বৃহস্পতিবার ৪ জুন ২০২০


কার্ডের নামে মহিলা মেম্বারের বাণিজ্য, প্রতিবাদ করায় ছাত্রলীগ নেতার বাবাকে মারধর


আমাদের কুমিল্লা .কম :
18.05.2020

মাসুদ আলম।।
কুমিল্লার নাঙ্গলকোটের পুজকরায় খাদ্য সহায়তার কার্ড করে দেয়ার কথা বলে টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক মহিলা ইউপি সদস্যের(মহিলা মেম্বার) বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ইউপি সদস্য নাঙ্গলকোট উপজেলার আদ্রা দক্ষিণ ইউনিয়নের ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার হাজেরা আক্তার বুলু। সহায়তার কার্ডের নামে টাকা নেওয়ার প্রতিবাদ করায় রবিবার স্থানীয় এক ছাত্রলীগ নেতার ৬০ বছরের বৃদ্ধ বাবাকে মসজিদের ভিতর থেকে ডেকে নিয়ে মারধরে আহত করে ওই মহিলা মেম্বারের স্বামী ও ছেলে। বর্তমানে তিনি নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আহত বৃদ্ধ পুজকরা ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন বাবা আবদুল খোকন।
ছাত্রলীগ নেতা জসিম উদ্দিন ও স্থানীয়রা জানান, মে মাসের প্রথম দিকে পুজকরা গ্রামের ৩০ এর অধিক পরিবারের নামে সহায়তার কার্ড করে দিবেন বলে জানান মহিলা মেম্বার। কার্ড কারার নামে তিনি প্রতি পরিবারের কাছ থেকে এক হাজার টাকা হারে চাঁদা আদায় করেন। পরবর্তীতে ভুক্তভোগীরা ত্রাণের কার্ড এবং সহায়তা না পেয়ে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের কাছে অভিযোগ করেন। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে স্থানীয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন প্রতিবার করলে তাকে না পেয়ে রবিবার আসরের নামাজের পূর্বে মসজিদ থেকে ডেকে নিয়ে তার বাবা আবদুল খোকনকে মারধর করে ইউপি মহিলা সদস্য বুলুর স্বামী আনিছুল হক ও ছেলে সাইফুল।
কার্ডের জন্য টাকা দেওয়া পুজকরা গ্রামের দিনমজুর সেকান্দর আলী জানান, মহিলা মেম্বার হাজেরা আক্তার বুলু আমাদেরকে সহায়তার কার্ড করে দিবে বলে এক হাজার টাকা করে নিয়েছে। আজ পর্যন্ত কার্ড পাইনি, টাকাও পাইনি। প্রতিবাদ করতে গেলে তার ছেলে সাইফুল মারধরের হুমকি দিচ্ছেন। তার মা মেম্বার বলে সেই এলাকায় সন্ত্রাসী কর্মকা- করে আসছে। সব সময় মানুষ তার জন্য আতঙ্কে থাকে।
একই কথা বলেছেন ওই গ্রামের নির্মাণ শ্রমিক ফখরুল ও দিনমজুর মহিন। তাদের অভিযোগ, খাদ্য সহায়তার কার্ডের কথা বলায় আমরা টাকা দিয়েছে। এখনও কার্ড পাইনি।
এবিষয়ে অভিযুক্ত মহিলা মেম্বার হাজেরা আক্তার বুলু জানান, আমি কোন ব্যক্তিকে ত্রাণ সহায়তার কথা বলে কার্ডের কথা বলেনি এবং টাকাও নেওয়া হয়নি। আমার বিরুদ্ধে অভিযোগগুলো রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত। আমার ছেলেও ছাত্রলীগ করে। তাকে সকালে মারধর করায় সেইও বিকেলে প্রতিবাদ করতে যায়।
আদ্রা দক্ষিণ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. আবদুল ওহাব জানান, খাদ্য সহায়তার কার্ড দিবে বলে টাকা নেওয়ার বিষয়টি সম্পর্কে আমি জানি না। তবে দুই পক্ষের মধ্যে মারধরের ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয়ভাবে আমরা সমাধানের চেষ্টা করছি।