বুধবার ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » দেবিদ্বারে নির্বাচনে হেরে বাড়ি-ঘর ভাঙচুরের অভিযোগ


দেবিদ্বারে নির্বাচনে হেরে বাড়ি-ঘর ভাঙচুরের অভিযোগ


আমাদের কুমিল্লা .কম :
01.01.2020

দেবিদ্বার প্রতিনিধি।। কুমিল্লার দেবিদ্বারের ভানী ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে বিজয়ী এক প্রার্থীর সমর্থকের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ি-ঘর ভাঙচুর, লুটপাটসহ মারধরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার সন্ধ্যায় ভানী ইউনিয়নের পশ্চিম পাড়ায় মো. ফরিদ উদ্দিনের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে দেবিদ্বার থানার এসআই মো. রবিউল ইসলাম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরে এ ঘটনায় ওই রাতেই দেবিদ্বার থানায় ৮ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৩০/৪০ জনের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগী মো. ফরিদ উদ্দিন। অভিযুক্তরা হলো, মো. জাহাঙ্গীর আলম (৪৫), সফিকুল ইসলাম (৬০), আনিছুর রহমান (৪০), নজরুল ইসলাম (৪০) জুয়েল হোসেন (৩০), মো. সুমন (৩৫), ময়নাল হোসেন (৬৫) এবং মো. দুলাল মিয়া (৪০)।
লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, ভোটের ফলাফল ঘোষণার পরে পরাজিত প্রার্থী মোসা. শাহীন আক্তারের কর্মী-সমর্থকরা বিজয়ী প্রার্থী মোসা. আনোয়ারা বেগমের কর্মী মো. ফরিদ উদ্দিনের বাড়ি-ঘরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও লুটপাট চালায়। এসময় ফরিদ উদ্দিনের স্ত্রী ও শিশু কন্যাদের মারধরও করেন অভিযুক্ত ব্যক্তিরা। পরে তাদের চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।
অভিযোগ অস্বীকার করে পরাজিত প্রার্থী শাহীনা আক্তার বলেন, আমার কোন কর্মী-সমর্থক কারও বাড়ি-ঘর ভাঙচুর করে নাই। তারা সাজানো নাটক সাজিয়ে থানায় মিথ্যা অভিযোগ দায়ের করছে। আমরাও একটি পাল্টা অভিযোগ দায়ের করব।
দেবিদ্বার থানার ওসি মো. জহিরুল আনোয়ার জানান, আমি নিজে উপস্থিত থেকে সুষ্ঠু নির্বাচন করতে সহায়তা করেছি। ভোট চলাকালে দুই পক্ষই উত্তেজিত ছিলো, তবে কোন প্রকার সংঘর্ষ হয়নি। ভোট গণনার পর পুলিশ ও অন্যান্য আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা যখন কেন্দ্র ছেড়ে চলে আসে তখন একটি পক্ষ ফরিদ উদ্দিন নামের এক ব্যক্তির বাড়ি-ঘর ভাঙচুরের খবর পেয়েছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। এ বিষয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ফরিদ উদ্দিন। তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্তদের বিরদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
প্রসঙ্গত,গত সোমবার ভানী ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে (ভানী-খিরাইকান্দি-আছাদনগর) তিনটি ওয়ার্ডে সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই উপ-নির্বাচনে আনোয়ারা বেগম বই ও শাহীনা আক্তার সূর্যমূখী ফুল প্রতীকে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করে ৮৯ ভোটের ব্যবধানে শাহীনা আক্তারকে পরাজিত করে বিজয়ী হয় আনোয়ারা বেগম।