শুক্রবার ৭ অগাস্ট ২০২০
  • প্রচ্ছদ » sub lead 1 » চান্দিনা ও দেবিদ্বারে করোনায় মৃতদের দাফনে স্বেচ্ছাসেবকলীগের ১০১সদস্যের টিম


চান্দিনা ও দেবিদ্বারে করোনায় মৃতদের দাফনে স্বেচ্ছাসেবকলীগের ১০১সদস্যের টিম


আমাদের কুমিল্লা .কম :
15.06.2020

চান্দিনা প্রতিনিধি।।
কুমিল্লার চান্দিনা ও দেবিদ্বারে করোনায় মৃতদের দাফনে কুমিল্লা উত্তর জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের উদ্যোগে জেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য মো. লিটন সরকারের নেতৃত্বে ১০১সদস্যের টিম গঠন করা হয়েছে।

বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থা ও বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্য বিধি মেনে, সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে পিপিই পরে ইতিমধ্যে এই টিমের সদস্যরা করোনা আক্রান্ত ও করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করা ৯ জনের লাশ গোসল, জানাযা, দাফন ও দাহ করেছেন ।চান্দিনা ও দেবিদ্বারে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সর্বশেষ গত শনিবার (১৩ জুন) দুপুরে চান্দিনা উপজেলার হারং গ্রামে করোনা আক্রান্ত রোগী ওমান প্রবাসী মো. জসিম উদ্দিন এর গোসল, জানাযা ও দাফন করেন এই টিমের সদস্যরা। এই কাজ চলমান থাকতেই খবর আসে একই উপজেলার বেলাশ^র গ্রামে করোনা উপসর্গ নিয়ে হিন্দু ধর্মাবলম্বী জ্যোতি রাণী শর্মা এর মৃত্যু হয়। পরে সন্ধ্যায় ওই টিমের মহিলা সদস্যদের নিয়ে জ্যোতি রাণী শর্মার লাশও সৎকার করেন তারা।

এব্যাপারে চান্দিনা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাংগঠনিক সম্পাদক দৈনিক যুগান্তর প্রতিনিধি মো. আবদুল বাতেন জানান, দীর্ঘ ১১ দিন জ¦র ও শ^াসকষ্ট নিয়ে আমাদের সংগঠনের সহ-সভাপতি দৈনিক ভোরেরডাক প্রতিনিধি গোলাম মোস্তফা গত বৃহস্পতিবার (১১ জুন) ইন্তেকাল করেন। তার নিকটাত্মীয়রা কেউ লাশের কাছে যাচ্ছিল না। পরে আমরা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মো. লিটন সরকারকে বিষয়টি অবহিত করি। এই সময় তিনি চান্দিনার সাহাপাড়া এলাকায় করোনায় মৃত ব্যবসায়ী কিংকর সাহার লাশ দাহ করছিলেন। পরে ওখানে সব কাজ শেষ করে বিকেলে সাংবাদিক গোলাম মোস্তফার লাশ চান্দিনার বাসা থেকে তার গ্রামের বাড়ি মাইজখার ইউনিয়নের কাশারীখোলায় নিয়ে যান ১০১ সদস্যের টিম। সন্ধ্যায় গোসল, জানাযা ও দাফন কাজ শেষ করেন।

জানা যায়, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মো. লিটন সরকার এর আহ্বানে সারা দিয়ে দেবিদ্বার ও চান্দিনার এক ঝাঁক তরুণ-তরুণী স্বেচ্ছায় এই মানবিক কাজে অংশগ্রহণ করছেন। এদের মধ্যে আবদুল হক নামের একজন হাফেজ রয়েছেন। করোনা রোগীদের জানাযা দিতে কোন মাওলানা না আসলে তিনিই জানাযা দিয়ে থাকেন। সদস্যদের মধ্যে কয়েকজন হিন্দু ধর্মাবলম্বী সদস্য রয়েছেন। যারা হিন্দুদের দাহ ও সৎকার করেন। ১০১ সদস্যের টিমে রয়েছেন- যাদব রায়, মো. খলিলুর রহমান, ফারজানা আক্তার, আবাসা আহম্মেদ, কামরুল ইসলাম জেমস, কাউছার সরকার, গণেশ, রবিউল হাসান, পপ সুমন, আবিদ হাসান, মুকুল, বিশাল খান, মো. শাহিন, মো. রাশেদুল ইসলাম রিপন, মো. ফিরোজ সরকার, সঞ্জয়, সুমন প্রমুখ।

জানা যায়, করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণ করা দেবিদ্বারের বাগুর গ্রামের সাবেক মেম্বার মো. শাহজালাল মেম্বার, নবিয়াবাদ গ্রামের হেলাল, জাফরাবাদ গ্রামের লাল মিয়া, বাগুর পশ্চিম পাড়ার আবুল হোসেন, সুলতাপুর গ্রামের অনিল মাস্টার, চান্দিনার ব্যবসায়ী কিংকর সাহা, চান্দিনা রিপোর্টার্স ইউনিটির সহ-সভাপতি ও উপজেলা বিএনপি’র দপ্তর সম্পাদক সাংবাদিক গোলাম মোস্তফা, হারং গ্রামের প্রবাসী মো. জসিম উদ্দিন এবং বেলাশ^র গ্রামের জ্যোতি রাণী শর্মা এই ৯ জনের গোসল, জানাযা, দাফন, দাহ ও সৎকার করেন এই টিমের সদস্যরা।

টিমের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক কুমিল্লা উত্তর জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য মো. লিটন সরকার জানান, দেবিদ্বারের বাগুর গ্রামের সাবেক মেম্বার মো. শাহজালাল গত ২০ এপ্রিল করোনা আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেন। এই সময় তার দাফন কাজে কেউ এগিয়ে আসেন নি। তখন আমরা ওই মেম্বারের গোসল, জানাযা ও দাফন সম্পন্ন করি। এটা দিয়েই আমাদের স্বেচ্ছাসেবকলীগ ১০১ সদস্যের টিমের কার্যক্রম শুরু হয়।

সাবেক এই ছাত্রলীগ নেতা আরও জানান, শুধু চান্দিনা বা দেবিদ্বার নয় দেশের যে কোন জায়গায় করোনা আক্রান্ত বা উপসর্গ নিয়ে নিহত কারো দাফন বা সৎকার কাজে সমস্যা হলে আমাদেরকে জানালে আমরা ওই কাজ সম্পন্ন করতে প্রস্তুত আছি। দিন-রাত ২৪ ঘন্টা আমরা মানুষের অন্তিম কাজে সহযোগিতা করতে প্রস্তুত।

তিনি আরও বলেন- প্রাকৃতিক দুর্যোগ বা বিপর্যয়ের কারণে বাংলাদেশের যে কোন জেলা-উপজেলা থেকে যে কোন ধরনের সাহায্য-সহযোগিতা চাইলে আমরা ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে দাঁড়াতে প্রস্তুত।

লিটন সরকার বলেন, আমি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর আদর্শে যখন ছাত্র রাজনীতি শুরু করি তখন থেকেই সামাজিক সেবামূলক কাজ ও মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে আসছি। রাজনীতিকদের প্রতি মানুষের আস্থা শতভাগ নিশ্চিত করতেই আমরা এই সেবামূলক কাজটি পরিচালনা করছি।