শুক্রবার ১৫ নভেম্বর ২০১৯
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » কনস্টেবল হাসানের চেষ্টায় প্রাণে বাঁচলো ট্রাক চালক-হেলপার !


কনস্টেবল হাসানের চেষ্টায় প্রাণে বাঁচলো ট্রাক চালক-হেলপার !


আমাদের কুমিল্লা .কম :
10.07.2019

মাহফুুজ নান্টু।।

সন্ধ্যা হলেই সুনসান নিরবতা শুরু হয় কুমিল্লা- নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কে । মাঝে মাঝে দু একটা যাত্রীবাহী বাস-পিক আপ ভ্যান কিংবা মালবাহী ট্রাক সাঁই করে ছুটে চলে। গত ৭ জুলাই সোমবার রাত সাড়ে ৮টা। সড়কটির লালমাই উপজেলার জয়নগর চৌমুহনী এলাকায় হঠাৎ বিকট শব্দ হয়। কেউ একজন ফোনে টহল পুলিশকে জানায়, জয়নগর চৌমুহনী এলাকায় একটি যাত্রীবাহী বাস ও একটি বালুবাহী ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। মোবাইল ফোনে খবরটি শুনেই ঘটনাস্থলে হাজির হয় লালমাই থানার পুলিশের একটি টহল দল। ট্রাক ও বাসের মুখোমুখি ২০/২২ জন বাসযাত্রী আহত হয়। বাসের মধ্যে আটকে থাকা আহত যাত্রীদের বের করে স্থানীয় হাসপাতালে পাঠায় টহল দলের পুলিশ সদস্যরা। এবার নজর পড়ে সংঘর্ষে ধুমড়ে মুচড়ে যাওয়া ট্রাকের দিকে। ট্রাকের চালক-হেলপার স্টেয়ারিং ও সিটের মাঝে আটকে আছে। ব্যাথার যন্ত্রণায় ছটফট করছেন। এ দৃশ্য দেখেই পুলিশের টহল দলের কনস্টেবল হাসান এগিয়ে যায়। কাছে গিয়ে দেখে ট্রাকের ভেতর চালক ও হেলপার সিট ও স্টিয়ারিংয়ের মাঝে আটকে আছে। দু’জনের পা ভেঙ্গে রক্তাত্ব হয়ে আছে। চেষ্টা করেও চালক ও হেলপার ট্রাকের ভেতর থেকে বের হতে পারছে না। এ দৃশ্য দেখে কনস্টেবল হাসান স্থানীয়দের সাহায্য নিয়ে ধৈয্য সহকারে আহত ট্রাক চালক ও হেলপারকে বের করে আনে। তাদের দ্রুত নিয়ে যান কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। পরে দায়িত্বরত চিকিৎসক আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকায় পাঠানোর পরামর্শ দেন। পরে পুলিশের তত্ত্ব¡াবধানে আহত ট্রাক চালক ও হেলপারকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়।

খবর নিয়ে জানা যায় সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ট্রাক চালক নাঙ্গলকোট উপজেলার দৌলখাড় ইউনিয়নের মুগদাপাড়ার মো:নুরুল ইসলামের ছেলে মো:আবদুর রহিম। হেলপারের পরিচয় জানা যায়নি। বালুবাহী ট্রাক ও একুশে পরিবহনের যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত বাসযাত্রী আনোয়ার হোসেন জানান, কনস্টেবল হাসানের চেষ্টায় ট্রাকের সামনের অংশ ধুমড়ে মুচড়ে যাওয়ায় ট্রাকের স্টেয়ারিং ও সিটের মাঝে আটকে পড়া চালক ও হেলপারকে যেভাবে উদ্ধার করে। তা সত্যিই প্রশংসার দাবিদার। আহত ট্রাক চালক ও হেলপারকে উদ্ধারের সময় কনস্টেবল হাসানও আহত হন।

কনস্টেবল হাসান বলেন, স্থানীয়দের সহযোগিতা নিয়ে ট্রাকের ভেতর লেপ্টে থাকা চালক ও হেলপারকে বের করে আনি। যখন তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করতে পারি তখন এক অন্য রকম প্রশান্তি অনুভব করি।