সোমবার ৩০ gvP© ২০২০
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » আধিপত্য নিয়ে দুই গ্রæপের সংঘর্ষে আহত ১৫ হুজুরের কাছে দোয়া প্রার্থনা নিয়ে মারামারির সূত্রপাত!


আধিপত্য নিয়ে দুই গ্রæপের সংঘর্ষে আহত ১৫ হুজুরের কাছে দোয়া প্রার্থনা নিয়ে মারামারির সূত্রপাত!


আমাদের কুমিল্লা .কম :
10.03.2020

মোর্শেদুল আলম শাজু,হোমনা: আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কুমিল্লার হোমনায় দুই গ্রæপের সংঘর্ষে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। এদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় একজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। উপজেলার আসাদপুর ইউনিয়নের কৃপারামপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় উভয় গ্রæপের পক্ষে মনোয়ারা বেগম এবং ইউনুছ মিয়া বাদী হয়ে ২১জনকে আসামি করে হোমনা থানায় দুইটি মামলা করেছেন। পুলিশ উভয় গ্রæপের তিনজনকে গ্রেফতার করে সোমবার আদালতে পাঠিয়েছে।
আহতরা হলেন- আবদুল হক (৪৫), হুমায়ুন কবীর (৪৫), মোকবল হোসেন (২৫), আবুল বাশার (৫৫), রুজিনা (২৫), হাসান সরকার (২৯), বাশির আহমেদ (৩৭), রুহুল আমিন (১৮), খাইরুল ইসলাম (৫২), মো. সজিব (১৯), সুরিয়া বেগম (৬০), নাসিমা বেগম (৩৫), মো. জাকির হোসেন (৩৬)। রাসেল (২০) এবং সাজেদুলকে (২০) প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এদের মধ্যে শামীম গ্রæপের আব্দুল হককে পায়ের রগ কাটা অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
সূত্র জানায়, উপজেলার আসাদপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামীম এবং বশির মিয়ার মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে পূর্ব থেকেই বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে উভয় গ্রæপের মধ্যে শনিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। কয়েকদিন আগে উপজেলারে চান্দেরচরে একটি ওয়াজ মাহফিলে দোয়া চলাকালে শামীম গ্রæপের এক লোক তাদের ওপরে চলা অত্যাচার থেকে মুক্তির জন্য হুজুরের কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন। এনিয়ে মারামারির সূত্রপাত।
আহত আব্দুল হকের বোন মনোয়ারা বেগম মনা জানান, আবদুল হককে বাড়ির পাশের রাস্তার পাশে বসা অবস্থায় রাম দা’, গরু জবাই করার ছুরি, চাপাতি, শাবল, হকিস্টিক নিয়ে আক্রমণ করে। তখন তার ভাই পাশর্^বতী শাহ আলমের বাড়িতে আশ্রয় নেয়। সেখানেও তারা কুপিয়ে ডান পায়ের রগ কেটে ফেলে।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক মো. আক্তার আলম জানান, মারামারির ঘটনায় আহত হয়ে ১৫ জন হাসপাতালে এসেছে। এদের মধ্যে ১২জনকে ভর্তি রাখা হয়েছে। আবদুল হক নামের রোগীর পায়ের হাড় ভেঙে গেছে এবং রগ কেটে গেছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় রেফার করা হয়েছে।
হোমনা থানার ওসি আবুল কায়েস আকন্দ জানান, রোববার থানায় উভয় পক্ষ দুইটি মামলা দায়ের করেছে। তিনজনকে গ্রেফতার করে সোমবার কোর্টে পাঠানো হয়েছে।