বুধবার ২৫ নভেম্বর ২০২০


হোমনায় প্রথম করোনা সনাক্ত, রোগীর বাড়ি ও গাজী ডায়াগনস্টিক সেন্টার লকডাউন


আমাদের কুমিল্লা .কম :
16.04.2020

মোর্শেদুল ইসলাম শাজু ,হোমনা।।
কুমিল্লার হোমনায় প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।  কয়েকদিন আগে ওই নারী উপজেলা সদরে গাজী ডায়াগনস্টিক সেন্টারেও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে গিয়েছিল।
এর পরিপ্রেক্ষিতে বুধবার সন্ধ্যার পরে ওই রোগীর বাড়িসহ পুরো গ্ৰাম এবং সদরের ডায়াগনস্টিক সেন্টারটিও  সম্পূর্ণ লকডাউন ঘোষণা করেছে প্রশাসন।
ওই দিন সন্ধ্যায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাপ্তি চাকমা উপজেলার দুলালপুর ইউনিয়নের মঙ্গলকান্দি গ্রাম এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংলগ্ন গাজী  ডায়াগনস্টিক সেন্টারে উপস্থিত হয়ে গ্ৰাম ও ডায়গনস্টিক সেন্টারটি সম্পূর্ণ লকডাউন ঘোষণা করেন। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে ওই গ্রামে প্রবেশ এবং বাহির হওয়ার পথ।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন- থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মো. আবুল কায়েস আকন্দ, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মো. আব্দুছ ছালাম সিকদার ও সহকারী সার্জন ডাক্তার মো. মাহবুবুর রহমান প্রমুখ।
গত ১১ তারিখ বিকেলে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ দেখা দেওয়া ওই এলাকার ৩৫ বছর বয়সী এক নারীর স্যাম্পল কালেকশন করে আইইডিসিআর ঢাকায় পাঠায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল টিম।
আজ বিকেলে ওই নারীর করোনাভাইরাস পজেটিভ রিপোর্ট পাওয়া যায়।  এতে উপজেলার মঙ্গলকান্দি গ্রামসহ সর্বত্র আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।
  এদিকে একই দিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দুজন ডাক্তারসহ মোট তিনজনের স্যাম্পল কালেকশন করে আইইডিসিআর ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।
স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার আব্দুছ ছালাম সিকদার, ডাক্তার মাহবুবুর রহমান, ডাক্তার নিবিড় লুৎফূন নাহারের তত্ত্বাবধানে স্যাম্পল কালেকশন করেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল টেকনোলজিস্ট মো. দেলোয়ার হোসেন।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার আব্দুছ ছালাম সিকদার বলেন, আমরা গত ১১ তারিখে দুইজনের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠিয়েছিলাম। এদের মধ্যে একজনের পজেটিভ এসেছে। বর্তমানে তার স্বাস্থ্যের অবস্থা অনেকটাই ভালো। সে ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছে ইনশাআল্লাহ।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) চাকমা বলেন, বিকেলে উপজেলার মঙ্গলকান্দি গ্রামের এক নারির করোনা ভাইরাস  পজিটিভ রিপোর্ট আসে। এর পরিপ্রেক্ষিতে তার বাড়ি এবং সে উপজেলা সদরের গাজী ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করায় সেটিও সম্পূর্ণ লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।