বৃহস্পতিবার ২১ নভেম্বর ২০১৯


কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু


আমাদের কুমিল্লা .কম :
21.01.2019

অবৈধ দখলদারীদের বিরুদ্ধে সিটি কর্পোরেশন জিরো টলারেন্স দেখাবে-মেয়র সাক্কু

মাহফুজ নান্টু ।।
নগরীর জলাবদ্ধতা দূর ও যানজট নিরসনসহ সংকীর্ণ সড়কগুলোকে প্রশস্থ করনের লক্ষ্যে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু করা হয়। রোববার সকাল ১০ থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত এ উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা অনপম বড়ুয়া জানান, নগরীর প্রধান সড়কের পাশে এবং সিটি কর্পোরেশনের অনুমতি ছাড়া যারা দখলদারিত্ব বজায় রেখে নগরবাসীর চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি করছে সে সব অবৈধ স্থাপনার বিরুদ্ধে সিটি কর্পোরেশনের নিয়মিত নোটিশ প্রদান করা হচ্ছে। যারা নোটিস মোতাবেক অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নিচ্ছে তা তাদের জন্য ভালো। আর যারা নোটিশ অমান্য করেছে তাদের স্থাপনাগুলো জনস্বার্থে বোলডোজার দিয়ে গুড়িয়ে দেয়া হচ্ছে।

সিটি কর্পোরেশনের সচিব হেলাল উদ্দিন জানান, গত ১৩ জানুয়ারি রবিবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে সিদ্ধান্ত হয় হয়, যে নগরবাসীর চলাচল,জীবনযাত্রার মানোন্নয়নসহ নগরীর অন্যতম সমস্যা যানজট- জলজট নিরসনে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযান শুরু করা হবে।সে লক্ষ্য রোববার নগরীর ২ নং ওয়ার্ডের খালপাড়ের সড়কটি প্রশস্থকরণ এবং জলাবদ্ধতা দূরীকরনের উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়।
কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মনিরুল হক সাক্কু বলেন, নগরী থেকে অবৈধ দখলদারীদের উচ্ছেদ করা হবে। এই ব্যাপারে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন জিরো টলারেন্স দেখাবে। কুমিল্লা নগরবাসীর স্বার্থে যে কোন কাজ করতে আমি পিছপা হব না।
তিনি আরো বলেন, সামান্য বৃষ্টিতে কুমিল্লা মহানগীর রেইসকোর্স এলাকার খালপাড়ের সড়কটি পানিতে ডুবে যায়। ওই এলাকার স্থানীয় এবং ভাড়াটে বাসিন্দারা চরম কষ্টে হাটুপানি মাড়িয়ে চলাচল করতে হয় বলে এবার বছরের শুরুতে এই সড়কটি সংস্কারের কাজ শুরু করেছি বললেন সিটি মেয়র মোঃমনিরুল হক সাক্কু। তবে সড়ক সংস্কার করতে এসে দেখি মূল সড়কটি অবৈধ স্থাপনার কারনে সংকীর্ণ হয়ে আছে।এতে যেমন চলাচল করতে সমস্যা হয় তেমনি সামান্য বৃষ্টিতে সড়কটি পানির নীচে তলিয়ে যায়। তাই আজ আমি নিজে উপস্থিত থেকে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করি এবং সড়কের কাজের মানোন্নয়ন দেখি।
দীর্ঘদিন পর কুমিল্লা নগরীর রেইসকোর্স খালপাড়ের সড়কটি সংস্কার শুরু করায় সিটি কাউন্সিলর সরকার মাহমুদ জাবেদ এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর কাউছারা বেগম সুমি এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে মেয়র মনিরুল হক সাক্কু সহ সিটি কর্পোরেশনের কর্মকতাদের সাধুবাদ জানান। এলাকাবাসীও উচ্ছেদ অভিযান স্বাগত জানিয়েছেন।