রবিবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » আওয়ামী লীগ ভাবে পেঁয়াজ ছাড়া রান্না হবে, ভোট ছাড়া নির্বাচন হবে …………….ড. রেজা কিবরিয়া


আওয়ামী লীগ ভাবে পেঁয়াজ ছাড়া রান্না হবে, ভোট ছাড়া নির্বাচন হবে …………….ড. রেজা কিবরিয়া


আমাদের কুমিল্লা .কম :
19.01.2020

কে এম মাসুদ, চাঁদপুর: ‘গণতন্ত্র উদ্ধারে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলুন’ ¯েøাগানকে সামনে রেখে গণফোরাম চাঁদপুর জেলা শাখার কর্মী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শনিবার ১৮ জানুয়ারি সকালে চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে সমাবেশে চাঁদপুর জেলা গণফোরামের সভাপতি অ্যাডভোকেট সেলিম আকবরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, গণফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ড. রেজা কিবরিয়া।
তিনি বলেন, এখন দেশের মানুষের একটাই প্রশ্ন দেশে কি হবে। দেশে আপরাধ ছাড়া মামলা হয়, ভোট ছাড়া জনপ্রতিনিধি হয়। তবে আমরা বলেতে চাই সেদিন বেশী দূরে নয় গণফোরাম দেশের নেতৃত্বে দেবে। গণফোরাম ক্ষমতায় যাবে ও গণফোরাম সরকার গঠন করবে। তবে কি ভাবে করবে তা এখন বলা যাচ্ছে না। এটা হতে পারে তিন বছর পর বা তারও আগে পরে।
তিনি বলেন, আমার বাবা যেই দলের জন্য প্রাণ দিয়েছেন, সেই দল এখন নেই, আমার বাবা যেই দল আওয়ামী লীগ আজ সারাদেশের মানুষের কাছে ভোট চোর হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। এই দেশে এখন আইনের শাষন নেই, আওয়ামী লীগ দেশের মানুষের কাছে ভোট চোর হিসেবে চিহৃত হবে এটা আমরা আশা করি নি, দেশে এতো উন্নয়নের কথা বলা হচ্ছে তার পরও কেন ভোট চুরি করতে হয় কেন এটা আমার প্রশ্ন? বর্তমান সরকার ভোট ও ভোটারদের সবচেয়ে বেশী ভয় পায় কেন এটাই প্রশ্ন?
তিনি বলেন, আমার বাবা থাকাকালীন সময়ের আওয়ামী লীগ আর বর্তমান আওয়ামী লীগে অনেক তফাত রয়েছে। আজ ১৫টি বছর হতে চললো আমার বাবার হত্যার একটি সুষ্ঠু তদন্ত এখনো আমাদের পরিবার দেখতে পারিনি।
ড. রেজা কিবরিয়া বলেন, চাঁদপুর সারাদেশের মধ্য বিক্ষাত একটি জেলা, আমি ভেবে ছিলাম চাঁদপুর অন্য জেলের চেয়ে আরো বেশী উন্নত, কিন্তু সেই হিসেব উন্নত হয়নি, চাঁদপুরে এসে মনে হচ্ছে উন্নয়নটা ঢাকা কেন্দ্রীক।
তিনি বলেন, আজ দেশে ধর্ষণ, গুম হত্যা দেশের কালচার হয়ে গেছে। দেশের অর্থনীতিক অবস্থা ভাল নয়। অর্থনৈতিক ধসের জন্য এ সরকারের পতন ঘটবে। এর ফল সরকার ভোগ করবে সাথে দেশের মানুষের অনেক কষ্ট হবে। আওয়ামী লীগ ভাবে পেঁয়াজ ছাড়া রান্না হবে, ভোট ছাড়া নির্বাচন হবে।
তিনি দাবি করেন, বেগম খালেদা জিয়াকে আন্যায় ভাবে জেলে রাখা হয়েছে, তিনি আমাদের দলের কেউ নয়, তবে একজন বয়স্ক মানুষকে অন্যায় ভাবে জেলে রাখা এটা গুণাহের কাজ। বিএনপি আমাদের সাথে আছে ঐক্যফ্রন্ট করছি কিন্তু আমাদের বিবেচনায় বেগম জিয়াকে সুষ্ঠু চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে না। ওনার মেডিক্যাল রিপোর্টে ধুম্রজাল রয়েছে। ওনি তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী। ওনি আমাদের দলের কেউ না তবু ওনার প্রতি এ অবমানরার প্রতিবাদ করতে হবে।
ইভিএমকে আমরা বলি ইভিএফ এটা ইলেট্রনিক ফ্রড মেশিন। বিশ্বের ৩১ দেশ পরীক্ষা করে বাদ দিয়েছে। মাত্র ৪টি দেশ এটিকে গ্রহণ করেছে। আজ ঢাকা সিটির নির্বাচনে ইভিএম দিয়ে ভোট চুরির নতুন উপায় বের করেছে। জনগণের দাবি সরকার মানছে না। আমরা চাই আইনের শাসন ও জবাবদিহিতামূলক সরকার।
কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, বর্তমানে জাতির বিবেক হিসেবে ড. কামাল হোসেনকে দেখা হচ্ছে। ওনি ৮২ বছর বষয়ে দেশের মানুষের জন্য এখনো কিছু করেতে চান। আপনার সংগঠনিক কর্মকান্ড সঠিকভাবে করবেন। আপনাদের শক্তিশালী নেতৃত্বে দেশকে ভাল অবস্থায় নিতে পারবো।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, গণফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য মোকাব্বির খান এমপি। তিনি বলেন, আজ বাংলাদেশের ৭লক্ষ কোটি টাকা বিদেশে পাচার হয়েছে। দেশের পূঁজি বাজারকে ধ্বংস করা হয়েছে। সংসদে বলেছিলাম দুর্নীতি দমন করতে হলে শীর্ষ দুর্নীতিবাজদের চিহ্নিত করে বিশেষ ট্রাইবুনাল তৈরি করে বিচার শুরু করেন। দেশের শীর্ষ ১২জনকে দমন করতে পারলে দুর্নীতি ৫০ ভাগ কমে যাবে।
গণফোরাম চাঁদপুর জেলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম বাবুলের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি হিসেব আরও বক্তব্য রাখেন, গণফোরাম কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট মহসিন রশিদ, অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আহাম্মদ, দপ্তর সম্পাদক মো. আজাদ হোসেন।
এছাড়া আরো বক্তব্য রাখেন, কুমিল্লা জেলা গণফোরামের আহবায়ক আহসান আক্তার, জেলা গণফোরামের সহ-সভাপতি রুহুল আমিন হাওলাদার, শহর গণফোরামের সভাপতি আবুল খায়ের মিয়া, যুব বিষয়ক সম্পাদক বিজয় মজুমদার, শ্রমিক গনফোরামের সাধারন সম্পাদক শহীদ বকাউল, যুব গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক হাজী আশ্রাফ বাবু, মহিলা গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক শিল্পী বেগম, হাজীগঞ্জ উপজেলার সদস্য সচিব জসিম উদ্দিন, কচুয়া উপজেলা গণফোরামের সদস্য হারুনুর রশিদ প্রমুখ।
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াত করেন মো. নূরুল হক মিয়া ও গীতা পাঠ করেন গণফোরাম নেতা বাসুদেব মজুমদার।