রবিবার ৩১ †g ২০২০


মরে আকাশের দিকে চেয়ে আছেন হাজেরা! ছাতিপট্টিতে ত্রাণ নিতে এসে বিদ্যুত স্পৃষ্টে বৃদ্ধার মৃত্যু


আমাদের কুমিল্লা .কম :
05.04.2020

মাহফুজ নান্টু: বেলা ১২টা। বাড়ি থেকে ত্রাণ নিতে বের হয়েছিলেন নগরীর মৌলভীপাড়ার মৃত মোহন মিয়ার স্ত্রী হাজেরা বেগম(৬৫)। মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার কার্যালয়ের সামনে আসেন। মৌলভীপাড়া থেকে হেটে এসেছেন। শরীর ক্লান্ত। পাশে থাকা একটি ব্যাটারিচালিত অটোরিক্সায় বসে পান খাবেন বলে হাত দিয়ে অটোরিক্সাটি ধরেন। মুহূর্তেই বিদ্যুতায়িত হয়ে মারা যান হাজেরা বেগম। মায়ের মারা যাওয়ার সংবাদটি বিনা মেঘে বজ্রপাতের মত মনে হলো হাজেরা বেগমের ছেলে মেয়েদের কাছে। মৌলভীপাড়া থেকে দৌঁড়ে আসেন হাজেরা বেগমের সন্তানেরা। হাজেরা বেগমের লাশের পাশে সন্তানদের কান্নার শব্দে ভারী হয়ে উঠে মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার কার্যালয় আঙিনার পরিবেশ। এদিকে বৃদ্ধার বিদ্যুত স্পৃষ্টের ছবিটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ছবিতে দেখা যায় তিনি বিদ্যুত স্পৃষ্ট হয়ে আকাশের দিকে তাকিয়ে আছেন।
একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী লিখেছেন, লোভের আগুনে পুড়ে মানুষ মরে আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকবে এটাই স্বাভাবিক। লোভীদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার চাই।
মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমান জানান, যতটুকু জানি নগরীর ছাতিপট্টি মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার কার্যালয়ের পাশে সাধন শিল্পালয়ের স্বত্বাধিকারী চন্দন সরকার অটোরিক্সা চার্জের ব্যবস্থা করে দিতো। তবে বিদ্যুতের লাইনটি মুক্তিযোদ্ধা অফিসের না। তবে অটোরিক্সাটি মুক্তিযোদ্ধা কাম্পাউন্ডের ভেতরে রাখা ছিলো।
অটোরিক্সাটির মালিক শিপন জানান, মাসিক ২৭ শ টাকার বিনিময়ে তার অটোরিক্সাটি চার্জের ব্যবস্থা করে দিতো সাধন শিল্পালয়ের মালিক চন্দন সরকার। আজ বেলা সাড়ে ১২টার সময় তিনি অটোরিক্সা চালক মুরাদপুর এলাকার জিনাপুকুরপাড় এলাকার মহিউদ্দিনের ছেলে জালালের কাছ থেকে জানতে পারেন তাদের অটোরিক্সাটিতে বিদ্যুতায়িত হয়ে হাজেরা বেগম নামের একজন বৃদ্ধা মারা যান। সংবাদটি শিপনের কাছে বলে অটোরিক্সা চালক জালাল পলাতক রয়েছে। পুলিশ অটোরিক্সাসহ মালিক শিপনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।
এদিকে অবৈধ লাইন দেয়ার ব্যাপারটি অটোরিক্সার মালিক শিপন স্বীকার করলেও লাইনদাতা চন্দন সরকার স্বীকার করতে চাননি।
বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নিহত হাজেরা বেগমের তিন ছেলে চার মেয়ে। ছেলে মনিরুল ইসলাম ও মেয়ে স্বপ্না বলেন, আমার মায়ের মৃত্যুর জন্য যারা দায়ী তাদের বিচার চাই।
কুমিল্লা কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মো:আনোয়ারুল হক জানান,বৃদ্ধার লাশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অটোরিক্সার মালিক ও অটোরিক্সাটিকে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।