মঙ্গল্বার ২৫ †m‡Þ¤^i ২০১৮


নজরুলই চিরকালের কবি


আমাদের কুমিল্লা .কম :
28.08.2018

কুমিল্লায় জাতীয় কবির মৃত্যুবার্ষিকীতে আলোচকবৃন্দ

মাহফুজ নান্টু: সাম্যের কবি,দ্রোহের কবি নজরুল তার সাহিত্যকর্মে যে অন্যান্য নজির স্থাপন করেছেন,তাতে কালের বিচারে নজরুল চিরকালের কবি। তার লেখনিতে প্রেম ছিলো,ছিলো সাম্যের আবগাহন। আর সবচেয়ে বড় কথা নজরুলের পদচারণায় স্মৃতিধন্য এ কুমিল্লাকে ঋদ্ধ করেছেন। গতকাল জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ৪২তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে নজরুল পরিষদ আয়োজিত অনুষ্ঠানের আলোচনা সভায় আলোচকবৃন্দ এ কথা বলেন।
দিবসটি উপলক্ষে সোমবার কুমিল্লা শিল্পকলা একাডেমী প্রাঙ্গনে ‘চেতনায় নজরুল’ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।
সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা সদর আসনের সাংসদ ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আ.ক.ম বাহা উদ্দিন বাহার। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম। সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. আছাদুজ্জামান।

এদিকে সন্ধ্যায় আলোচনার আগে অনুষ্ঠানে দোয়া ও মোনাজাতের পর শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন নজরুল পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক অশোক বড়–য়া। আলোচনা সভায় আমন্ত্রিত অতিথির বক্তব্য উপস্থাপন করেন, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর আমীর আলী চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি এডভোকেট মো: রুস্তম আলী। বিষয়ভিত্তিক আলোচনা করেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড.আহমেদ মাওলা, বাংলা একাডেমির কর্মকর্তা লেখক ও প্রাবন্ধিক পিয়াস মজিদ, নজরুল গবেষক অধ্যাপক শ্যামা প্রসাদ ভট্টাচার্য।

এছাড়াও বক্তব্য রাখেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি পাপাড়ী বসু। আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, কবি নজরুল ছিলেন সাম্য ও মৈত্রের কবি। যৌবন কালের বেশীর ভাগ সময় কেটেছে এই কুমিল্লাতে। তাই বিপ্লবী কবি ছিলেন কুমিল্লার সারথী। সংকলনের সারথী কবি নজরুল ছিলেন বাংলার মানুষের মুক্তির সনদ। তিনি তাঁর লেখনিতে ধর্ম, বর্ণ, জাতি সব শ্রেণী পেশার মানুষের এক কাঁতারে নিয়ে ঐক্য হয়ে কাজ করার পাথেয় জুগিয়েছেন। স্বাধীনতার পর থেকে এখন পর্যন্ত কবি নজরুল ছিলেন প্রাসঙ্গিক নজরুল। তিনি ছিলেন বাঙ্গালীর মুক্তির নজরুল। কবিতা, সাহিত্য, গান, সংগীত, আবৃতিসহ সকল ক্ষেত্রেই কবি নজরুল তাঁর অবদান রেখে গেছেন। আলোচনা শেষে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিবৃন্দ। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট নজরুল গবেষক ড. আলী হোসেন চৌধুরী, অধ্যাপক শান্তিরঞ্জন ভৌমিক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তানভীর সালেহীন ইমন, নজরুল গবেষক আহমেদ কবিরসহ জেলা প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তা, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ, শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

এছাড়াও দিনভর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সাংস্কৃতিক সংগঠন পুস্পস্তবক অর্পণ করে। এতে প্রতিষ্ঠানের প্রধানসহ শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। পরে জেলা প্রশাসন, নজরুল ইন্সটিটিউট ও নজরুল পরিষদের আয়োজনে ধর্মসাগরের পাড়ে নজরুল ইন্সটিটিউট কেন্দ্র চিত্রাঙ্কন, নজরুল সঙ্গীত, হামদ, নাত ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। দিবসটি উপলক্ষে বিকেলে নজরুল ইন্সটিটিউট কেন্দ্র আলোচনা সভা, দোয়া মোনাজাত,কবিতা পাঠ ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়।