রবিবার ১৯ জানুয়ারী ২০২০


এসএসসিতে অংশ নিতে না দেয়ার নির্দেশনাসহ ৮ শিক্ষার্থী বহিষ্কার


আমাদের কুমিল্লা .কম :
26.11.2019

মোর্শেদুল ইসলাম শাজু, হোমনা :
কুমিল্লার হোমনায় আসন্ন ২০২০ সালে অনুষ্ঠিতব্য এসএসসি পরীক্ষার্থী হিসেবে ফরম পূরণ করা কলাগাছিয়া এম এ উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ শিক্ষার্থীকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ না দেয়ার নির্দেশনা দিয়ে বিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করেছে কর্তৃপক্ষ। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুর রব তাদের বহিস্কারের এ নোটিস প্রদান করেন। বহিষ্কৃত ছাত্ররা হলো- মো. আমজাদ, মো. মানিক, মো. হারুনুর রশিদ, মো. রফিকুল ইসলাম, মো. রিফাত মোল্লা, নাইম মিয়া, জাহিদ হাসান ও মো. পারভেজ।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্বাক্ষরিত ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছে প্রেরিত গত ২১নভেম্বর প্রেরিত নির্দেশনা পত্রে জানা যায়, গত ১৬ নভেম্বর দশম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত রনি, মেহেদি ও সাইফুলকে একই শ্রেণির আট শিক্ষার্থী মারধর করে বিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছে। এই অপরাধে ওই আট শিক্ষার্থীকে বিদ্যলয় থেকে বহিষ্কার এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ না দেয়ার নির্দেশনা প্রদান করা হয়।
বিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, এসএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য ইতোমধ্যে বহিষ্কৃত ওই আট শিক্ষার্থীদের ফরম পূরণ সম্পন্ন করা হয়ে গেছে। এ নিয়ে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া বিরাজ করছে। বহিষ্কারের বিষয়টিকে অনেকেই ‘লঘু পাপে গুরু শাস্তি’ উল্লেখ করে অমানবিকও বলেছেন।
এ ঘটনায় বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সাবেক সভাপতি মীর মো. মাসুদুজ্জামান বলেছেন, ছাত্রদের বহিষ্কারের বিষয়টি অত্যন্ত অমানবিক।
এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুর রব বলেন, গত ১৬ নভেম্বর সকাল ১০টা ২০ মিনিটে এ্যাসেম্বলি শেষে ক্লাসে ঢুকে ছাত্রদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে। এতে কয়েকজন শিক্ষার্থী আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে। শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও ইউএনওর নির্দেশে ২৩ নভেম্বর তাদের বহিষ্কার করি।
বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও ইউএনও তাপ্তি চাকমা সোমবার এই প্রতিবেদককে বলেন, তারা আটজন মিলে তিনজনকে বেদম পিটিয়েছে। তিনজন হাসপাতালে ভর্তি ছিলো। একজনের হাড় ভেঙ্গে গেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাদের বিদ্যালয় থেকে বহিষ্কারের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তবে তারা স্কুলের কার্যক্রমে অংশ নিতে না পারলেও এসএসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে। কারণ তারা এখন বোর্ডের নিকট ন্যস্ত।