শুক্রবার ২৬ GwcÖj ২০১৯


মাঠ গোছাচ্ছে নতুনরা পুরাতনদের ভরসা আগের ইমেজ


আমাদের কুমিল্লা .কম :
20.01.2019

দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ নির্বাচন

শাহীন আলম, দেবিদ্বার।
একাদশ জাতীয় নির্বাচনের আমেজের রেশ কাটতে না কাটতেই পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিতে মাঠে নামছে একাধিক নতুন ও পুরাতন মুখ। ওই নির্বাচনে পুরোদমে মাঠ গোছানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে নতুন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। অন্যদিকে আগের ইমেজের ওপর ভরসা করছে পুরাতন প্রার্থীরা।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকসহ বিভিন্নভাবে প্রচারণা চালাচ্ছেন সমর্থিত প্রার্থীর নেতা-কর্মীরা। নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহী একাধিক প্রার্থী জানান, আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল ও দলীয় সিদ্ধান্ত পেলে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নেব। তবে বিএনপি থেকে নতুন কে প্রার্থী হচ্ছেন তা এখনও জানা যায়নি।
চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করার প্রচারণা চালাচ্ছেন বর্তমান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান একেএম সফিকুল আলম ভিপি কামাল, ইউসুফপুর ইউপির চেয়ারম্যান ও সাবেক উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. মোস্তফা কামাল চৌধুরী, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা প্রভাষক মো. সাইফুল ইসলাম শামীম।
ভাইস চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় রয়েছে সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট নাজমা বেগম, পৌর আ.লীগ নেতা আবদুল হক খোকন, দেবিদ্বার প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. ইকবাল হোসেন রুবেল, বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সুফিয়া বেগম, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী মোসা. নাজমা বেগম ও যুব মহিলা লীগ নেত্রী শেখ ফরিদা ডলি।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জয়নাল আবেদীন জানান, উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে একজন যোগ্য ও গ্রহণযোগ্য প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন পাবেন। এছাড়াও দলের নেতাদের নিয়ে বৈঠক করব, বৈঠকে যে সিদ্ধান্তে হবে প্রার্থী হিসেবে তাকে চূড়ান্ত করা হবে।
বিএনপির উপজেলা সাধারণ সম্পাদক মো. গিয়াস উদ্দিন জানান, দলীয় সরকারের অধীনে বিএনপি’র নির্বাচনে যাওয়া উচিত হবে না। এখনও কোন প্রার্থী চূড়ান্ত হয়নি বলে তিনি আরও জানান, নির্বাচনী কাঠোমো গ্রহণযোগ্য ও নিরপেক্ষ হলে বিএনপি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যাবে।
উল্লেখ্য, মার্চের প্রথম সপ্তাহ থেকে ধাপে ধাপে সারা দেশে পঞ্চম উপজেলা পরিষদের নির্বাচন শুরু হবে। বর্তমানে দেশের ৪৯২টি উপজেলা পরিষদ রয়েছে। আইন অনুযায়ী, কোনো উপজেলা পরিষদের মেয়াদ পূর্তির আগের ছয় মাসের মধ্যে নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।