সোমবার ১ জুন ২০২০
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » কুমিল্লা ভাতা প্রদানে মানা হচ্ছে না সামাজিক দূরত্ব, অনিয়মের অভিযোগ


কুমিল্লা ভাতা প্রদানে মানা হচ্ছে না সামাজিক দূরত্ব, অনিয়মের অভিযোগ


আমাদের কুমিল্লা .কম :
18.05.2020

আবু সুফিয়ান রাসেল।।
কুমিল্লায় সরকারি ভাতা বিতরণে নেই সামাজিক দূরত্ব। ভাতা বিতরণের সময় ব্যাংকগুলো বাংলাদেশ ব্যাংক ও সমাজসেবা অধিদপ্তরের নির্দেশনা মানা হচ্ছে না। রয়েছে অনিয়মের অভিযোগ।
সূত্র জানায়, কুমিল্লা জেলায় বয়স্ক ভাতা ১ লক্ষ ৬১ হাজার ৩৭১ জন, বিধাবা ও স্বামী নিগৃহীতা ৪৫ হাজার ৭শ ১৬, প্রতিবন্ধী ৬০ হাজার ১৮৭, উপবৃত্তি ২ হাজার ৪৭, বেদে সম্প্রদায় ৬শ ৮৩, হিজড়া ১শ ১২, হিজড়া সন্তান শিক্ষা বৃত্তি ২০ জন ভাতা পেয়ে থাকেন। ব্যাংকে লেনদেনের ক্ষেত্রে এ সময়ে সামাজিক দূরত্ব মেনে কাজ করার জন্য নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার কুমিল্লা সোনালী ব্যাংক ওয়াপদা শাখায় ভাতা বিতরণে এসব অনিয়ম দেখা যায়। এছাড়াও সোনালী ব্যাংকের অন্যান্য শাখাগুলোতে খবর নিয়ে এসব অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া যায়। ব্যাংকে অফিস সহকারী ও আনসার সদস্যদের একাংশ তালিকায় নাম তোলা, টাকা বিতরণকালে ১০০-৫০০ টাকা পর্যন্ত রেখে দেন বলে অভিযোগ রয়েছে। যারা টাকা দেন, তাদের লাইনে অপেক্ষা করতে হয় না। অন্যথায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে অপেক্ষা করতে হয় ।
ভাতাভোগী সাজেদা খাতুন মন্তব্য করেন, আমরা বুড়া (বয়স্ক) মানুষ। কানে শুনি না, ঠিক মতো হাঁটতে পারি না। স্যারদের কোন কথা জিজ্ঞাস করলেই ধমক দেয়। সারাদিন রোজা থেকে ৪-৫ ঘণ্টা রোদে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে কষ্ট হয়। যাদের লোক আছে, টাকা দিতে পারে তারা আগে ভাতা পেয়ে যায়।
কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন ২২ নং ওয়ার্ড সচিব মো. ফারুক পাটোয়ারী বলেন, অতিরিক্ত টাকা নেওয়ার বিষয়টি সত্য। তাদের মাসে ৫শ টাকা ভাতা দেওয়া হয়, ছয় মাসে তিন হাজার। এ টাকা থেকে কিছু ব্যাংকের কিছু অসাধু লোক অতিরিক্ত টাকা রাখেন। ভাতা বিতরণকালে স্ব- স্ব ওয়ার্ডের সচিব বা প্রতিনিধিগণ উপস্থিত থাকেন। করোনা ভাইরাসের কারণে কাজের প্রচন্ড চাপ, ফলে ব্যাংকে সময় দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।
সোনালী ব্যাংক ওয়াপদা বিল্ডিং শাখা ম্যানাজার মো. আজাদ জানান, সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে আমরা ভাতা বিতরণ কার্যক্রম ব্যাংকে না করে, তার পাশে স্কুলে পরিচালনা করছি। চেষ্টা করে যাচ্ছি সরকারি নির্দেশন মেনে কাজ করার, মানুষ বেশী হওয়ায় তা যথাযথ ভাবে পালন করা যাচ্ছে না। আর অতিরিক্ত টাকা আদায় বিষয়ে আমার নিকট একাটি অভিযোগ এসেছে। কে বা কারা এ টাকা নিয়েছে যদি তাদের সুনির্দিষ্ট করে বলতে পারে আমরা ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। এ শাখার আনসার সদস্যদের কঠোর ভাবে বলা হয়েছে, কারও থেকে যেন অতিরিক্ত ফি না নেওয়া হয়। প্রবীণ নাগরিকদের সাথে যেন ভালো ব্যবহার করা হয়।
জেলা সমাজ সেবা অধিদপ্তর উপ-পরিচালক জেড.এম মিজানুর রহমান জানান, ভাতা উত্তোলনের সময় কোথায়ও অতিরিক্ত টাকা দিতে হয় না। সরকার অসহায় নাগরিকদের জন্য এ সেবা চালু করেছেন। যাতের সাথে সুন্দর ব্যবহার করা, সামাজিক দূরত্ব মানা, ভাতা প্রদানের সময় সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড বা ইউনিয়নের প্রতিনিধি ব্যাংকে থাকার জন্য জরুরি নির্দেশনা গত ৫ মে প্রদান করা হয়েছে। এটি সরকারের একটি নিয়মিত কর্মসূচি।