শুক্রবার ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯


ঘুমন্ত শ্রমিকের ওপর ট্রাক, ১৩ শ্রমিক নিহত


আমাদের কুমিল্লা .কম :
26.01.2019

পৃথক ২টি তদন্ত কমিটি গঠন


স্টাফ রিপোর্টার।।
কুমিল্লায় ইটভাটা শ্রমিকদের শেডে কয়লার ট্রাক উল্টে ১৩ ঘুমন্ত শ্রমিক নির্মমভাবে নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও কমপক্ষে ৩ জন। শুক্রবার ভোরে জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ঘোলপাশা ইউনিয়নের নারায়ণপুর এলাকায় কাজী এ- কোং নামক একটি ব্রিকফিল্ডে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর ট্রাকের চালক-হেলপার ও ব্রিকফিল্ডের পরিচালক পালিয়ে যায়। এ ঘটনার তদন্তের জন্য পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২টি পৃথক তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।
স্থানীয়রা জানায়, চট্টগ্রাম থেকে কয়লা ভর্তি ট্রাকটি শুক্রবার ভোর রাতে ওই ব্রিক ফিল্ডে আসার পর হঠাৎ করে ট্রাকটি উল্টে শ্রমিকদের থাকার ঘরটিকে চাপা দেয়। এসময় ঘুমিয়ে থাকা শ্রমিকদের মধ্যে ঘটনাস্থলে ১২ জন, হাসপাতালে নেয়ার পর ১জনসহ ১৩ জন ইটভাটা শ্রমিক নিহত হন। আহত হয়েছেন আরও কমপক্ষে ৩জন। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহত ও নিহতদের উদ্ধার করে। নিহত শ্রমিকরা হচ্ছেন- নীলফামারী জেলার জলঢাকা উপজেলার নিজপাড়া গ্রামের সুরেশ চন্দ্র রায়ের ছেলে রঞ্জিত চন্দ্র রায় (৩০), তার ভাই তরুন চন্দ্র রায় (২৫), একই গ্রামের জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে মোঃ সেলিম (২৮), অমল চন্দ্র রায়ের ছেলে দিপু চন্দ্র রায় (১৯), কিশোর চন্দ্র রায়ের ছেলে শংকর চন্দ্র রায় (২১), রাম প্রসাদের ছেলে বিপ্লব (১৯), কামিক্ষার ছেলে অজিত রায় (২০), শিমুল বাড়ী গ্রামের মনোরঞ্জন চন্দ্র রায় (১৯), একই গ্রামের খোকা চন্দ্র রায়ের ছেলে মৃনাল চন্দ্র রায় (২১), পাঠানপাড়া গ্রামের নুর আলমের ছেলে মোরসালিন (১৮), একই গ্রামের ফজলুল করিমের ছেলে শামসু (১৮), রাজবাড়ী গ্রামের খোকা চন্দ্র রায়ের ছেলে বিকাশ চন্দ্র রায় (২৮) ও ধলু চন্দ্র রায়ের ছেলে কনেক চন্দ্র রায় (২৫)। কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন, চৌদ্দগ্রাম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুস সোবহান ভূঁইয়া হাসান, পৌর মেয়র মিজানুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শেখ শহিদুল ইসলাম, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল্লাহ আল মাহফুজ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। জেলা প্রশাসক মো. আবুল ফজল মীর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে নগদ ২০ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা দেন। এদিকে এ ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করে নিহতদের শোকার্ত পরিবারগুলোর প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন স্থানীয় এমপি ও সাবেক রেলপথমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক মুজিব। এ ঘটনায় পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা ও পুলিশ প্রশাসন। জেলা প্রশাসন কর্তৃক অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কাইজার মোহাম্মদ ফারাবীকে আহবায়ক করে ৪ সদস্যের এবং পুলিশ প্রশাসন কর্তৃক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (দক্ষিণ) আবদুল্লাহ আল-মামুনকে আহবায়ক করে ৩ সদস্যের একটিসহ পৃথক ২টি কমিটি গঠন করা হয়েছে। চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল্লাহ আল মাহফুজ জানান, দুপুরে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে নিহতদের ময়নাতদন্তের পর তাদের মরদেহ তাদের গ্রামের বাড়ির উদ্দেশ্যে প্রেরণ করা হয়েছে। ট্রাকের চালক ও হেলপার পলাতক রয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।