বুধবার ৮ জুলাই ২০২০


চান্দিনা পরিষদের কর্মচারী আক্রান্ত,ইউএনও হোম কোয়ারেন্টাইনে


আমাদের কুমিল্লা .কম :
02.05.2020

মাসুমুর রহমান মাসুদ, চান্দিনা।।
কুমিল্লার চান্দিনায় নতুন করে করোনা পজেটিভ হয়েছেন উপজেলা পরিষদের একজন কর্মচারী পুরুষসহ (৫২) দুইজন। অপর ব্যক্তি মহারং গ্রামের বাসিন্দা পুরুষ ১০০বছরের মতিন মুন্সী। শনিবার দুপুরে আইইডিসিআর থেকে ওই দুইজনের করোনা পরীক্ষার ফলাফলে পজেটিভ রিপোর্ট আসে। চান্দিনা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আহসানুল হক মিলু বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
এই রিপোর্টের পর চান্দিনা উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্নেহাশীষ দাশ ও তার গাড়ি চালককে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা।
এছাড়া উপজেলার মাইজখার ইউনিয়নের কাশারীখোলা গ্রামের একজন শীতল রায় (৬০) জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টসহ শুক্রবার দুপুরে মারা যান। স্থানীয়রা খবর পেয়ে লাশ অন্তোষ্টিক্রিয়ায় বাঁধা দেয়। পরে চান্দিনা থানার অফিসার ইন-চার্জ মো. আবুল ফয়সল সহ থানা পুলিশ ও উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। মৃত ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহের পর তার অন্তোষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়। পরে মৃত ব্যক্তির স্ত্রী ও ছেলের নমুনাও সংগ্রহ করা হয়।
এনিয়ে চান্দিনায় মোট নয়জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছেন।
এদিকে শনিবার ওই মৃত ব্যক্তির করোনা পজেটিভ রিপোর্ট আসায় এলাকায় বিষয়টি জানাজানি হয়। এতে জানাজায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দেয়। মৃত ব্যক্তির মহারং মুন্সী বাড়ির বাস ভবন লকডাউন করে প্রশাসন।
অপরদিকে চান্দিনা উপজেলা পরিষদের একজন কর্মচারী করোনা পজেটিভ হওয়ায় গত কয়েকদিন ধরে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা, ত্রাণ বিতরণসহ বিভিন্ন কার্যক্রমে উপজেলায় যাতায়াতকারীরাও আতঙ্কগ্রস্থ হয়ে পড়েছেন।
এ ব্যাপারে চান্দিনা উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্নেহাশীষ দাশ জানান, ওই কর্মচারী উপজেলা চত্বরের ডরমেটরিতে থাকেন। ফলে আটজন কর্মকর্তা-কর্মচারী ও তাদের পরিবারসহ ওই ডরমেটরিটি লকডাউন করা হয়। এদিকে উপজেলা পরিষদের কর্মচারী করোনা পজেটিভ হওয়ায় উপজেলা পরিষদে সর্বসাধারণের আগমন ও প্রস্থান সীমিত করা হয়েছে।
উপজেলা প্রশাসনের এই কর্মকর্তা জানান, ওই কর্মচারী আমার অফিসে সার্বক্ষণিক কাজ করতেন। তাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আমাকে এবং আমার গাড়ি চালককে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। আমি ওই পরামর্শ অনুযায়ী উপজেলা চত্বরের ইউএনও বাসভবনে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছি।

উল্লেখ্য, এর আগে গত শুক্রবার চান্দিনা উপজেলা সদরের ধানসিঁড়ি আবাসিক এলাকার মা-ছেলেসহ আরও তিনজন করোনা আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হন। এদের একজন অবসরপ্রাপ্ত বিজিবি সদস্য। এছাড়া চান্দিনায় গত ১৪ এপ্রিল একজন প্যাথলজি টেকনেশিয়ান, ১৫ এপ্রিল একজন এমবিবিএস ডাক্তার, একজন এক্স-রে টেকনেশিয়ান ও একজন প্রবাসী করোনা আক্রান্ত হন।