সোমবার ১৯ নভেম্বর ২০১৮


আওয়ামী লীগে নির্বাচনী আমেজ নিরব বিএনপি


আমাদের কুমিল্লা .কম :
06.11.2018

কুমিল্লা-৪ (দেবিদ্বার)

শাহীন আলম, দেবিদ্বার
কুমিল্লা-৪ (দেবিদ্বার) আসন। নির্বাচনী আমেজে পুরো উপজেলায় ছেঁয়ে গেছে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের ব্যানার-ফেস্টুন। চলছে গণসংযোগ। নির্বাচনী গণ সংযোগে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীরা সরব থাকলেও নিরবে রয়েছেন বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা ।
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মাহবুব রোমান চৌধুরী জানান, এ আসনটি ১টি পৌরসভা ও ১৫ ইউনিয়নের সমন্বয়ে গঠিত। এ আসনে মোট ভোটার রয়েছে ৩ লক্ষ ৯ হাজার ৯২৬। পুরুষ ভোটার রয়েছে ১ লক্ষ ৬০ হাজার ৭৬ এবং মহিলা ভোটার ১ লক্ষ ৪৯ হাজার ৮৫০। ১০৭ টি ভোট কেন্দ্র মোট কক্ষ রয়েছে ৫৬৭।
২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারির নির্বাচনে বর্তমান কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য এএফএম ফখরুল ইসলাম মুন্সীর পুত্র রাজী মোহাম্মদ ফখরুল স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মহাজোট মনোনীত প্রার্থী ইকবাল হোসেন রাজুকে ৪ হাজার ২৬৭ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে এমপি নির্বাচিত হন। এ আসনে রাজী ফখরুল ছাড়াও আওয়ামী লীগের আরও চার নেতা নৌকার মনোনয়ন পাওয়ার জন্য জোর তদবীর চালাচ্ছেন। ওই চার নেতা হলেন, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাবেক এমপি ও মন্ত্রী এবিএম গোলাম মোস্তফা, অধ্যক্ষ এম হুমায়ূন মাহমুদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রোশন আলী মাষ্টার ও কার্যকরী কমিটির সদস্য আবুল কালাম আজাদ।
এ আসনে আওয়ামী লীগ ছাড়াও বিএনপিরও রয়েছে একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থী। তারা প্রকাশ্যে না এলেও ভিতরে ভিতরে হাই কমান্ডে তদবীর করছেন। এলাকায় ব্যাপক গণসংযোগও চালাচ্ছেন কয়েক প্রার্থী। বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীরা হলো: সাবেক একাধিকবার সাংসদ ইঞ্জিনিয়ার মুঞ্জুরুল আহসান মুন্সী, কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আউয়াল খাঁন, এএফএম তারেক মুন্সী, বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান রহুল আমীন। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কেন্দ্রীয় নেতা জেএসডি’র সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতনও এ আসনে প্রার্থী হতে পারে বলে জানা গেছে।
এদিকে তৃণমূল নেতা-কর্মীরা জানান, নৌকার প্রার্থী যেই আসুক আমরা তাঁর জন্য কাজ করব। তবে একজন সৎ ও যোগ্য প্রার্থীকে নৌকার মনোনয়ন দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জয়নুল আবেদীন জানান, স্বাধীনতার পরে দেবিদ্বারে এতো উন্নয়ন হয়নি বর্তমান সাংসদ রাজী মোহাম্মদ ফখরুল যা করেছেন। তিনি রাস্তাঘাট, ব্রীজ-কালভার্ট, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বিদ্যুৎ, কৃষি, বেকার কর্মসংস্থান, দারিদ্র বিমোচনসহ এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। রাজী ফখরুল মনোনয়ন পেলে এ আসনে নৌকার বিজয় আসবে বলে আমি মনে করি।
রাজী মোহাম্মদ ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ একটি বড় দল, নৌকার প্রার্থী হওয়ার অধিকার সবার আছে। তবে এ আসনে একজন সৎ যোগ্য প্রার্থীকেই নৌকার মনোনয়ন দেওয়ার দাবি আমার।
মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক এমপি ও মন্ত্রী এবিএম গোলাম মোস্তফা বলেন, দেবিদ্বারে এখন অপরাজনীতির অপশাসন চলছে। মাদক সন্ত্রাসে ভরে গেছে দেবিদ্বার। আমি জনগণের সাথে মিশেছি জনগণের সুখ দুখে পাশে ছিলাম। আমি সাংসদ নির্বাচিত হলে উন্নয়নের রোল মডেল করব দেবিদ্বারকে।
অপরদিকে, দশম জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নেওয়ায় টানা দশ বছর বিএনপি এলাকার বাহিরে। একাদশ জাতীয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপির কিছু মনোনয়ন প্রত্যাশী মাঠে গণসংযোগ করছেন। কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আউয়াল খাঁন ও হংকং বিএনপি নেতা এএফএম তারেক মুন্সী এলাকায় গণ সংযোগ করছেন। তারা আগামী নির্বাচনে ধানের শীষকে এ আসনে বিজয়ী করতে দলের নেতা কর্মীদের নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। বিএনপির এ প্রার্থী বলেন, দলের নেতা কর্মীদের তৃণমূলে নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। মনোনয়ন পাবো কিনা এটা নিয়ে চিন্তা করি না। দল যাকে ভালো মনে করে তাকেই মনোনয়ন দিবেন এবং তার জন্যই মাঠে কাজ করব। তবে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে আওয়ামী লীগ সরকার অন্যায়ভাবে কারাগারে আটক রেখেছেন। তাঁর নি:শর্ত মুক্তি ছাড়া এদেশে কোন প্রহসনের নির্বাচন মেনে নিবে না জনগণ।
সাবেক সাংসদ মঞ্জুরুল আহসান মুন্সী বলেন, সবাই আমাকে এখনও নেতা হিসেবে মনে রেখেছেন। আমার দল আমার নেতৃত্বেই সুসংগঠিত রয়েছে। আমি এলাকায় আসলে নেতাকর্মীরা হামলা-মামলার শিকার হয়, তাই এলাকায় আসতে পারছি না।
এ আসনে জাতীয় পার্টির একক প্রার্থী কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইকবাল হোসেন রাজুও গণ সংযোগ করে যাচ্ছেন।