তিনি বলেন, থানায় মামলা করতে যাওয়ার জন্য এখন প্রস্তুতি নিচ্ছি আমরা।

এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানভীর সালেহীন ইমন, কুমিল্লা কোতয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুস সালাম। হত্যাকরীদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে পরিবারকে আশ্বাস দেন তারা।