বুধবার ১৩ নভেম্বর ২০১৯
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » কুবির আজ সি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা এ – বি ’র ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন উপস্থিতিঃ ‘এ’ ইউনিট ৬৫% এবং ‘বি’ ইউনিট ৭২%


কুবির আজ সি ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা এ – বি ’র ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন উপস্থিতিঃ ‘এ’ ইউনিট ৬৫% এবং ‘বি’ ইউনিট ৭২%


আমাদের কুমিল্লা .কম :
09.11.2019

জাহিদুল ইসলাম,কুবি ।। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক প্রথম বর্ষের ‘এ’ ও ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১০.০০ টা থেকে ১১.০০ টা পর্যন্ত ‘এ’ ইউনিট এবং বিকাল ০৩.০০ টা থেকে ৪.০০ টা পর্যন্ত ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ইউনিট দুটির ভর্তি পরীক্ষায় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসসহ মোট ১৮ টি কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। আজ শনিবার সকাল ১০টা থেকে ‘সি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
প্রথম দিনের ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনকৃতদের মধ্যে ‘এ’ ইউনিটে প্রায় ৬৫% এবং ‘বি’ ইউনিটে প্রায় ৭২% পরীক্ষার্থী অংশগ্রহন করে বলে নিশ্চিত করেছেন ইউনিট প্রধানগন।
এ শিক্ষাবর্ষে ‘এ’ ইউনিটে (বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদ) সাতটি বিভাগে মোট ৩৫০টি আসনে ভর্তির জন্য ২৬ হাজার ৯৭৫ জন এবং ‘বি’ ইউনিটে (কলা, সামাজিক বিজ্ঞান ও আইন অনুষদ) আটটি বিভাগে ৪৫০টি আসনের বিপরীতে ২৮ হাজার ২৯৫ জন শিক্ষার্থী আবেদন করে। যেখানে ‘এ’ ইউনিটে মোট ১৭,৪৩৪ জন এবং ‘বি’ ইউনিটে ২০,৩০৪ জন শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিল।
এদিকে ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে বিভিন্ন কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা ও অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। কয়েকটি কেন্দ্রে ভর্তিচ্ছুদের পরীক্ষার কক্ষে মোবাইল, ব্যাগসহ ঢুকতে দেখা যায়। এছাড়া বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে নির্ধারিত সময়ের পাঁচ থেকে দশ মিনিট পর বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী আসলেও তাদেরকে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেওয়া না হলেও ২/৩ টি কেন্দ্রে ১০-২০ মিনিট পর কয়েকজন শিক্ষার্থীকে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশের অনুমতি দেন স্বয়ং বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী।
এতে বেশ কয়েকজন পরীক্ষার্থী এবং অভিভাবক ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন,‘সবার জন্য একই রকম নিয়ম হওয়া উচিত, পাঁচ মিনিট পরে আসলেও অনেক শিক্ষার্থী প্রবেশ করতে পারেনি আবার ১৮ মিনিট পর এসেও পরীক্ষা দিতে পারে। একটি বিশ^বিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় এমন অনিয়ম হতাশা জনক।’
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন বলেন,‘বিভিন্ন কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলার সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথেই আমরা আইন শৃঙ্খলা বাহিনী কে জানিয়েছি। তারা স্ব স্ব কেন্দ্রগুলোতে ব্যবস্থা নিয়েছে এবং নিরাপত্তা জোরদার করেছে।’
বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এমরান কবির চৌধুরী বলেন,‘ দুই শিক্ষার্থী নির্ধারিত সময়ের পরে এসে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে না পেরে খুব কান্নাকাটি করছে। মানবিক দিক বিবেচনায় তাদের সুযোগ দেয়া হয়েছে। এমন কয়েকজন ব্যতীত সবার মোটামুটি পরীক্ষা সুষ্ঠু হয়েছে। এবারের ভর্তি পরীক্ষায় বিশ^বিদ্যালয় পরিবারের সদস্যবৃন্দ, কুমিল্লার সর্বস্তরের জনগন এবং প্রশাসন সহযোগিতা করেছে।’