বৃহস্পতিবার ৪ জুন ২০২০


বেহাল কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়ক; বৃষ্টিতে বেড়েছে দুর্ভোগ


আমাদের কুমিল্লা .কম :
11.05.2020

মহিউদ্দিন মোল্লা ।।
কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের বেহাল দশা দীর্ঘদিনের। কয়েকদিনের বৃষ্টিতে পরিবহন চালক ও যাত্রীদের দুর্ভোগ চরমে উঠেছে। এতে ভোগান্তিতে পড়ছেন কুমিল্লা, চাঁদপুর,নোয়াখালী,লক্ষীপুরের বিভিন্ন উপজেলার পণ্যবাহী পরিবহন চালক ও ছোট পরিবহনের যাত্রীরা।
যাত্রী ও পরিবহন চালকদের সূত্র জানায়, তিন বছর ধরে কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের বেহাল অবস্থা বিরাজ করছে। এতে দুর্ভোগে পড়ছেন এই সড়কে চলাচল করা হাজারো গাড়ির যাত্রীরা। ভাঙা সড়কে গাড়ি চালাতে গিয়ে সময় নষ্ট আর গাড়ি বিকল হওয়ায় ক্ষুব্ধ পরিবহন মালিক এবং শ্রমিকরা। কুমিল্লা পদুয়ার বাজারের পর থেকে ভাঙা শুরু। বেশি খারাপ অবস্থা বাগমারা বাজার ও লাকসাম বাইপাসের দক্ষিণ অংশে। এছাড়া লালমাই,হরিশ্চর, লাকসাম জংশন,লাকসাম বাইপাস,চন্দনা,কৃষ্ণপুর, খিলা, নাথেরপেটুয়া, বিপুলাসার, সোনাইমুড়ি, বেগমগঞ্জ থানা এলাকাসহ মাইজদীর বিভিন্ন অংশে ভাঙা রয়েছে।
মহাসড়কের লাকসামের দৌলতগঞ্জ বাজার দক্ষিণ বাইপাসে পানি জমে বড় বড় গর্ত হয়ে আছে। লালমাই উপজেলার বাগমারা বাজারের দক্ষিণ অংশে এক সপ্তাহ ধরে পানি জমে আছে। রাস্তা নষ্ট হয়ে সেখানে যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।
সড়ক ও জনপথ বিভাগ কুমিল্লার তথ্যমতে,কুমিল্লা নগরীর টমছম ব্রিজ থেকে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ পর্যন্ত ৫৯ কিলোমিটার ফোরলেন উন্নীতকরণের কাজ চলছে। কাজ শেষ হলে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের কুমিল্লা,চাঁদপুর,নোয়াখালী,লক্ষীপুর জেলাসহ সারা দেশের মানুষ উপকৃত হবে। ২০১৮সালের সেপ্টেম্বর মাসে শুরু হওয়া কাজ ২০২০সালের জুন মাসে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। এর ব্যয় ধরা হয়েছে দুই হাজার ১৭০কোটি টাকা। তবে কাজের ধীরগতির কারণে তা আরো দুই বছরেও শেষ হওয়ার সম্ভাবনা নেই বলে মনে করেন পরিবহন শ্রমিকরা।
দৌলতগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী জসিম উদ্দিন বলেন,দৌলতগঞ্জ বাজারের দক্ষিণ বাইপাসের বেহাল অবস্থা। এতে বাণিজ্যিক কেন্দ্র খ্যাত দৌলতগঞ্জের ব্যবসায়ী ও ক্রেতারা ভোগান্তিতে পড়ছেন। এই বাইপাসের কাজটি দ্রুত শেষ করার অনুরোধ জানাচ্ছি।
কুমিল্লা ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম বলেন,সড়ক ভাঙা হওয়ায় ঘন ঘন গাড়ি বিকল হচ্ছে। দ্রুত সড়কটি মেরামত করা না হলে গাড়ি চালানো অসম্ভব হয়ে পড়বে। এছাড়া করোনা সংকট কেটে গেলে বাসসহ অন্য পরিবহন চলাচল বেড়ে যাবে। তখন রাস্তায় আরো চাপ বেড়ে যাবে। তাই দ্রুত সড়কটি সংস্কার করা প্রয়োজন।
সড়ক ও জনপথ বিভাগ কুমিল্লার নির্বাহী প্রকৌশলী ড.মো. আহাদ উল্লাহ বলেন, সড়কের যেখানে প্রয়োজন সেখানে সংস্কার করা হচ্ছে। এদিকে ফোরলেন প্রকল্পে লাকসাম দৌলতগঞ্জ বাজারের বাইপাস ও লালমাই উপজেলার বাগমারা বাজার অংশের ফোরলেনের ভূমি অধিগ্রহণের কাজ করোনা সমস্যার শেষে শুরু করা যাবে বলে তিনি আশা করেন।