শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর ২০১৯


কুমিল্লায় পেঁয়াজের বাজারে আগুন ! সর্বনি¤œ একশ আশি- সর্বোচ্চ দুই’শ টাকা


আমাদের কুমিল্লা .কম :
15.11.2019

মাহফুজ নান্টু।। কুমিল্লাসহ সারা দেশেই এখন পিঁয়াজের বাজারে আগুন ! লেগেছে মত অবস্থা। কিছুতেই নিয়ন্ত্রন করা যাচ্ছে না প্রয়োজনীয় এই দ্রব্যটির। গতকাল বৃহস্পতিবার কুমিল্লার বাজারে ১৮০ টাকা থেকে ২০০ টাকা ধরে বিক্রি হয়েছে পেঁয়াজ। এতে বিক্ষুদ্ধ হয়ে উঠেছে সাধারণ ক্রেতারা।
পেঁয়াজের এমন দামে নাভিশ্বাস উঠেছে ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়ের। কবে নাগাদ পেঁয়াজের দাম হ্রাস পাবে তা বলতে পারছে না পাইকাররা। এ নিয়ে চরম অসন্তোষ বিরাজ করছে নি¤œ ও মধ্য আয়ের লোকজনের মধ্যে।
গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সরেজমিনে গেলে কুমিল্লা রাজগঞ্জ বাজারের খুচরা বিক্রেতা জিয়াউর রহমান,রনি সাহা জানান,বাজারে চাহিদা অনুযায়ী পেঁয়াজ আমদানী করতে পারছে না পাইকাররা। তাই বাজারে পেয়াজের চরম সংকট যাচ্ছে বলেই দামের এমন উর্ধ্বগতি। খুচরা বিক্রেতা জিয়াউর রহমান জানান,গতকাল সন্ধ্যায় ১৭০ টাকা টাকা ধরে ৩৮ কেজি পেঁয়াজ এনেছেন চক বাজার থেকে। বস্তার ভরা ৩৮ কেজী পেঁয়াজের মধ্যে প্রায় ৭/৮ কেজী পেঁয়াজ পচে নষ্ট হয়ে গেছে। তবুও এ পেঁয়াজগুলো ১৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।
পেঁয়াজ কিনতে আসা গৃহিনী রাবেয়া আক্তার জানান, আমি বিয়ের আগে ও পরে কখনোই পেঁয়াজের দাম এত শুনিনি। দাম বেড়ে যাওয়ার কারনে আজ বাজার থেকে মাত্র দেড় কেজী পেঁয়াজ কিনেছি ২৭০ টাকা দিয়ে।
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারী কলেজের শিক্ষার্থী রুবেল মজুমদার জানান,ছাত্রবাসের জন্য গতকাল বৃহস্পতিবার মিনা বাজার থেকে কেজী প্রতি ২শ টাকা দরে পেঁয়াজ কিনেছি। পেঁয়াজের দামটা বেড়ে যাওয়ায় আমাদের ছাত্রবাসের প্রত্যেক শিক্ষার্থীর মিল রেটও বেড়ে গেছে।
এদিকে চকবাজারের মুদি দোকানী কৃঞ্চ সাহা জানান,বাজারে ভারতের পেয়াজ নেই,মায়ানমারের পেঁয়াজে অনেক পচা পেঁয়াজ পড়ে। বাজার চালাইতেছি তুরস্কের লাল পেঁয়াজ দিয়ে।
চকবাজার পাইকার বাজার ঘুরে জানা যায়, ভারত থেকে এক রকম পেঁয়াজ আমদানী বন্ধ হয়ে গেছে। তাই পেঁয়াজের এত দাম বেড়েছে।
নগরীর একমাত্র পাইকারী বাজারের পাইকার আবদুল হালিম,সুভাষ চন্দ্র সাহা,রাজিব বনিক জানান, অনেক দিন হয়ে গেছে ভারত থেকে পেঁয়াজ আনতে পারছে না ব্যবসায়ীরা। মায়ানমার থেকে যে পেঁয়াজ আসছে তা আকারে ছোট এবং পচা। এছাড়াও বর্তমানে তুরস্ক থেকে আমদানী করা হচ্ছে লাল পেঁয়াজ । তাই বাজারে পেঁয়াজ সংকট দেখা দিয়েছে। কবে নাগাদ পেঁয়াজের দাম হ্রাস পাবে এমন প্রশ্নের জবাবে পাইকাররা জানান, এমন প্রশ্নের সঠিক উত্তর কেউ দিতে পারবে না।
এদিকে পেঁয়াজের দাম নিয়ে সোশাল মিডিয়াতে কুমিল্লা বিশিষ্ঠজনেরা তাদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধিতে বিশিষ্ঠ ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব বদরুল হুদা জেনু তার নিজের ফেইসবুক লিখেছেন ঐতিহাসিক রেকর্ড পেঁয়াজের কেজী ২০০”, সাংবাদিক মোবারক হোসেন লিখেছেন দুই মাসে দুই কেজী পেঁয়াজ কিনেছি, সাংবাদিক মহিউদ্দিন মোল্লা তার ফেইসবুকে লিখেন পেঁয়াজের কেজী ২০০ ,কোথাও কেউ নেই, সাংবাদিক সাইয়্যদ মাহমুদ পারভেজ লিখেছেন, সম্পূর্ণ অযোগ্য বানিজ্যমন্ত্রীর লজ্জা শরম থাকলে এক মাস আগেই পদত্যাগ করতেন। হে আল্লাহ তাকে একটু হলেও লজ্জা শরম দিন। জাতি আর পারছে না।