রবিবার ২০ †m‡Þ¤^i ২০২০


মেঘনায় দুই লঞ্চের সংঘর্ষে মা-মেয়ে নিহত


আমাদের কুমিল্লা .কম :
14.01.2020

চাঁদপুর প্রতিনিধি : কীর্তনখোলা ও ফারহান লঞ্চের সংঘর্ষে দুই যাত্রী নিহত হনঘন কুয়াশার কারণে মেঘনায় যাত্রীবাহী লঞ্চ এমভি কীর্তনখোলা-১০ ও এমভি ফারহান-৯ এর সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে কীর্তনখোলা লঞ্চের দুই যাত্রী (মা ও শিশু মেয়ে) নিহত এবং দুই লঞ্চের অন্তত আট যাত্রী আহত হয়েছেন। আহতদের তিন জন কীর্তনখোলা এবং বাকিরা ফারহান লঞ্চের যাত্রী। রবিবার রাত দেড়টার দিকে মেঘনা নদীর মাঝেরচর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
বরিশাল নদীবন্দর কর্মকর্তা আজমল হুদা মিঠু সরকার জানান, মেঘনা নদীর চাঁদপুর সীমান্তের মাঝে কাজীরচর পয়েন্টে দুটি লঞ্চের সংঘর্ষে দুই যাত্রী (মা ও শিশু মেয়ে) নিহত এবং কয়েকজন যাত্রী আহত হন। আহতদের ওই রাতেই বিআইডব্লিউটিএ’র সহায়তায় চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধান করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানান তিনি।
চাঁদপুর নৌ-পুলিশের ওসি আবু তাহের বলেন, লঞ্চের স্টাফদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, রাতে কীর্তনখোলা ১০ বরিশাল থেকে ঢাকা যাচ্ছিল, আর ফারহান-৯ ঢাকা থেকে হুলারহাট যাচ্ছিল। পথে বরিশাল মেঘনা নদী অঞ্চলে ফারহান-৯ লঞ্চটি কীর্তনখোলা লঞ্চটির মাঝ বরাবর আঘাত করে। এতে কীর্তনখোলার দুই জন নিহত ও তিনজন আহত হন। নিহতদের মরদেহ ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।
কীর্তনখোলা ও ফারহান লঞ্চের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেকীর্তনখোলা লঞ্চ কোম্পানির কাউন্টার ম্যানেজার ঝন্টু জানান, ঢাকা থেকে হুলারহাটগামী ফারহান লঞ্চটি কুয়াশার মধ্যে কীর্তনখোলা-১০ লঞ্চের মাঝ বরাবর সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে লঞ্চের নীচতলা ও দোতলার অংশ দুমড়ে মুচড়ে যায়।
এদিকে লঞ্চের ব্যবস্থাপক বেলাল হোসেন জানান, ফারহান-৯ লঞ্চে কোনও আধুনিক যন্ত্রপাতি না থাকায় কুয়াশার মধ্যে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষে কীর্তনখোলা ১০ লঞ্চের উপরিভাগ ক্ষতিগ্রস্ত হলেও তলা ঠিক ছিল। তাই হতাহতদের নিয়ে লঞ্চটিকে চাঁদপুর হয়ে ঢাকার উদ্দেশে যেতে বলা হয়েছে।