বৃহস্পতিবার ৪ জুন ২০২০


আটকে পড়া শ্রমিক-শিক্ষার্থীদের বাড়ি ফেরার অনুমতি ভারতে


আমাদের কুমিল্লা .কম :
29.04.2020

বিদেশ ডেস্ক
মহামারি করোনাভাইরাস প্রতিরোধে দেশজুড়ে একমাসের বেশি সময় ধরে চলা লকডাউনে ভারতে যে লাখ লাখ মানুষ বাড়ির বাইরে অন্যত্র আটকা পড়ে রয়েছেন তাদের বাড়ি ফেরার অনুমতি দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বুধবার এ সংক্রান্ত একটি নোটিশ জারি করা হয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদন অনুযায়ী, ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জারিকৃত ওই নোটিশে বলা হয়েছে, ‘যারা নিজের রাজ্যে ফিরতে চান, তারা যেখান থেকে যাত্রা শুরু করবেন সেখানে একবার এবং নিজ রাজ্যে দ্বিতীয়বার তাদের স্ক্রিনিং করা হবে। যাদের উপসর্গ নেই, তারাই ছাড়া পাবেন। এছাড়া বাড়িতে ফিরেই থাকতে হবে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে।’

ভারতে গত ২৫ মার্চ আচমকা দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। ফলে অনেক পরিযায়ী শ্রমিক বিভিন্ন রাজ্যে আটকা পড়েছেন। নিজ রাজ্যের বাইরে বিভিন্ন রাজ্যে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী ছাড়াও অনেক পর্যটকও রয়েছেন এই তালিকায়। ফলে সরকারের নতুন এই নির্দেশনার কারণে এখন শর্তসাপেক্ষে তারা বাড়ি ফিরতে পারবেন।

শ্রমিকদের কীভাবে ফেরানো হবে তার জন্য দেশটির রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলোকে নোডাল অফিসার নিয়োগ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। তাতে বলা হচ্ছে, এই অফিসাররা স্ব-স্ব রাজ্যে আটকে পড়া ব্যক্তিদের তালিকা তৈরি করে যথাযথ নিয়ম মেনে তাদেরকে ঘরে ফেরানোর ব্যবস্থা করবেন। কেউ ব্যক্তিগতভাবে বাড়ি ফিরতে পারবেন না।

ভারতে লকডাউন ঘোষণার পর থেকে বিভিন্ন জায়গায় অসুবিধায় পড়েছেন পরিযায়ী শ্রমিকেরা। টাকার অভাবে না খেয়ে দিনযাপন করতে হচ্ছে অনেককে। কেউ আবার শত শত কিংবা হাজার মাইল পায়ে হেঁটে বাড়ির পথে রওয়ানা দিয়েছেন। অনেকে ক্লান্ত হয়ে পথে মারা গেছেন, ধর্ষণের শিকারও হয়েছেন কেউ কেউ। পরিস্থিতি দিন দিন আরও জটিল হচ্ছিল।

প্রসঙ্গত, ভারতে দ্বিতীয় দফার লকডাউনের মেয়াদ প্রায় শেষের পথে। আগামী ৩ মে এর মেয়াদ শেষ হয়েছে। তৃতীয় দফায় লকডাউনের মেয়াদ বাড়বে কি না, সেই জল্পনার পাশাপাশি দেশটিতে বেড়ে চলেছে করোনা-আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা। গত একদিনে সর্বোচ্চ ৭৩ জন মারা গেছেন। মোট মৃত্যু হাজার ছাড়িয়েছে; আক্রান্তও প্রায় ৩২ হাজার।