সোমবার ১০ অগাস্ট ২০২০


আওয়ামী লীগ নেতার বাকবিত-ার ভিডিও ভাইরাল


আমাদের কুমিল্লা .কম :
07.12.2019

শাহীন আলম,দেবিদ্বার। কুমিল্লার উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের এক নেতা মুদি দোকানির সাথে বাকবিত-ার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ভাইরাল হয়েছে। তিনি দেবিদ্বার উপজেলার মোহাম্মদপুর গ্রামের মৃত সেরাজুল ইসলামের ছেলে এবং কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব এম হুমায়ুন মাহমুদ।
ভিডিওতে দেখা যায়, আওয়ামী লীগ নেতা হুমায়ুন মাহমুদ ওই দোকানীর দিকে রুখে গিয়ে তার সাথে বাকবিত-া করছেন। ভিডিওতে ওই নেতা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক না হয়েও নিজেকে মুদি দোকানীর কাছে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলে দাবি করেন। আর বলছেন, ‘ওই ব্যাটা আমাকে জয় বাংলা শিখাও, তখন ওই মুদি দোকানী বলছেন, আমি নড়িয়া থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি। দোকানীর কথা থামিয়ে এম হুমায়ুন মাহমুদ ক্ষুব্ধ হয়ে ওই দোকানীকে বলতে থাকেন, ‘ওই তোর নড়িয়ার গুষ্টি কিলাই, আমি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, তোরে খাইয়া ফালামু, বাইরাইয়া এক্কেবারে সোজা কইরা দিমু, ওই দোকানী বলেন, ‘কথা সুন্দর করে বলেন’। পরে ওই নেতা বলেন ‘তোরে আমি শেখাই, তোরে আমি শেখাই, পরে তিনি নিজের সেল ফোন টিপতে টিপতে চলে যান।
ভিডিওটি মোস্তফা মাহবুব বাপ্পি নামে এক ব্যক্তি গত বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা ১৬ মিনিটে তার ব্যক্তিগত ফেইসবুক আইডিতে পোস্ট করেন, তিনি ক্যাপসনে লিখেন, ‘কারও সাথে কথা বলতে গেলে যদি নিজের পদের পরিচয় দিতে হয় তাহলে সাধারণ মানুষ কার পরিচয় দিবেন’। এরপর তা ছড়িয়ে পড়ে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধমেও। অবশ্য গতকাল শুক্রবার তার আইডিতে ওই ভিডিওটি আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। ততক্ষণে ওই ভিডিওটি হাজার হাজার ফেইসবুক আইডি থেকে আওয়ামীলীগ নেতা হুমায়ুন মাহমুদকে বিভিন্ন ভর্ৎসনা করে পোস্ট দেওয়া হয়। এই ভিডিওটি ঢাকা বাংলা মোটরে ১নং ইস্কাটন রোডের মেসার্স বাবুল স্টোরের সামনে থেকে তোলা । গাড়ি পার্কিং নিয়ে তাদের মধ্যে বাকবিত-া হয়।
ভিডিওতে প্রকাশিত অধ্যক্ষ এম হুমায়ূন মাহমুদ এমন আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দেবিদ্বারের আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক নেতা বলেন, একজন মুদি দোকানীর সাথে উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের নেতা হুমায়ুন মাহমুদের এমন আচরণ দু:খজনক। তার আচরণে পরিবর্তন আনা জরুরি। এ ব্যাপারে এম. হুমায়ুন মাহমুদের সাথে যোগাযোগ করার জন্য একাধিকবার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় বক্তব্য নেয়া যায়নি।
প্রসঙ্গত, আগামী ৯ডিসেম্বর কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। তিনি ওই সম্মেলনের প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সচিব এবং উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী। বর্তমান কমিটির তিনি সহ-সভাপতি।