রবিবার ৮ ডিসেম্বর ২০১৯


নাঙ্গলকোট-লাকসাম সড়কে তিন দিন ধরে সিএনজি অটো রিকশা চলাচল বন্ধ


আমাদের কুমিল্লা .কম :
09.04.2019

নাঙ্গলকোট প্রতিনিধি-
নাঙ্গলকোট-লাকসাম দু’উপজেলার সিএনজি স্ট্যান্ডে জিপির অতিরিক্ত টাকা দাবি ও বাস সার্ভিস চলাচল নিয়ে দু‘ উপজেলার শ্রমিক সংগঠনের দ্বন্দ্বে গত শনিবার থেকে গতকাল সোমবার পর্যন্ত তিনদিন ধরে সিএনজিচালিত অটোরিক্সা চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। ফলে যাত্রীদের হয়রানিসহ দ্বিগুণ টাকা গুণতে হচ্ছে । এনিয়ে গত তিনদিন ধরে শ্রমিকদের মধ্যে দফায়-দফায় সংঘর্ষে অন্তত ১০জন শ্রমিক আহত হয়। আহতরা হলেন, সিএনজি চালক আব্দুল মমিন, বিল্লাল হোসেন, মঞ্জুর আলম, হেলাল, ফরিদ ও হিরন।
এদিকে, নাঙ্গলকোট সিএনজি অটোরিকশা মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ নেতাদের দাবি নাঙ্গলকোট থেকে কুমিল¬া পর্যন্ত কুমিল্ল¬া সুপার সার্ভিস বাস পরিবহন চলাচলকে কেন্দ্র করে লাকসাম সিএনজি স্ট্যান্ডের শ্রমিকরা সিএনজি চলাচল বন্ধ করে দেয়।
অপরদিকে লাকসাম সিএনজি অটোরিকশা মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ নেতাদের দাবি নাঙ্গলকোটে সিএনজি স্ট্যান্ডে ৩৫ টাকা জিপির বদলে ১শ’ টাকা দাবি করে। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে গত শুক্রবার রাতে নাঙ্গলকোট সিএনজি অটোরিকশা মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের নেতারা লাকসামের কয়েকজন সিএনজি চালককে মারধর করে।
লাকসাম থেকে সিএনজি যোগে আসা যাত্রী নাঙ্গলকোট উপজেলার জোড্ডা গ্রামের সোনিয়া ও রুবি, কামাল, সোহাগ জানান, লাকসাম থেকে নাঙ্গলকোটে আসতে আমাদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। লাকসাম থেকে সিএনজি যোগে লাকসামের সীমানা শাহপুর পর্যন্ত আসতে হয়। আবার নাঙ্গলকোটের সীমানা টুয়া থেকে নাঙ্গলকোটের সিএনজি যোগে নাঙ্গলকোটে আসতে হয়। এতে ভাড়াও গুণতে হচ্ছে দ্বিগুণ ।
লাকসামের সিএনজি চালক আবদুল মমিন জানান, গত শুক্রবার সন্ধ্যায় আমরা নাঙ্গলকোট সিএনজি স্ট্যান্ডে গেলে নাঙ্গলকোট সিএনজি স্ট্যান্ডের নেতারা প্রতিদিন জিপির ৩৫টাকার স্থলে ১শ টাকা দাবি করে বহিরাগতদের দিয়ে আমাদেরকে মারধর করে। তারা আমাদের বলেন, ১শ টাকা দিলে সিএনজি চালাতে পারবে না হয় সিএনজি চালাতে পারবে না।
নাঙ্গলকোট উপজেলার টুয়া গ্রামের সিএনজি চালক মোঃ হিরন জানান, গতকাল সোমবার সকালে লাকসামের শাহাপুর এলাকায় সিএনজি নিয়ে গেলে লাকসামের সিএনজি ড্রাইভারসহ বহিরাগতরা আমাকে ও আমার বাবা ফরিদকে মারধর করে।
নাঙ্গলকোট সিএনজি অটোরিকশা মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, নাঙ্গলকোট থেকে কুমিল¬া সুপার সার্ভিস বাস পরিবহন চলাচলের কারণে লাকসাম সিএনজি স্ট্যান্ডের কেরানি জসীম ও চালকরা লাকসামগামী সকল সিএনজি চলাচল বন্ধ করে দেয়। এবং তারা লাকসাম উপজেলার আজগরা ইউপির শাহপুর পর্যন্ত সিএনজি চলাচল করান। ৩৫টাকা জিপির বদলে ১শ’ টাকার বিষয়ে তিনি বলেন, এটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। এ স্ট্যান্ডে কোনো ধরণের চাঁদা নেওয়া হয় না। আমরা দু‘উপজেলার শ্রমিক নেতারা বসে বিষয়টি মিমাংসা করার চেষ্টা করছি।
লাকসাম সিএনজি স্ট্যান্ডের সিএনজি অটোরিকশা মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সভাপতি আলমগীরের মুঠো ফোনে কল দিলে সে জানান, আমরা বিষয়টি সমাধা করার চেষ্টা করছি।
লাকসাম সিএনজি স্ট্যান্ডের কেরানি পৌর সদর গাজিমুড়া গ্রামের মৃত. আব্দুল জাব্বারের ছেলে জসীম বলেন, নাঙ্গলকোটে সিএনজি স্ট্যান্ডে ৩৫ টাকা জিপির বদলে ১শ’ টাকা দাবি করে। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে গত শুক্রবার রাতে লাকসামের কয়েকজন সিএনজি চালককে মারধর করে। এ নিয়ে সিএনজি চলাচল বন্ধ রয়েছে।
নাঙ্গলকোট থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, কেউ থানায় অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।