বৃহস্পতিবার ১৯ †m‡Þ¤^i ২০১৯


চৌদ্দগ্রামে দুটি কাভার্ড ভ্যানের সংঘর্ষে দুই হেলপার নিহত উদ্ধারে গিয়ে এএসআই নিহত


আমাদের কুমিল্লা .কম :
03.09.2019


আবদুল মান্নান,চৌদ্দগ্রাম(সদর) প্রতিনিধি:
ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে দুইটি কাভার্ড ভ্যানের সংঘর্ষে একটি কাভার্ড ভ্যানের দুইজন হেলপার নিহত হয়েছে। দুর্ঘটনা কবলিত কাভার্ড ভ্যান উদ্ধারে গিয়ে হাইওয়ে পুলিশের এএসআই আক্তার হোসেন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো দুইজন। সোমবার ভোর ৫টা থেকে ৬টার মধ্যে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার সৈয়দপুরে দুইটি দুর্ঘটনা ঘটে। এএসআই আক্তার হোসেন কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার ছোট বাতুয়া গ্রামের দুলা মিয়ার ছেলে । নিহত হেলপার দুইজন হচ্ছেন নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলা সদরের নিজ সেনবাগ গ্রামের সালেহ আহমেদের ছেলে ফাহাদ ও লক্ষীপুরের চন্দ্রগঞ্জ উপজেলার নন্দী গ্রামের বাবুল মিয়ার ছেলে সুমন। গুরুতর আহত দুইজন হলেন- চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ফকিরহাট গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে রেকার চালক স্বপন (২৮) ও তার ভাই হেলপার মামুন (১৬)।
মিয়ার বাজার হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ বলেন,ভোর ৫টার দিকে চৌদ্দগ্রামের সৈয়দপুরে চট্টগ্রামগামী একটি কাভার্ড ভ্যান পেছন থেকে আরেকটি ধাক্কা দিলে দুইটি রাস্তার পাশে পড়ে। এতে একটি কাভার্ড ভ্যানের দুই হেলপার নিহত হয়। কিছুক্ষণ পরে মিয়ার বাজার হাইওয়ে পুলিশের এএসআই আক্তার হোসেন রেকার নিয়ে কাভার্ডভ্যান ও লাশ উদ্ধারে যান। দুর্ঘটনাস্থল সৈয়দপুরে এএসআই আক্তার হোসেন পুলিশের পিকআপ ভ্যান থেকে নেমে উদ্ধারের পরিকল্পনা করছিলেন। এসময় আরেকটি কাভার্ড ভ্যান এসে রেকারকে ধাক্কা দেয়। রেকার এসে পুলিশের পিকাপ ভ্যানকে ধাক্কা দেয়। এসময় পিকাপ ভ্যানের সামনে দাঁড়ানো এএসআই আক্তার হোসেন পিকাপ ভ্যানের নিচে চাপা পড়েন। রেকার চালক স্বপন ও তার ভাই হেলপার মামুনসহ পাঁচজন আহত হন। তাদেরকে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা পাঠানো হয়েছে।
এদিকে দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন হাইওয়ে পুলিশের এস.পি নজরুল ইসলাম, এএসপি রহমত উল্যাহ ও সার্কেল আমিনুল ইসলামসহ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।