বুধবার ১ GwcÖj ২০২০


হাজী বাহারের হ্যাট্রিক জয়


আমাদের কুমিল্লা .কম :
31.12.2018

নেতাকর্মীদের প্রত্যাশা মন্ত্রী

মাহফুজ নান্টু।।রবিবারের সন্ধ্যায় কুমিল্লাজুড়ে বয়ে চলে আনন্দের ¯্রােত। হাতে হাতে মিষ্টির প্যাকেট। রসগোল্লার রসে মুখ ভরে উঠে সাধারণ ভোটার ও দলীয় নেতাকর্মীদের। চারিদিকে খুশির ঝিলিক।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কুুুমিল্লা -৬ সদর আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও দুইবারের সাংসদ বীরমুক্তিযোদ্ধা হাজী আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার বিপুল সংখ্যাক ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। হাজী বাহার নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন দুই লাখ ৯৬হাজার৩০০ ভোট।
অপরদিকে হাজী বাহারের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী হাজী আমিন উর রশিদ ইয়াছিন ধানের শীষ প্রতীকে পেয়েছেন ১৮হাজার ৫৩৭ ভোট।
গতকাল সন্ধ্যায় কুমিল্লা জেলা প্রশাসক ও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা মোঃ আবুল ফজল মীর নির্বাচন ফলাফল কেন্দ্র থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হাজী বাহারকে বেসরকারিভাবে বিজয়ী ঘোষণা করেন।
এদিকে দলীয় নেতা হাজী বাহারের জয়ী হওয়ার পর মহানগরীর প্রাণকেন্দ্র কান্দিরপাড়ে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মিলে মিশে বিশাল আনন্দ মিছিল বের করে।
এমন আনন্দঘন মুহূর্তটি প্রিয় নেতাকর্মীদের সাথে ভাগাভাগি করতে মাথায় বিজয়ের মুকুট আর মুখে তৃপ্তি ও কৃতজ্ঞতার হাসি নিয়ে টাউনহলে প্রবেশ করেন মহানগর আওয়ামী লীগের অভিভাবক হাজী বাহার।
প্রিয় নেতার হ্যাট্রিক জয়ে পুরো টাউনহল জুড়ে চলে রসগোল্লা বিতরণ। দলীয় নেতাকর্মীদের আশা প্রিয় নেতা হাজী বাহারকে এবার মন্ত্রী করবেন আ’ লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
মন্ত্রী হওয়ার মত যোগ্য ব্যক্তিত্ব হাজী বাহার বওল মন্তব্য করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরফানুল হক রিফাতের। এছাড়াও রাজনৈতিক বিশ্লেষকরাও মনে করছেন একাদশ সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করলে মন্ত্রী পরিষদে জায়গা হতে পারে হাজী বাহারের৷ সে জন্য যথেষ্ঠ কারণ রয়েছে বলেও তারা মন্তব্য করেন।


সাধারণ মানুষদের ভালোবাসার মাধ্যমেই বাবার পথ অনুসরণ করে এগিয়ে যাচ্ছেন হাজী বাহারের জেষ্ঠ্য কন্যা তাহসিন বাহার সূচনা। যিনি ইতিমধ্যে রাজসিকভাবে জানান দিয়েছেন আগামী দিনে ইতিহাস ঐতিহ্যর ধারক বাহক কুমিল্লার প্রতিনিধিত্বে আসার।
তৃতীয়বারের মত হাজী বাহারের এমন বিজয়ে বড় ভূমিকা রেখেছেন মেয়ে তাহসিন বাহার সূচনাও। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে পুরো সদর আসন চষে বেরিয়েছেন। শুধু বাবার জন্য নয় বসবাস উপযোগী ক্ষুধা দারিদ্র্যমুক্ত তথ্য প্রযুক্তিময় সমৃদ্ধ জনপদ গড়তে নৌকা প্রতীকে ভোট চেয়েছেন সূচনা। নিজের গ্রহণযোগ্যতাকে কাজে লাগিয়ে কুমিল্লার রাজনৈতিক অঙ্গনটাকে শান দিয়ে বাবার রাজনৈতিক পথটাকে প্রসারিত করতে বেশ পরিশ্রম করেছেন। ভবিষ্যতেও সাধারণ মানুষদের সেবায় এমন শ্রম দিতে চান।
স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন জাগ্রত মানবিকতার সম্পাদক ও আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সংসদ কমান্ড কুমিল্লা মহানগর এর আহবায়ক তাহসিন বাহার সূচনা বাবার বিজয়ের অনুভুতি জানাতে গিয়ে বলেন, আমার বাবার প্রতি নৌকা প্রতীকের প্রতি সর্বোপরি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি বিশ্বাস রেখেছেন বলে আমি কৃতজ্ঞচিত্তে কুমিল্লাবসীর প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি৷ আপনারা কখনো ভুল প্রতিনিধিকে পছন্দ করবেন না। কারণ আপনারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত। এই মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে আপনারা কুমিল্লাকে এগিয়ে নিয়ে যাবেন। এ জন্য আমার বাবা বীরমুক্তিযোদ্ধা হাজী বাহার বিশ্বাস করেন কুমিল্লা এগিয়ে গেলে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।
এদিকে তৃতীয়বারের মত হাজী বাহারের বিজয়ে সদর আসনের প্রত্যন্ত পল্লীতেও গভীর রাত পর্যন্ত চলে আনন্দ মিছিল। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা আনন্দ মিছিলের নেতৃত্ব দেন। সদর আসনের ৪ নং আমড়াতলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাজী মোজাম্মেল হক প্রিয় নেতার বিজয়ের অনুভুতি ব্যক্ত করে বলেন, এ জনপদের জনগণের প্রতি আমার নেতা হাজী বাহারের যে কমিটমেন্ট তা সত্যি অসাধারণ। এর প্রমাণ তৃতীয়বারের মত সাংসদ নির্বাচিত হওয়া। তিনিও আশাবাদ ব্যক্ত

করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী হাজী বাহারকে এবার মন্ত্রী করবেন।এদিকে বিজয়ের আনন্দ প্রকাশ করতে গিয়ে হাজী বাহার বলেন,জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে প্রতিজ্ঞা করেছিলাম, আমাদের কুমিল্লার আসন তাকে উপহার দিব। আমার প্রিয় কুমিল্লাবাসী আমার প্রতিজ্ঞা রক্ষা করেছে। আমাকে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করার জন্যে আমার সকল নেতা কর্মীসহ কুমিল্লার সর্বস্তরের জনগণকে জানাই অসংখ্য ধন্যবাদ। আমি বিশ্বাস করি এ বিজয় শুধু আমার একার না, এই বিজয় সারা কুমিল্লাবাসীর বিজয়। আপনারা সকলে সুসংগঠিত থাকার কারণেই এটা সম্ভব হয়েছে। যতদিন আপনারা সবাই ঐক্যবদ্ধ থাকবেন, এ কুমিল্লায় কোন অপশক্তির সাধ্য নেই বঙ্গবন্ধুর নৌকা মার্কাকে রুখবে।
বিজয়ের আনন্দ আরও হাজার গুণ বেড়ে যায় আমাদের মমতাময়ী নেত্রী শেখ হাসিনার সাফল্যে। সারা দেশের মানুষ তাদের রায় উন্নয়নের পক্ষে দিয়েছে, শেখ হাসিনার পক্ষে দিয়েছে। তিনিই আমাদের একমাত্র আশার বাতিঘর। পরিশেষে একটি কথা বলতে চাই, যতদিন শেখ হাসিনার হাতে দেশ, পথ হারাবেনা বাংলাদেশ।