সোমবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০


ক্ষমা করবেন হুজুর


আমাদের কুমিল্লা .কম :
27.12.2019

শাাহাজাদা এমরান।। কুমিল্লার প্রখ্যাত আলেম ও জেলা ইমাম সমিতির সভাপতি হযরত মাওলানা আহসানুল করীম আল আযহারী আর নেই।তিনি আজ শুক্রবার আমাদের ছেড়ে না ফেরার দেশে চলে গেছেন। ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাহে রাজেউন।তিনি কুমিল্লা নগরীর হারুন স্কুল এলাকার জামে মসজিদের খতিব ছিলেন দীর্ঘ দিন ধরে। তার সাথে আমার ব্যক্তিগত সম্পর্কও দীর্ঘ দিন ধরে। আমরা এক সাথে কুমিল্লায় সরকারী বেসরকারী অসংখ্য অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহন করেছি। হৃদ্যতাপূর্ন সম্পর্ক বজায় রাখতেন তিনি। অত্যন্ত ভদ্র,নম্র বিনয়ী ব্যক্তি ছিলেন তিনি। আমি তাকে আহসানুল ভাই আর তিনি আমাকে এমরান ভাই বলে ডাকতেন। বাংলাদেশ জাতীয় যক্ষ্মা নিরোধ সমিতি (নাটাব) এর ইমামদের সাথে যখন অনুষ্ঠান হতো,তখন আমি তাকে বলতাম, হুজুর,নাটাবের অনুষ্ঠান ৩০ জন ইমাম সাহেব লাগবে। তিনি হাসি দিয়ে বলতেন,এমরান ভাই,আপনি শুধু ভ্যানু আর সময় টুকু বলেন বাকী কাজ আমার। আলহামদুলিল্লাহ।অনুষ্ঠানের দিন দেথতাম নির্দিষ্ট সময়ের আগেই সব ইমাম সাহেবগণ উপস্থিত থাকতেন।
চলতি ডিসেম্বর মাসের ১৫ তারিখ নাটাব কুমিল্লা প্রবীণ নাগরিকদের সাথে একটি অনুষ্ঠান করে।হুজুর আমার ফেসবুক বন্ধুও ছিলেন। ফেসবুকে নাটবের অনুষ্ঠান দেখে তিনি কমেন্ট করেন,এমরান ভাই,অনেক দিন হল আপনার সাথে দেখা নেই।নাটাবের কোন অনুষ্ঠানেও আমাকে ডাকেন না,ভুলেন গেলেন কি না। আমি জবাবে বলেছিলাম,ভাই, এটা ছিল প্রবীণদের সাথে মতবিনিময় সভা। শিগগিরই ইমামদের সাথে করব। তখন আপনাকে জানাব। ভাগ্যের নির্মম পরিহাস,সেই কথা বলার আজ ১২ দিনের মাথায় হুজুর আহসানুল ভাই চলে গেলেন আমাদের ছেড়ে।আজ শুক্রবার অফিসে এসে ফেসবুক ওপেন করে দেখি,আমাদের কুমিল্লার সাংবাদিক হানিফ ভাই তার ওয়ালে দিয়েছেন,আহসানুল কারীম ভাই আর নেই। খবরটি আমার যেন কিছুতেই বিশ্বাস হচ্ছিল না। তাই আমি লাইন বা কমেন্ট না করে বার বার ফোন দিচ্ছিলাম সাংবাদিক হানিফকে। অনেক পড়ে তিনি ফোন রিসিভ করে জানাল,ভাই, কথা সঠিক,আমি এখন হুজুরের বাসায় আছি। বাদ মাগরিব কুমিল্লা কেন্দ্রীয় ঈদগায়ে নামাজে জানাযা আর দাফন হবে ফেনীর দাগনভুঁইয়ায়।
প্রিয় আহসানুল ভাই,আপনি শুধু আলেম হিসেবে না , আমার দেখায় একজন মানুষ হিসেবেও আপনি ভাল মানুষ ছিলেন, ছিলেন খাঁটি ভদ্র লোকও।কখনো পার্থিব লোভ লালসা আপনাকে স্পর্শ করতে দেখিনি।কুমিল্লার আলেম সমাজের পাশাপাশি সুশীল সমাজও আপনার শূণ্যতা অনুভব করবে- এ আমি দিব্যি করে বলতে পারি।
আপনাকে কথা দিয়েছিলাম খুব শিগগিরই,আপনার ইমামদের নিয়ে নাটাবের অনুষ্ঠান করব। অনুষ্ঠান হয়তো ইমামদের নিয়ে করব কিন্তু আপনাকে আর কোন দিন পাব না। নাটাবের একটি অনুষ্ঠান শেষ করে আরেকটি অনুষ্ঠান আসতে কম পক্ষে ৩ মাস সময় লাগে।তাই সময়ের কারণে আপনার জীবিত অবস্থায় আপনাকে নিয়ে অনুষ্ঠান করতে পারলাম না। ক্ষমা করবেন ভাই আহসানুল কারীম।
আশা করি দুনিয়াতে যেমন আপনি ভাল ছিলেন ঠিক পরকালেও মহান আল্রাহ আপনাকে ভাল রাখবেন এই -অশায় শেষ করছি।
লেখক :সাংগঠনিক সম্পাদক,নাটাব কুমিল্লা