মঙ্গল্বার ২০ নভেম্বর ২০১৮


ফলাফলে ঘুরে দাঁড়িয়েছে কুমিল্লা বোর্ড


আমাদের কুমিল্লা .কম :
06.05.2018

স্টাফ রিপোর্টার।। গত বছরের ব্যর্থতা কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে কুমিল্লা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড। ২০১৭ সালের ফলাফলের তুলনায় এবারের এস এস সি পরীক্ষায় কুমিল্লা বোর্ড ২১.৩৭ ভাগ পরীক্ষার্থী বেশি পাস করেছে। ২০১৭ সালে কুমিল্লা বোর্ডের পাশের হার ছিল ৫৯.০৩ ভাগ। আর এবার পাশের হার বেড়ে হয়েছে ৮০.৪০ ভাগ। পাশের এ হারকে সবার সম্মিলিত ও প্রচেষ্ঠার অংশ বলে মনে করছেন কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মো. আছাদুজ্জামান। রোববার দুপুরে শিক্ষা বোর্ডের মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিক ভাবে চলতি বছরের ফলাফল সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ঘোষণা করেন পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মো. আছাদুজ্জামান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের সচিব প্রফেসর মো. আবদুস সালাম, উপ পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম।
কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড সূত্র জানায়, এ বছর কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড থেকে মোট শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়েছে ১ লক্ষ ৮২ হাজার ৭১১ জন। এর মধ্যে পাস করেছে ১ লক্ষ ৪৬ হাজার ৮৯৭ জন। পাসের শতকরা হার ৮০.৪০ ভাগ। তার মধ্যে ছেলেরা পরীক্ষা দিয়েছে ৮১ হাজার ২৪০ জন আর পাস করেছে ৬৬ হাজার ৩৭ জন। পাসের শতকরা হার ৮১.২৯ ভাগ। আর মেয়েরা পরীক্ষা দিয়েছে ১ লক্ষ ১ হাজার ৪৭১ জন। আর পাস করেছে ৮০ হাজার ৮৬০ জন। পাসের শতকরা হার ৭৯.৬৯ ভাগ।
মেয়েদের চেয়ে ছেলেরা এবার সব বিভাগে এগিয়ে : এ বছর কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার এবং জিপিএ ৫ সব ক্ষেত্রেই মেয়েদের চেয়ে ছেলেরা এগিয়ে রয়েছে। এবার এ বোর্ডে ছেলেদের পাসের হার ৮১.২৯ ভাগ আর মেয়েদের পাসের হার ৭৯.৬৯ ভাগ।
এবার কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড থেকে মোট জিপিএ ৫ পেয়েছে ৬ হাজার ৮৬৫ ভাগ। এর মধ্যে ছেলো পেয়েছে ৩ হাজার ৪৮৬ জন আর মেয়েরা পেয়েছে ৩ হাজার ৩৭৯ জন।
২০১৭ সালে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে এস এস সি পরীক্ষায় মোট জিপিএ ৫ পেয়েছিল ৪ হাজার ৪৫০ জন। যা এবারের তুলনায় ১ হাজার ২১৫ জন কম। গত বছর ছেলেরা জিপিএ ৫ পেয়েছিল ২ হাজার ২৯৭ জন আর মেয়েরা জিপিএ ৫ পেয়েছিল ২ হাজার ১৫৩ জন।
শতকরা পাস করা প্রতিষ্ঠান ৭৪টি: এবার কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের ৬ জেলা থেকে মোট ১ হাজার ৭০৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এসএসসি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করেছে। ২০১৭ সালে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে শতভাগ পাস করা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছিল মাত্র ১৪টি এবং একটি ছাত্রছাত্রীও পাস করেনি এমন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছিল ২ টি। এবার শতকরা পাস করা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৬০টি বেড়ে হয়েছে ৭৪টি। কিন্তু এবার কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে কোন শুণ্য পাস করা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নেই।
বহিস্কার: গত বছরে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের ছয়টি জেলার নকলের দায়ে বহিস্কার হয়েছিল ৯৮ জন। এবার এ সংখ্যা কমে দাঁড়িয়েছে ৭৪ জনে।
বিজ্ঞানে ছেলেরা আর মানবিক ও ব্যবসায় মেয়েরা এগিয়ে :
এ বছর কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের ৬ জেলায় এস এস সি পরীক্ষায় তিনটি বিভাগের মধ্যে দুটিতে এগিয়ে মেয়েরা আর একটিতে এগিয়ে রয়েছে ছেলেরা।
এর মধ্যে বিজ্ঞান বিভাগে মোট পরীক্ষা দিয়েছে ৫৪ হাজার ৮৭৯ জন। এর মধ্যে ছেলেরা ২৭ হাজার ৯৪১ জন আর মেয়েরা ২৬ হাজার ৯৩৮ জন। পাস করেছে ছেলেরা ২৬ হাজার ৪১১ জন আর মেয়েরা ২৫ হাজার ৩৮৪ জন। পাসের হার ছেলেরা ৯৪.৫২ ভাগ আর মেয়ের ৯৪.২৩ ভাগ।
মানবিক বিভাগে মোট পরীক্ষা দিয়েছে ৫১ হাজার ৭৭৭ জন । এর মধ্যে ছেলেরা ১১ হাজার ৫৬০ জন। আর মেয়েরা ৪০ হাজার ২১৭ জন। পাস করেছে ছেলেরা ৭ হাজার ৫৭৪ জন আর মেয়েরা ২৭ হাজার ৫৫৭ জন। পাসের হার ছেলেরা ৬৫.৫২ ভাগ আর মেয়েরা এখানে এগিয়ে তারা পেয়েছে ৬৮.৫২ ভাগ।
ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে মোট পরীক্ষা দিয়েছে ৭৬ হাজার ৫৫ জন। এর মধ্যে ছেলেরা ৪১ হাজার ৭৩৯ জন আর মেয়েরা ৩৪ হাজার ৩১৬ জন। আর পাস করেছে ছেলেরা ৩২ হাজার ৫২ জন আর মেয়েরা ২৭ হাজার ৯১৯ জন। পাসের শতকরা হার ছেলেরা ৭৬.৭৯ ভাগ আর মেয়েরা ৮১.৩৬ ভাগ।
সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টার অংশ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক :
কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক ড. মো. আছাদুজ্জামান বলেছেন, গত বছর পরীক্ষার ফলাফল খারাপ হওয়ায় এবার আমরা এস এস সি পরীক্ষাটিকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছি। যার ফলে আমরা সবার প্রচেষ্টায় এবার ভাল ফলাফল করতে সক্ষম হয়েছি। তিনি বলেন, এবার আমরা বোর্ডের অধিনে প্রতিটি জেলায় শিক্ষক- শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকদের সাথে ধারাবাহিক সচেতনতার প্রোগামসহ রেজাল্ট ভাল করার জন্য অসংখ্য প্রোগাম করেছি। আমরা এবার সবচেয়ে বেশী জোড় দিয়েছি, নির্বাচনী পরীক্ষায় ফেল করা শিক্ষার্থীরা যাতে ফরম ফিলাপ করতে না পারে। এটা আমরা অনেকাংশেই করতে সক্ষম হয়েছি বলেই এবার কুমিল্লা বোর্ডে ভালো ফলাফল হয়েছে।

মাসুদ আলম/ দৈনিক আমাদের কুমিল্লা