শুক্রবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » ভরা মৌসুমেও কমছে না সবজির দাম ফের বাড়ছে পেঁয়াজের দামও #পেঁয়াজের দাম হ-য-ব-র-ল #৪০-৫০ টাকার কমে নেই কোন সবজি # সাপ্তাহ ব্যবধানে দাম বেড়েছে ৫-২০ টাকা পর্যন্ত # সবজির সরবরাহ বাড়লেও দাম কমেনি


ভরা মৌসুমেও কমছে না সবজির দাম ফের বাড়ছে পেঁয়াজের দামও #পেঁয়াজের দাম হ-য-ব-র-ল #৪০-৫০ টাকার কমে নেই কোন সবজি # সাপ্তাহ ব্যবধানে দাম বেড়েছে ৫-২০ টাকা পর্যন্ত # সবজির সরবরাহ বাড়লেও দাম কমেনি


আমাদের কুমিল্লা .কম :
05.01.2020

আবু সুফিয়ান রাসেল।। পেঁয়াজের দাম আবারো বেড়েছে কুমিল্লার বিভিন্ন বাজারে। এদিকে বাজারে শীতের সবজির সরবরাহ বাড়লেও দাম কমেনি, বরং কিছু সবজির দাম সপ্তাহের ব্যবধানে বেড়েছে। ভরা মৌসুমে সবজির দাম না কমায় ক্ষোভ বাড়ছে ক্রেতাদের।ক্রেতারা এই দাম বৃদ্ধিকে অসাধু ব্যবসায়ীদের কারসাজি বলে মনে করছেন।
শুক্রবার রাজগঞ্জ, চকবাজার, বাদশামিয়া বাজার, পদুয়া বাজার, রাণীর বাজার, নিউ মার্কেটসহ বিভিন্ন বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

গত সেপ্টেম্বর ভারত রফতানি বন্ধ করায় পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিক বেড়ে যায়। রেকর্ড ২৫০ টাকায় পৌঁছে যায় পেঁয়াজের কেজি। তবে মিশরসহ বিভিন্ন দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানি করায় এবং দেশি নতুন পেঁয়াজ বাজারে আসার পর দাম কিছুটা কমে। এতে কয়েক সপ্তাহ জুড়েই কুমিল্লা নগরীর বাজারগুলোতে দেশি নতুন পেঁয়াজের কেজি বিক্রি হচ্ছিল ১২০ টাকার মধ্যে।

কিন্তু এখন আর কোনো বাজারেই ১০০ টাকা কেজিতে পেঁয়াজ পাওয়া যাচ্ছে না। বাজার ভেদে দেশি নতুন পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা কেজি দরে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, বাজারে নতুন দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ কমে গেছে। এ কারণে আবারো দাম বেড়েছে। চাষিরা বাড়তি দামের আশায় আগাম পেঁয়াজ তোলা শুরু করেন। তাই এখন দেশি পেঁয়াজের সরবরাহ কমে গেছে। এ কারণে দামও বেড়েছে। সামনে হয়তো পেঁয়াজের দাম আরো বাড়তে পারে।

এদিকে বাজারে সরবরাহ বাড়লেও দাম কমছে না সবজির। গত সপ্তাহের মতো বাজার ও মানভেদে প্রতি কেজি করলা বিক্রি হচ্ছে ৮০-১০০ টাকা। দেশি পাকা টমেটোর কেজি প্রতি দাম ৬০-৮০ টাকা। আর আমদানি করা পাকা টমেটোর দাম ৫০-৬০ টাকা।

শিম, ফুলকপি, বাঁধাকপি, মুলা ও গাজরের দাম গত সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে। ভালো মানের শিমের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০-৫০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৩০-৪০ টাকা।গত সপ্তাহে যে ফুলকপি ২০-২৫ টাকা পিস বিক্রি হয় তার দাম বেড়ে ৩০-৩৫ টাকা হয়েছে। আর ৪০ টাকায় নেমে আসা গাজর এখন ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

দাম অপরিবর্তিত থাকা সবজির মধ্যে বেগুনের কেজি ৪০-৫০ টাকা, নতুন গোল আলু ৩০-৪০ টাকা, পেঁপে ৩০-৩৫ টাকা, মুলা ২০-৩০ টাকা, শালগম ৩০-৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

কলেজ শিক্ষক পুলক কুমার ধর ফেসবুকে লিখেছেন, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্য দিনদিন মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে চলে যাচ্ছে। বাজারের কোন তরকারি যেন ৫০ টাকা কেজির নিচে নেই।

নগরীর সুজা নগর এলাকার বাসিন্দা তৌহিদ সরকার মন্তব্য করেন, বাজারে এ অতিরিক্ত দামের নেপথ্যে একটি শক্তিশালী মহল যুক্ত রয়েছে। যারা জন সাধারণের টাকা লুট করে নিচ্ছে।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কুমিল্লা জেলা সহকারি পরিচালক মো. আছাদুল ইসলাম জানান, কাঁচা মালের বাজার দর প্রতিদিন উঠানামা করে। কাঁচা মালের ক্ষেত্রে বিক্রেতা পাইকারি ক্রয়ের রসিদ সংরক্ষণ করবেন। যদি কেউ অতিরিক্ত মূল্য রাখার অভিযোগ করে সে ক্ষেত্রে আমরা পাইকারির ক্রয় রশিদ দেখে, যদি অতিরিক্ত মনে হয় তবে ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে আইনানু ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।