বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯
  • প্রচ্ছদ » sub lead 3 » কুমিল্লায় নবাব ফয়জুন্নেছার মৃত্যুবার্ষিকীতে জেলা প্রশাসক নারী জাগরণের অগ্রদূত নবাব ফয়জুন্নেছা


কুমিল্লায় নবাব ফয়জুন্নেছার মৃত্যুবার্ষিকীতে জেলা প্রশাসক নারী জাগরণের অগ্রদূত নবাব ফয়জুন্নেছা


আমাদের কুমিল্লা .কম :
24.09.2019

স্টাফ রিপোর্টার।। উপমহাদেশের নারী জাগরণের মূর্ত প্রতীক, তৎকালীন সময়ে নারীদের শিক্ষায় শিক্ষিত করে নারীদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করা ও তাদের স্বাবলম্বী করে গড়ে তুলতে যিনি সর্বাগ্রে কাজ করেছিলেন, তিনি হলেন নবাব পরিবারের সুযোগ্য কন্যা নবাব ফয়জুন্নেছা চৌধুরাণী। নারী জাগরণের অগ্রদূত হিসেবে যার অবদান ছিল তিনি হলেন নবাব ফয়জুন্নেছা চৌধুরী। সোমবার সকালে কুমিল্লা নগরীর ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নবাব ফয়জুন্নেছা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে মহিয়সী নারী নবাব ফয়জুন্নেছা চৌধুরাণী’র ১১৬তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে কুমিল্লা জেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভা ওপুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মো: আবুল ফজল মীর এসব কথা বলেন। জেলা প্রশাসক আরো বলেন, তৎকালীন লালসালু যুগে নারীকে সমাজে প্রতিষ্ঠা করার জন্য নবাব ফয়জুন্নেছা চৌধুরী যে অবদান সৃষ্টি করে গেছেন জাতি তা কখনই ভুলতে পারেনা। আমরা চাই আগামীতে শিক্ষার্থীদের পাঠ্যপুস্তকে তাঁর অবদানের কথাগুলো উঠে আসুক। পথিকৃত কুমিল্লা যাদের কারণে হয়েছে তাদের মধ্যে নবাব ফয়জুন্নেছা চৌধুরীও ছিলেন অন্যতম। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক কাইজার মোহাম্মদ ফারাবী’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন নবাব ফয়জুন্নেছা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রোকসানা ফেরদৌস মজুমদার। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তানভীর সালেহীন ইমন, নবাব ফয়জুন্নেছা ও নজরুল গবেষক এডভোকেট গোলাম ফারুক, নারী নেত্রী ও নবাব ফয়জুন্নেছা ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা পাপড়ী বসু, জেলা শিক্ষা অফিসার মো: আব্দুল মজিদ। এছাড়া আরো বক্তব্য রাখেন, নবাব ফয়জুন্নেছা ফাউন্ডেশনের যুগ্ম সম্পাদক কবি ইয়াছমিন বেগম ও সাধারণ সম্পাদক আজাদ সরকার লিটন। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক অধ্যক্ষ রোকেয়া পদকপ্রাপ্ত প্রফেসর জোহরা আনিস, নবাব ফয়জুন্নেছা ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা সাংবাদিক অশোক কুমার বরুড়া, কুমিল্লা কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ এম নার্গিস আক্তার, জিলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক রাশেদা আক্তার, কবি ফখরুল হুদা হেলাল, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীসহ সাংবাদিক এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভার আগে প্রজেক্টরের মাধ্যমে নবাব ফয়জুন্নেছার আত্মজীবনী প্রদর্শন করা হয়। পরে এডভোকেট গোলাম ফারুক রচিত নবাব ফয়জুন্নেছা চৌধুরাণী ও রূপজালাল নামক বইয়ের মোড়ক উন্মোচন এবং নবাব ফয়জুন্নেছা সরকারি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের তৈরি উদয়ের পথে দেয়ালিকা উন্মোচন করেন অতিথিবৃন্দ। আলোচনা শেষে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের মাঝে রচনা ও আবৃত্তি প্রতিযোগিতার উপর পুরস্কার বিতরণ করা হয়। আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানের আগে দিবসটি উপলক্ষে জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি নগরীর কান্দিরপাড় থেকে বের হয়ে নবাব ফয়জুন্নেছা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করেন বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক সালমা আক্তার।