মঙ্গল্বার ২৬ †g ২০২০
  • প্রচ্ছদ » sub lead 2 » ভিক্টোরিয়ার শিক্ষার্থীদের তৈরি হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিনামূল্যে বিতরণ


ভিক্টোরিয়ার শিক্ষার্থীদের তৈরি হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিনামূল্যে বিতরণ


আমাদের কুমিল্লা .কম :
22.03.2020

আবু সুফিয়ান রাসেল।। কুমিল­া ভিক্টোরিয়া কলেজের শিক্ষার্থীরা হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করেছে। তৈরি করা এক হাজার ২৫৫ টি হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিনামূল্যে বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার কলেজ প্রাঙ্গণে এ আয়োজন করা হয়।
রসায়নের সহকারি অধ্যাপক ড. আব্দুল কুদ্দুসের নেতৃত্বে ২০জন শিক্ষার্থীর একটি দল তাদের নিজস্ব গবেষণাগারে এ হ্যান্ড স্যানিটাইজার তৈরি করে। হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. রুহুল আমিন ভূঁইয়া ও আদর্শ সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট আমিনুল ইসলাম টুটুল।
পথচারী, সংবাদ কর্মী, দোকানী, চালক, পথচারী , দিনমজুর, কলেজ কর্মচারীসহ শাসনগাছা বাস শ্রমিক ও জেলা সদরের বিভিন্ন ঝুকিপূর্ণ এলাকায় হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করা হয়।
কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. রুহুল আমিন ভূঁইয়া বলেন, ইতোমধ্যে বাজারে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সংকট দেখা দিয়েছে। দরিদ্র শ্রেণীর মানুষ পর্যাপ্ত হ্যান্ড স্যানিটাইজার ক্রয় করতে পারছে না। বিশ্বব্যাপী এই সংকট মুহূর্তে সমাজের বিত্তবান মানুষদের আর্থিক সহায়তা পেলে কলেজের নিজস্ব গবেষণাগারে উন্নতমানের স্যানিটাইজার তৈরি করা যাবে। কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারের ব্যক্তিগত তহবিল থেকে এক লাখ টাকা অনুদানের মাধ্যমে এ কার্যক্রম শুরু করেছি।
স্যানিটাইজার প্রস্ততি দলের নেতৃত্বে থাকা রসায়ন বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ড.আব্দুল কুদ্দুস বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নীতিমালা অনুসাওে আমাদের তৈরিকৃত হ্যান্ড স্যানিটাইজার এন্টিসেপটিক লোশনটি কোভিড-১৯ এর জীবানু প্রতিরোধ ছাড়াও যে কোন ধরণের জীবানু প্রতিরোধে শতভাগ কার্যকরি ভূমিকা রাখবে। প্রাথমিকভাবে আমরা ১২৫০ বোতল তৈরি করেছি। এতে বাজারে প্রচলিত স্যানিটাইজারের চেয়ে উন্নত মানের রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহার করা হয়েছে। এতে রয়েছে ৬৫ ভাগ আইসো প্রোপাইল অ্যালকোহল, ০.৫ ভাগ অলিভ অয়েল, ২ ভাগ গ্লিসারিন, ০.৫ ভাগ হাইড্রোজেন পার অক্সাইড , ৩২ ভাগ পাতিত পানি ও পারফিউম। কর্তৃপক্ষের সহায়তা পেলে শিক্ষার্থীদের নিয়ে স্যানিটাইজার তেরি কার্যক্রম অব্যাহত রাখা সম্ভব হবে।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপাধ্যক্ষ প্রফেসর ড. আবু জাফর খান, শিক্ষক পরিষদ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহজাহান, বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, স্যানিটাইজার প্রস্তুতকারী শিক্ষার্থী ও কলেজের কর্মচারীবৃন্দ।