শুক্রবার ৭ অগাস্ট ২০২০


খাল ভরাটে পানিবন্দী ২০০ পরিবার


আমাদের কুমিল্লা .কম :
13.06.2020

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি ।।
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার ভলাকুট ইউপির কান্দিপূর্ব গ্রামের একটি সরকারি খাল দখল করে বালি দিয়ে ভরাট করায় ওই এলাকার প্রায় ২০০ পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন।
স্থানীয় প্রভাবশালী মাজহারুল হক মেরাজ এ খালটি ভরাট করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী।
এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য গত বৃহস্পতিবার এলাকাবাসী নাসিরনগরের ইউএনওর কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী।
লিখিত অভিযোগে বলা হয়, উপজেলার ভলাকুট ইউপির কান্দিপূর্ব গ্রামের ভলাকুট মৌজার ১১৭৫৭ দাগের সরকারি খালটি দখল করে বালি দিয়ে ভরাট করে ফেলেছেন একই এলাকার মাজহারুল হক মেরাজ নামে একজন প্রভাবশালী। এতে করে ওই এলাকার ২০০ পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন। এ নিয়ে প্রতিবাদ করলে তিনি গ্রামবাসীকে মামলার হুমকি দেন।
গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিরা ওই ব্যক্তিকে সরকারি খালটির দখল ছাড়তে অনুরোধ করলেও তিনি কারো কথা শুনেননি।
ভুক্তভোগী জসিম উদ্দিন, জাকির হোসেন, জায়েদা আক্তার, জাহানারা বেগম, আছিয়া বেগম, হোসনা বেগম অভিযোগ করে বলেন, গত কয়েকদিনের বৃষ্টিতে আমাদের বাড়িতে, রাস্তায় পানি জমেছে, বাড়ির টয়লেট, রান্নার চুলা পানির নিচে। সরকারি খাল দখল করে ভরাট করে ফেলার কারণে আমরা জলাবদ্ধতার শিকার। এ নিয়ে প্রতিবাদ করায় গ্রামের ২২ জনকে আসামি করে একটি মামলাও দায়ের করেছেন প্রভাবশালী মেরাজ।
এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মাজহারুল হক মেরাজ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এটা সরকারি খাল নয়, আমাদের ব্যক্তি মালিকানা জায়গার উপর দিয়ে পানি নিষ্কাশন হচ্ছে। এতে আমাদের কোনো বাধা নেই। পাশ্ববর্তী লোকজন জায়গা-জমি ভরাট করায় আমাদের জায়গাও ভরাট করছি। সরকারি খাল দখলের প্রশ্নই উঠে না।
এ ব্যাপারে ভলাকুট ইউপি চেয়ারম্যান রুবেল মিয়া বলেন, স্থানীয়ভাবে আমরা এ সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করেছি। কিন্তু মাজহারুল হক মেরাজ কারো কথা শুনতে চায় না। তিনি জোরপূর্বক সরকারি খাল দখল করে রেখেছেন। কেউ প্রতিবাদ করলে তার বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে হয়রানি করেন। এ পর্যন্ত তিনি এলাকাবাসীর বিরুদ্ধে দুইটি মামলা করেছেন।
এ ব্যাপারে নাসিরনগর ইউএসও নাজমা আশরাফী বলেন, ভলাকুট ইউপির কান্দি গ্রামে থেকে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।