মঙ্গল্বার ২৬ gvP© ২০১৯


কুমিল্লায় ১৬ লক্ষাধিক শিক্ষার্থীর হাতে নতুন বই


আমাদের কুমিল্লা .কম :
02.01.2019


মাহফুজ নান্টু।।

কুয়াশা ঘেরা সকালে নতুন বইয়ের ঘ্রাণে নতুন একটি শিক্ষাবর্ষ শুরু করলো কুমিল্লা জেলার প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের ১৬ লক্ষাধিক শিক্ষার্থী। উৎসবমুখর পরিবেশে জেলার সব ক’টি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরণ করা হয়। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি,প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা উপস্থিত থেকে জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বই উৎসব উদ্বোধন করেন।
সকাল সাড়ে ন’ টায় ঐতিহ্যবাহী কুমিল্লা জিলা স্কুলে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসব শুরু হয়। কুমিল্লা সদর আসনের সদ্য নির্বাচিত সাংসদ বীরমুক্তিযোদ্ধা হাজী আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বই উৎসব উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক রাশেদা আক্তার। তারপরেই নগরীর আরেক ঐতিহ্যবাহী বিদ্যালয় নবাব ফয়জুন্নেছা বালিকা বিদ্যালয়ে বই উৎসব উদ্বোধন করেন সাংসদ হাজী বাহার। স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা রোখসানা ফেরদৌস মজুমদারের সভাপতিত্বে বই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। অন্য স্কুলগুলোর চেয়ে নবাব ফয়জুন্নেছো স্কুলে বই উৎসবকে ঘিরে শিক্ষার্থীদের মনোমুগ্ধকর ডিসপ্লে আগত অতিথিসহ উপস্থিত সকলকে বেশ আনন্দ দেয়।
জিলা ও ফয়জুন্নেছা স্কুলে বই উৎসবে প্রধান অতিথি হাজী বাহার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় বছরের প্রথম দিন সারা দেশে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেয়ার যে প্রথা গত কয়েক বছর ধরে অব্যাহত রেখেছেন তা দেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন এনেছে। আগামী প্রজন্ম এমন পরিবর্তনের সুফল ভোগ করবে।
জেলার কালেক্টরেট স্কুল ও কলেজে, চক বাজার আলিয়া মাদ্রাসা ও বিবির বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের নতুন বছরে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন পাঠ্যপুস্তক তুলে দিয়ে বই উৎসবের উদ্বোধন করেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোঃ আবুল ফজল মীর।
কালেক্টটরেট স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ নার্গিস আক্তার জানান, বছরের প্রথমদিন নতুন বই হাতে পাওয়া মানে শিক্ষার্থীরা তাদের শিক্ষাবর্ষের পুরু সময়টা কাজে লাগাতে পারে। নতুন বছরে নতুন বই উৎসবটার ধারাবাহিকতা বজায় থাকুক এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
নগরীর পুলিশ লাইন স্কুলে বই উৎসব উদ্বোধন করেন জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রধান শিক্ষক মোঃ তোফাজ্জল হোসেন।
এদিকে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড মডেল কলেজে বই উৎসব উদ্বোধন করেন কুমিল্লা আঞ্চলিক শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর রুহুল আমিন ভূইয়া। কলেজের অধ্যক্ষ ড.একেএম এমদাদুল হক।
নগরীর রানীরবাজার সড়কে অবস্থিত ফরিদা বিদ্যায়তনে বই উৎসব উদ্বোধন করেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর রতন কুমার সাহা। অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো:হানিফ মজুমদারের সভাপতিত্বে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।
নগরীর বাদুরতলাস্থ ওয়াই ডব্লিউসিএ স্কুলের প্রাইমারী শাখার প্রধান শিক্ষিকা কলি চৌধুরী কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরণ করেন। এ সময় নতুন বই পেয়ে উচ্ছাস্বিত হয়ে উঠে ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা।
নগরী থেকে প্রত্যন্ত পল্লীতে নতুন বই হাতে পেয়ে দলে দলে বাড়ি ফিরতে দেখা যায় কোমলমতি শিক্ষার্থীদের। কুয়াশাভেজা ক্ষেতের আইল ধরে কেউবা পাকা সড়ক দিয়ে নতুন বই নিয়ে বাড়ি ফিরে। পল্লীর অভিভাবকদের দেখা যায়, সন্তানদের নতুন বইকে ছেঁড়াফাটা থেকে রক্ষা করতে বাড়ির উঠোনে বইয়ের উপর নতুন মলাট দিয়ে বেঁধে দিতে ব্যতিব্যস্ত সময় পার করছেন। হাতে হাতে নতুন বই। নতুন মোড়কে নতুন বইয়ের ঘ্রাণ ছড়িয়ে পরে স্কুল প্রাঙ্গণ থেকে বাড়ির পড়ার টেবিলে। মনোমুগ্ধকর ডিজাইন আর আকর্ষণীয় ডিজাইনের মলাট উলটনো নতুন বইয়ের ঘ্রাণ উৎসবের আমেজকে আরো বাড়িয়ে দেয়।
বছরের প্রথম দিন নতুন পাঠ্যপুস্তক বিতরণ কার্যক্রম বিষয়ে জেলার মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আবদুল মজিদ ও জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আনোয়ার হোসেন সিদ্দিকী জানান, বছরের শুরুতে যেন শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দেয়া যায় সে লক্ষ্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় সচেষ্ট ছিলো বলে জেলার ১৬ লক্ষাধিক প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন পাঠ্যপুস্তক তুলে দিতে পেরেছি।