শনিবার ২৮ gvP© ২০২০


ইরানের বিমানঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ৮০ সেনা নিহত


আমাদের কুমিল্লা .কম :
09.01.2020

ইরাকের দুটি মার্কিন বিমানঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় অন্তত ৮০ মার্কিন সেনা নিহত হয়েছেন বলে দাবি করেছে ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন। বুধবারের খবরে আরও বলা হয়, ওই ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় মার্কিন হেলিকপ্টার ও সামরিক সরঞ্জাম ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের তরফে হামলার কথা স্বীকার করা হলেও কোনও সেনা হতাহতের ব্যাপারটি নিশ্চিত করা হয়নি।

বুধবার ভোররাতে ইরাকে দুটি মার্কিন ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। দেশটির বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর (আইআরজিসি) এক বিবৃতিতে হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রও হামলার কথা স্বীকার করেছে। ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের খবরে বলা হয়েছে, প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্দেশে কুদস বাহিনীর প্রধান কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার প্রতিশোধ নিতে এই হামলা চালিয়েছে আইআরজিসি।

ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে দাবি করা হয়েছে, ইরাকে মার্কিনিদের আরবিল ও আল-আসাদ বিমানঘাঁটিতে ১৫টি ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় অন্তত ৮০ ‘মার্কিন সন্ত্রাসী’ নিহত হয়েছেন। হামলাকালে কোনও ক্ষেপণাস্ত্রই বাধার সম্মুখীন হয়নি। উলে­খ্য, পেন্টাগন ও এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে ‘সন্ত্রাসী’ আখ্যা দিয়ে সদ্য আইন পাস করেছে তেহরান। সেই অবস্থান থেকে সেনা হত্যাকে সন্ত্রাসী হত্যা বলছে তারা।

ইরানী বিপ্লবী প্রতিরক্ষা বাহিনীর বরাত দিয়ে রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন আরও জানিয়েছে, ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার প্রতিক্রিয়ায় যুক্তরাষ্ট্র যদি পাল্টা হামলা চালায়, তবে তার জবাবে মধ্যপ্রাচ্য জুড়ে মার্কিনিদের আরও ১০০টি লক্ষ্যবস্তু চিহ্নিত করা হয়েছে। এদিন এক টুইট বার্তায় হাসান রুহানির উপদেষ্টা হেসামউদ্দিন আশেনা যুক্তরাষ্ট্রকে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, (ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার প্রতিক্রিয়ায়) যুক্তরাষ্ট্রের যে কোনও সামরিক পদক্ষেপে পুরো মধ্যপ্রাচ্য জুড়ে সর্বাত্মক যুদ্ধ দিয়ে মোকাবেলা করা হবে।’

উলে­খ্য, শুক্রবার (৩ ডিসেম্বর) ইরাকের রাজধানী বাগদাদে মার্কিন এক রকেট হামলায় নিহত হন ইরানের বিশেষ বাহিনী রেভল্যুশনারি গার্ডের কুদস শাখার প্রধান জেনারেল ও আঞ্চলিক শক্তি বৃদ্ধির প্রধান কারিগর কাসেম সোলাইমানি। তিনি ইরানের বিপ্লবী বাহিনীর সবচেয়ে প্রভাবশালী কমান্ডার ছিলেন। মধ্যপ্রাচ্যে জঙ্গিবিরোধী লড়াইয়ে তার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।