শনিবার ৩০ †g ২০২০


আর্জেন্টিনা হারলে সবার আগে কাঁদে মেসি: আগুয়েরো


আমাদের কুমিল্লা .কম :
28.04.2020

স্পোর্টস ডেস্ক।।
নিজের সর্বোচ্চটা নিংড়ে দিচ্ছেন প্রতি ম্যাচেই। আর্জেন্টিনাকে ২০১৪ বিশ্বকাপের ফাইনালে তোলার পরের দুই বছরেও নিয়ে গিয়েছিলেন কোপা আমেরিকার শিরোপা জেতার মঞ্চে। এরপরও নিন্দুকদের মুখ বন্ধ হয়নি। খোদ আর্জেন্টাইনরাই সমালোচনার তীরে বিদ্ধ করেন লিওনেল মেসিকে! কিন্তু কেন? সেই কারণটাই খুঁজে পান না সের্হিয়ো আগুয়েরো।

বার্সেলোনার জার্সিতে এমন কোনও শিরোপা নেই, যেটি জেতা হয়নি মেসির। ব্যক্তিগত পুরস্কারেও তার ট্রফিকেস ভরা। এক একটি ট্রফিই আছে চার-পাঁচটি করে। কিন্তু আর্জেন্টিনার জার্সিতে শুধুই হাহাকার। ক্লাব ফুটবলে লা লিগা, কোপা দেল রে, চ্যাম্পিয়নস লিগ কিংবা ক্লাব বিশ্বকাপের ট্রফি বারবার উদযাপন করা এই তারকার কোনও সাফল্য নেই জাতীয় দলের জার্সিতে।

নিন্দুকেরা বলে থাকেন- বার্সেলোনায় মেসি যতটা মনপ্রাণ উজাড় করে খেলেন, আর্জেন্টিনার হয়ে অতটা মন দিয়ে খেলেন না তিনি। জাতীয় দলের জন্য নাকি ভালোবাসা নেই মেসির। তার জাতীয় দল সতীর্থ আগুয়েরো এই সমালোচনার কোনও কারণ খুঁজে পান না। ম্যানচেস্টার সিটি ফরোয়ার্ড আর্জেন্টিনার প্রতি মেসির ভালোবাসার জায়গা বোঝাতে গিয়ে জানিয়েছেন, দল হারলে সবার আগে কাঁদেন বার্সেলোনা তারকা।

২০১৪ বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনাকে রানার্স-আপ হতে হয় জার্মানির কাছে হেরে। এরপর ২০১৫ ও ২০১৬ সালের কোপা আমেরিকায় টানা দুইবার ফাইনালে হারে তারা চিলির কাছে। এই যন্ত্রণায় মেসির অবসরের গুঞ্জনও শোনা গিয়েছিল। যদিও ফিরে এসে ২০১৮ বিশ্বকাপেও খেলেছেন তিনি। কিন্তু রাশিয়ার বিশ্বকাপে ফ্রান্সের কাছে হেরে আলবিসেলেস্তেরা শেষ ষোলো থেকে বিদায় নিলে আবারও আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে দূরে যান তিনি। যদিও ‍গত বছর কোপা আমেরিকায় ফিরে মেসি আর্জেন্টিনাকে তুলেছিলেন সেমিফাইনালে।

এত এত সমালোচনার পরও মেসির বারবার ফিরে আসার উদাহরণ টেনে আর্জেন্টাইন টিভি চ্যানেল টিওয়াইস স্পোর্টসকে ম্যানসিটি তারকা বলেছেন, ‘আমি আসলে তাদেরকে বুঝতে পারি না, যারা মেসির জাতীয় দলের খেলা নিয়ে সমালোচনা করে। দল হারলে সে (মেসি) সবার আগে কাঁদে এবং আবারও ফিরে আসে।’

ম্যান সিটির সঙ্গে আগুয়েরোর চুক্তির মেয়াদ ২০২১ সাল পর্যন্ত। যদিও করোনাভাইরাসে এবারের মৌসুমের ভাগ্যে কী আছে বলা মুশকিল, সেখানে নতুন চুক্তি নিয়ে ভাবার সুযোগ দেখছেন না আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড, ‘এখন আমি আসলে কিছুই ভাবছি না। এই ব্যাপারে সব ক্লাবই সমস্যার মধ্যে আছে। কবে লিগ শুরু হবে, বলা যাচ্ছে না।’