মঙ্গল্বার ৩১ gvP© ২০২০
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » ২৯ মার্চ ইভিএম পদ্ধতিতে চাঁদপুর পৌরসভার ভোট মেয়র ও কাউন্সিলর পদে দেড় শতাধিক প্রার্থী


২৯ মার্চ ইভিএম পদ্ধতিতে চাঁদপুর পৌরসভার ভোট মেয়র ও কাউন্সিলর পদে দেড় শতাধিক প্রার্থী


আমাদের কুমিল্লা .কম :
18.02.2020

স্টাফ রিপোর্টার : চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচন আগামী ২৯ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে। রবিবার ১৬ ফেব্রæয়ারি চাঁদপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. হেলাল উদ্দিন বিষয়টি সাংবাদিকদেরকে নিশ্চিত করেছেন।
তিনি বলেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনের একই তারিখে চাঁদপুর পৌরসভা নির্বাচন হবে। ইভিএম পদ্ধতি নির্বাচন হবে এবং আমাদের সকল ধরণের প্রস্তুতি রয়েছে।
ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী জানাযায়, মনোনয়ন দাখিলের শেষ সময় ২৭ ফেব্রæয়ারি, মনোনয়নপত্র বাছাই ১ মার্চ, আপিল ২ থেকে ৪ মার্চ, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ৮ মার্চ, প্রতীক বরাদ্দ হবে ৯ মার্চ। আর ভোট গ্রহণ হবে ২৯ মার্চ।
তফসির ঘোষণার পর থেকেই মেয়র ও কাউন্সিলর পদে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিজ্ঞাপন তৈরি করে প্রার্থী ও প্রার্থীরা সমর্থকরা প্রচার-প্রচারণা শুরু করেছে। এছাড়াও ফেসবুকে বিভিন্ন ষ্ট্যাটাস দিয়ে দোয়া চাওয়া হচ্ছে।
চাঁদপুর পৌরসভার নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি ও ইসলামী আন্দোলনসহ বিভিন্ন দলের প্রায় এক ডজন প্রার্থী হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এছাড়াও ১৫টি ওয়ার্ডে ও ৫টি সংরক্ষিত আসনের আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দেড় শতাধিক কাউন্সিলর প্রার্থীর নাম শুনা যাচ্ছে।
মেয়র পদে চাঁদপুর পৌরসভার বর্তমান মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব নাছির উদ্দিন আহমেদ পুরনায় প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। এছাড়াও আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেতে দৌড় যাপ দিচ্ছেন ও ইতিপূর্বে গণসংযোগ করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. জিল্লুর রহমান জুয়েল, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. মজিবুর রহমান ভ‚ঁইয়া, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মাসুদ আলম মিল্টন এবং স্পেন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. জহিরুল ইসলাম নয়ন।
বিএনপি থেকে চাঁদপুর পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান ও বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শফিকুর রহমান ভ‚ঁইয়া, শহর বিএনপির সভাপতি আক্তার হোসেন মাঝি, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. নুরুল আমিন খান আকাশ ও জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কাজী মোহাম্মদ ইব্রাহীম জুয়েল। এছাড়াও জাতীয় পার্টি ও ইসলামী আন্দোলনসহ অন্য দলের প্রার্থীদের নাম এখনো জানা যায়নি।
কাউন্সিলর পদে সবচেয়ে বেশী প্রার্থী পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ড ও ১০নং ওয়ার্ডে। এবং সবচেয়ে কম প্রার্থী ১ নং ওয়ার্ডে বলে জানা যায়।
জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, চাঁদপুর পৌরসভায় হালনাগাদ পর্যন্ত ভোটার সংখ্যা ১ লাখ ১৬ হাজার ১শ’ ২২জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৫৯ হাজার ১শ’ ৬১ জন এবং মহিলা ভোটার ৫৬ হাজার ৯শ’ ৬১জন। তবে নির্বাচন পর্যন্ত এই সংখ্যা হালনাগাদের কারণে আরো বৃদ্ধি হতে পারে।
এর আগে ২০১৫ সালের ২৯ মার্চ চাঁদপুর পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করেছেন মোট ১শ’ ২৩জন প্রার্থী। এর মধ্যে মেয়র পদে ২জন, সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৯৪জন এবং সংরক্ষিত ৫টি ওয়ার্ডে মহিলা কাউন্সিলর পদে ২৭ জন।
নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত মোবাইল প্রতীক নিয়ে বর্তমান মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ পেয়েছেন সর্বমোট ভোট ৪৭ হাজার ১শ’ ৮ ভোট। স্বতন্ত্র পানির জগ প্রতীক নিয়ে তার অপর প্রতিদ্ব›দ্বী সাবেক চেয়ারম্যান সফিকুর রহমান ভূঁইয়া পেয়েছেন ১৬ হাজার ৯৭ ভোট।
২০১৫ সালে নির্বাচনের সময় পৌরসভার ১৫টি ওয়ার্ডের মোট ভোটার ছিলো ১ লাখ ১হাজার ১শ’ ২২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ছিলো ৫১ হাজার ৩শ ৪০ ও নারী ভোটার ৪৯ হাজার ৭শ ৮২ জন। ১৫টি ওয়ার্ডের জন্য মোট ভোট কেন্দ্র ছিলো ৪৯টি আর ভোট বুথ (কক্ষ) ৩শ ৪৫টি।