মঙ্গল্বার ২৬ gvP© ২০১৯
  • প্রচ্ছদ »sub lead 1 » কুমিল্লা জেএসসি পরীক্ষা বেড়েছে পাশের হার-কমেছে জিপিএ ৫ ৫ বছরের মধ্যে সর্বনিন্ম জিপিএ ৫


কুমিল্লা জেএসসি পরীক্ষা বেড়েছে পাশের হার-কমেছে জিপিএ ৫ ৫ বছরের মধ্যে সর্বনিন্ম জিপিএ ৫


আমাদের কুমিল্লা .কম :
25.12.2018


তৈয়বুর রহমান সোহেল
মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কুমিল্লায় এবার জেএসসি পরীক্ষায় গত ৫ বছরের মধ্যে জিপিএ ৫ প্রাপ্তির ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা এবার সর্ব নিন্ম। যদিও গত ৫ বছরের মধ্যে এবার সর্বাধিক সংখ্যক ছাত্রছাত্রী পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করেছে। আর পাশের হারের দিক থেকে গত দুই বছরের তুলনায় কিছুটা ভাল করলেও ২০১৪ ও ২০১৫ সালে পাশের হার ছিল এবারের চেয়ে অনেক বেশী। শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক প্রকাশিত ফলাফল বিশ্লেষণ করে এ তথ্য পাওয়া গেছে।
কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক প্রকাশিত ফলাফল বিশ্লেষন করে দেখা গেছে, ২০১৪ সালে শিক্ষা বোর্ডের অধীন ৬টি জেলা থেকে মোট পরীক্ষা দিয়েছিল ২,২৩,৩৯৮ জন। পাশ করেছে ১,১৮,৫৩২ জন। পাশের শতকরা হার ৯৩.৭৫ ভাগ। আর জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৭,২৬৪ জন। সকল বিষয়ে পাশ করেছিল ৫২৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ২০১৫ সালে মোট পরীক্ষা দিয়েছিল ২,৪১,৫৪১ জন। পাশ করেছে ২,২৩,৪৫৩ জন। পাশের শতকরা হার ৯২.৫১ ভাগ। আর জিপিএ ৫ পেয়েছে ২০,৭৪৭ জন। সকল বিষয়ে পাশ করেছিল ৪৪৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ২০১৬ সালে মোট পরীক্ষা দিয়েছিল ২,৫৮,১৬৮ জন। পাশ করেছে ২,৩১,৫২৮ জন। পাশের শতকরা হার ৮৯.৬৮ ভাগ। আর জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৯,১৮৬ জন। সকল বিষয়ে পাশ করেছিল ৩৪৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ২০১৭ সালে মোট পরীক্ষা দিয়েছিল ২,৬১,৭৫৩ জন। পাশ করেছে ১,৬৪,৪৫৬ জন। পাশের শতকরা হার ৬২.৮৩ ভাগ। আর জিপিএ ৫ পেয়েছে ৮,৮৭৫ জন। সকল বিষয়ে পাশ করেছিল ৬১ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। চলতি বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালে মোট পরীক্ষা দিয়েছিল ২,৬১,৭৫৩ জন। পাশ করেছে ২,৫৪,৭২৫ জন। পাশের শতকরা হার ৮৬.৯৯ ভাগ। আর জিপিএ ৫ পেয়েছে ৩,৭৪২ জন। সকল বিষয়ে পাশ করেছে ১৫৮ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।
বোর্ড সূত্র জানায় গত ৫ বছরের মধ্যে এবারই সর্বোচ্চ পরীক্ষার্থী অসদোপায় অবলম্বনের দায়ে বহিস্কৃত হয়েছে। এর মধ্যে ২০১৪ সালে বহিস্কৃত হয়েছিল ৪২ জন, ২০১৫ সালে ৪৭ জন, ২০১৬ সালে ৩২ জন , ২০১৭ সালে ৪৯ জন এবং এবার অর্থাৎ ২০১৮ সালে বহিস্কৃত হয়েছে ৭১ জন পরীক্ষার্থী।
গত ৫ বছরের তুলনায় এবার কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে কেন জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমে গেল জানতে চাইলে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড সচিব প্রফেসর মো. আবদুস সালাম জানান, এ বছর জিপিএ ৫ প্রাপ্তির ক্ষেত্রে চতুর্থ বিষয়ের নম্বর যোগ না হওয়ায় জিপিএ ৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা কমে গেছে। এখানে অন্য কোন কারণ নেই বলে তিনি জানান। কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ড বর্তমানে ধারাবাহিক ভাবে রেজাল্ট ভাল করছে বলে সচিব বলেন।