বুধবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০


মায়ের সামনে যুবককে অমানুষিক নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল


আমাদের কুমিল্লা .কম :
27.12.2019

মাসুদ আলম।। কুমিল্লায় যুবকের হাত-পা বেঁধে মায়ের সামনে হিংস্র ও অমানুষিকভাবে নির্যাতন করেছেন গ্রাম্য মাতাব্বর। নির্যাতনের ভিডিও ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়েছে। এদিকে হাত-পা বেঁধে যুবককে নির্যাতনের ঘটনায় চারদিকে সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। ঘটনাটি ঘটেছে কুমিল্লা মুরাদনগর উপজেলার দারোরা ইউনিয়নের কাজিয়াতল গ্রামের পূর্বপাড়ায়।
নির্যাতনের শিকার যুবক কাজিয়াতল গ্রামের রাখাল চন্দ্রের ছেলে রাজু চন্দ্র। অভিযুক্ত মাতাব্বর আবু তাহের (কন্টাক্টর) দারোরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এবং একই ইউনিয়নের ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের বর্তমান আমির। তিনি দুই দলেরই ইউনিয়ন কমিটির পদে রয়েছেন। বৃহস্পতিবার নির্যাতনের শিকার রাজু চন্দ্রের বড় ভাই সজল চন্দ্র বিশ্বাস মাতাব্বর আবু তাহেরকে আসামি করে কুমিল্লা মুরাদনগর থানায় একটি মামলা করেছে।
জানা যায়, গত (২৫ ডিসেম্বর) বুধবার বিকেলে কোন কারণ ছাড়াই হাত-পা বেঁধে ওই যুবককে অমানুষিকভাবে নির্যাতন করেন মাতাব্বর আবু তাহের। বাধায় কাজ না হওয়ায় নিরব প্রতিবাদে সেই নির্যাতনের দৃশ্য সামনা-সামনি দাঁড়িয়ে কাতর হয়ে দেখছেন মা। ওই ঘটনাটি উপস্থিত কেউ মোবাইলে ধরণ করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। একদিনের মধ্যে নির্যাতনের ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়ে। ওই
ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, জামা-কাপড় খুলে যুবকের হাত পা বেঁধে প্রচন্ড শীতের মধ্য মাটিতে ফেলে রাখা হয়েছে। পা দিয়ে মুখে ও বুকে লাথি মেরে ছুড়ে ফেলে অজ্ঞান করা হচ্ছে। এরপর আহত ও ক্রন্দনরত যুবকটিকে টানা কয়েকদফা লাথি মারতে থাকেন ওই মাতাব্বর।
ভাই সজল চন্দ্র বিশ্বাস জানান, ভাইয়ের উপর এমন অমানবিক আচরনের বিচার চেয়ে আমরা এলাকার অন্যান্য সর্দার ও মাতাব্বরদের দ্বারে দ্বারে ঘুরে এখন ক্লান্ত প্রায়। মাতাব্বর আবু তাহেরের বিচার চেয়ে আমি মুরাদনগর থানায় মামলা করেছি।
মুরাদনগর ইউনিয়নের দারোরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহাজাহান (বিএসসি) বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া নির্যাতনের ভিডিওটি দেখেছি। অভিযুক্ত ওই মাতাব্বর যুবকের মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে পা দিয়ে আঘাত করে অমানুষিকতার পরিচয় দিয়েছেন। আমার বিশ্বাস প্রশাসন বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখবেন।
এবিষয়ে মুরাদনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) একেএম মনজুর আলম বলেন, যুবকে নির্যাতনের ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে একটি মামলার হয়েছে। আসামি পালাতক রয়েছে। পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে মাঠে রয়েছে।