শুক্রবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০


গোমতীতে চিকিৎসকের ছেলের লাশ


আমাদের কুমিল্লা .কম :
02.01.2020

মাহফুজ নান্টু। কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার পালপাড়া গোমতী ব্রিজের নীচে সকাল সাড়ে ১০ শাহাদাত আলী খান শাবাত (৩০) নামে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। উদ্ধার হওয়া যুবকটি নগরীর ১ নং ওয়ার্ড বিষ্ণুপুর এলাকার ডা.লিয়াকত আলীর ছেলের।
কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো:আনোয়ারুল হক বলেন, সকাল সাড়ে ১০ টায় স্থানীয় লোকদের মাধ্যমে জানতে পেরে কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার পালপাড়া এলাকার গোমতী নদী থেকে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করি। ধারণা করা হচ্ছে যুবকটিকে শ্বাসরোধ করে হত্যার পর হাতে কচটেপ পেচিয়ে লাশটি ব্রিজ থেকে নিচে নিক্ষেপ করা হয়। তবে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন আসলে কিভাবে হত্যা করা হয তা স্পষ্ট করে বলা যাবে।
এদিকে উদ্ধার হওয়া যুবকের বাসা নগরীর বিষ্ণপুর এলাকায় গিয়ে দেখা যায় নিহত শাহাদাত আলী খান শাবাতের বাবা ডা.লিযাকত আলী খান বসে আছেন। সহকর্মীরা ডা.লিয়াকত আলী খানকে সান্ত¦না দিচ্ছেন। ডা.লিয়াকত আলীর দুই ছেলে এক মেয়ের মধ্যে শাবাত সবার ছোট ছিলো। প্রায় কুড়ি বছর আগে ডা.লিযাকত আলীর বড় ছেলে সুমন আত্মহত্যা করে। একমাত্র মেয়ে মৌমিতা খানকে বিয়ে দিয়েছেন। আর ছোট ছেলে ছিলো শাবাত।
ঈরিবার সূত্রে জানা যায়, বাবার সূত্রে মিডল্যান্ড হসপিটালের শেয়ার হোল্ডার ছিলো শাহাদাত আলী খান। বেশ ক’দিন আগে শাহাদাত আলী খান বাইক দুর্ঘটনার কারণে বাড়িতে চিকিৎসকের পরামর্শে চলাফেরা করতেন। আইটি স্পেশালিস্ট হওয়ায় বাসায় বসে কম্পিউটারে কাজ করতো। গত ৩০ ডিসেম্বর সোমবার রাতে বাসা থেকে বের হয় আর ফেরেনি শাবাত। একটি চাবির ছড়া বাসা থেকে বের হওয়ায় সময় মোবাইল মানিব্যাগ কিছুই সাথে নেয়নি শাবাত। ১ জানুয়ারি সকাল ১১ টায় প্রতিবেশীদের মাধ্যমে বাবা ডা.লিয়াকত আলী খান জানতে পারেন তার ছোট ছেলের লাশ গোমতী নদীতে ভাসছে।
লিয়াকত আলী খান জানান, জানি না কে বা কারা আমার ছেলেকে হত্যা করলো নাকি আমার ছেলে আত্মহত্যা করছে। তবে আশা করি ময়না তদন্তে সব রহস্য উন্মেচিত হবে। এছাড়াও পুলিশ যদি কললিস্টের সূত্র ধরে খোঁজে তাহলে হয়তো রহস্য উন্মেচিত হবে।